আপডেট ১২ মিনিট ৪৩ সেকেন্ড

ঢাকা মঙ্গলবার, ১১ বৈশাখ, ১৪২৬ , গ্রীষ্মকাল, ১৮ শাবান, ১৪৪০

চট্টগ্রাম অসত্য তথ্য পরিবেশন থেকে বিরত থাকতে গণমাধ্যমের প্রতি তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের আহ্বান

অসত্য তথ্য পরিবেশন থেকে বিরত থাকতে গণমাধ্যমের প্রতি তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের আহ্বান

শফিক আহমেদ সাজীব,নিরাপদ নিউজ:  ব্রেকিং নিউজে ভুল বা অসত্য তথ্য পরিবেশন থেকে বিরত থাকতে গণমাধ্যমের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। তিনি বলেছেন, সব গণমাধ্যমের একটি ট্রেন্ড হচ্ছে সবার আগে সর্বশেষ সংবাদ পরিবেশন করা। কিন্তু অনেক সময় দেখা যায়, এটির কারণে ভুল কিংবা অসত্য সংবাদ পরিবেশিত হচ্ছে। দেশে অস্থিরতা তৈরি হচ্ছে। আরেকজনের ব্যক্তি অধিকার খর্ব হচ্ছে। তাই খবর পরিবেশনে আরও দায়িত্বশীলতা প্রয়োজন। ১৩ এপ্রিল ২০১৯ শনিবার বাংলাদেশ টেলিভিশন (বিটিভি) চট্টগ্রাম কেন্দ্রের ৯ ঘণ্টা অনুষ্ঠান সম্প্রচারের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। ড. হাছান মাহমুদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণমাধ্যমবান্ধব প্রধানমন্ত্রী। বাংলাদেশে প্রাইভেট টেলিভিশনের যাত্রা শুরু হয় তার হাত ধরেই। সেই অভিযাত্রায় বাংলাদেশে এখন ৪৪টি টেলিভিশনকে লাইসেন্স দেওয়া হয়েছে। ৩৩টি সম্প্রচারে আছে। আরও কয়েকটি খুব সহসা সম্প্রচারে আসবে। তিনি বলেন, বাংলাদেশে গত ১০ বছরে পত্রিকা প্রকাশের সংখ্যা ৪০ শতাংশ বেড়েছে। অনলাইন গণমাধ্যমের ব্যাপক বিকাশ ঘটেছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিরাট বিপ্লব ঘটে গেছে। এই যে পরিবর্তন- এটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণমাধ্যমবান্ধব হওয়ার কারণে সম্ভব হয়েছে। তথ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে এখন যে কোনো সংবাদ পরিবেশিত হয়। খুব দ্রুত মানুষের কাছে সে সংবাদ পৌঁছে যায়। সরকারি সহযোগিতা ছাড়া এটি সম্ভব হতো না। কিন্তু এ জন্য কিছু সমস্যাও সৃষ্টি হয়েছে। তাই সব গণমাধ্যমকে আমরা একটি নীতিমালার মধ্যে নিয়ে আসছি। এটি বাস্তবায়িত হলে সবকিছু শৃঙ্খলার মধ্যে আসবে। সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, চট্টগ্রামের সংস্কৃতি দেশের অন্য যে কোনো এলাকার চেয়ে অনেক বেশি সমৃদ্ধ। দল-মত নির্বিশেষে, সকল সংকীর্ণতার ঊর্ধ্বে উঠে এ সংস্কৃতিকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দিতে হবে। তিনি বলেন, বিটিভি চট্টগ্রাম কেন্দ্রের সম্প্রচারের সময় ৬ ঘণ্টা থেকে বাড়িয়ে ৯ ঘণ্টা করা হয়েছে। এর মাধ্যমে চট্টগ্রামের শিল্পী, কলাকুশলীদের মেধা বিকাশের সুযোগ সৃষ্টি হবে। তাই আজ চট্টগ্রামবাসীর জন্য এক ঐতিহাসিক দিন। ‘তবে শুধু অনুষ্ঠানের সময় বাড়ালে হবে না। সময় বাড়ানোর সঙ্গে অনুষ্ঠানের মানও বাড়াতে হবে।’ যোগ করেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। তথ্য সচিব আবদুল মালেক বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশে বিটিভি ডিআইটি থেকে রামপুরায় স্থানান্তর করা হয়। তার নেতৃত্বেই বিটিভি পূর্ণাঙ্গ টেলিভিশনে পরিণত হয়। বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাই চট্টগ্রামে বিটিভির কেন্দ্র চালু করেন। সেই চট্টগ্রাম কেন্দ্র থেকে এখন ৯ ঘণ্টার সম্প্রচার শুরু হচ্ছে। এটি একটি মাইলফলক। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন বিটিভির মহাপরিচালক এস এম হারুন-অর-রশীদ। অতিথিদের নিয়ে ৯ ঘণ্টা অনুষ্ঠান সম্প্রচার কার্যক্রম উদ্বোধন করেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। পরে বিটিভি চট্টগ্রাম কেন্দ্রের শিল্পীদের নিয়ে মনোমুগ্ধকর সাংস্কৃতিক পরিবেশনা অনুষ্ঠিত হয়।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)