ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট মে ১৭, ২০১৮

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১ ভাদ্র, ১৪২৫ , শরৎকাল, ৪ জিলহজ্জ, ১৪৩৯

ফুটবল, লিড নিউজ অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের শোকেসেই জায়গা পেল উয়েফা ইউরোপা লিগ

অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের শোকেসেই জায়গা পেল উয়েফা ইউরোপা লিগ

নিরাপদনিউজ:  অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের শোকেসেই জায়গা পেল উয়েফা ইউরোপা লিগ। বুধবার টুর্নামেন্টের ফাইনালে তারা ৩-০ গোলে মার্সেইকে পরাজিত করে ইউরোপের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মর্যাদার এই ট্রফি উঁচিয়ে ধরে। সেইসঙ্গে ২০০৯-১০ মৌসুমের পর সেভিয়ার সঙ্গে যৌথভাবে রেকর্ড সর্বোচ্চ তৃতীয়বারের মতো ইউরোপা লিগের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে তারা।

২০১০ ও ২০১২ সালে উয়েফা ইউরোপা লিগের শিরোপা জয়ের স্বাদ পেয়েছিল অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। এবারও ফেবারিটের তকমাটা গায়ে মাখানো ছিল তাদের। মার্সেইকে চোখের জলে ভাসিয়ে শেষ পর্যন্ত শিরোপা উৎসব করল স্প্যানিশ জায়ান্টরা।

ফাইনাল ম্যাচটা ছিল ফ্রান্সের লিঁওতে। কানায় কানায় পরিপূর্ণ ছিল এদিন গ্যালারি। স্বাগতিক ক্লাবটির বিপক্ষে প্রথম গোল করে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের সমর্থকদের উৎসবে ভাসার উপলক্ষ এনে দেন অ্যান্থনিও গ্রিজম্যান। প্রথমার্ধের ২১ মিনিটে দারুণ এক গোল করেন গ্রিজম্যান। এই গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় স্প্যানিশ জায়ান্ট অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেও আবার লাইমলাইটে গ্রিজম্যান। ৪৯ মিনিটে নিজের এবং দলের দ্বিতীয় গোলটি করেন তিনি। সেইসঙ্গে ফ্রান্সের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে উয়েফা ইউরোপা লিগের ফাইনালে জোড়া গোল করার রেকর্ড গড়েন তিনি।

দুই গোলে এগিয়ে যাওয়ার পরও দাপট অব্যাহত রাখে মাদ্রিদের ক্লাবটি। ম্যাচের শেষ মুহূর্তে অ্যাটলেটিকোর হয়ে তৃতীয় গোলটি করেন অধিনায়ক গাবি। আর তাতেই বড় জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে দিয়েগো সিমিওনের শিষ্যরা।

গত কয়েক মৌসুম ধরেই বিশ্ব ক্লাব ফুটবলে দুর্দান্ত খেলছে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। এবারও অসাধারণ পারফরম্যান্স উপহার দিয়েছে তারা। কিন্তু তারপরও দ্বিতীয় স্থানে থেকে লা লিগার মৌসুম শেষ করেছে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ।

অন্যদিকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিয়েছিল তোরেস-গ্রিজম্যানরা। উয়েফা ইউরোপা লিগ জেতায় সেই দুঃখটা কিছুটা হলেও লাগব হবে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)