ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট অক্টোবর ১৯, ২০১৯

ঢাকা শুক্রবার, ৭ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ২৪ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১

জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস, নিসচা সংবাদ, লিড নিউজ আইন না মানার সংস্কৃতি আমাদের সবচেয়ে বড় সমস্যা: ইলিয়াস কাঞ্চন

আইন না মানার সংস্কৃতি আমাদের সবচেয়ে বড় সমস্যা: ইলিয়াস কাঞ্চন

নিরাপদনিউজ : ২২ অক্টোবর জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস। এ বছর দিবসটির প্রতিপাদ্য হচ্ছে “জীবনের আগে জীবিকা নয়, সড়ক দুর্ঘটনা আর নয়”। ২০১৭ সালের ৫ জুন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রী সভার বৈঠকে ২২ অক্টোবরকে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস হিসেবে পালনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও অনুমোদন করা হয়। একই বছরের ২২ অক্টোবর বাংলাদেশে প্রথম জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস পালিত হয়।

এ বছর তৃতীয়বারের মতো ২২ অক্টোবর জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস পালিত হচ্ছে। দিবসটি উপলক্ষে নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) ১ অক্টোবর থেকে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত মাসব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচী হাতে নিয়েছে।

২২ অক্টোবর জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস ২০১৯ এবং জাহানারা কাঞ্চনের ২৬তম মৃত্যুবার্ষিকী পালন উপলক্ষে শুরু হওয়া নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের মাসব্যাপী কর্মসূচির আজ ছিলো ১৯তম দিন।

একমুখী চলা রাস্তার উল্টোদিকে গাড়ি চালাবেন না, যেখানে সেখানে গাড়ি পার্কিং করবেন না, গাড়ি চালানোকালে মোবাইল ফোনে কথা বলবেন না, বেপরোয়া গাড়ি চালাবেন না, নেশাগ্রস্ত অবস্থায় গাড়ি চালাবেন না ,রাস্তা পারাপারে জেব্রা ক্রসিং ব্যবহার করুন, ফুটপাত দিয়ে মোটরসাইকেল চালাবেন না। রাস্তা পারাপারে আন্ডারপাস ব্যবহার করুন।

জীবনের আগে জীবিকা নয়, সড়ক দুর্ঘটনা আর নয়। আগে নিজের জীবন রক্ষা করুন। তাড়াহুরো না করে সাবধানে পথ চলুন এমন নানান সচেতনমুলক স্লোগানে আজ আবাও ট্রাফিক আইন নিয়ে সচেতনতা সৃষ্টির জন্য নিসচার একটি টিম নিয়ে মাঠে নেমেছিলেন চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন।

নিরাপদ সড়ক চাই এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান চিত্র নায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন এর নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দদের নিয়ে নিসচার এই টিম কাকরাইল মোড়ে বিকেলে প্রায় দুই ঘন্টা ব্যাপী সচেতন মুলক কার্যক্রম পরিচালনা করেন।

চলতি মাসে প্রায় প্রতিদিন রাজধানীর কোথাও না কোথাও সড়কে নিসচার এই টিম কে দেখা যাচ্ছে তাঁরা সড়কে নিয়ম মেনে পথ চলার বিষয়ে যাত্রী/পথচারীদের মাঝে সাচেতনতা বাড়াতে কাজ করে যাচ্ছে। কর্মিরা পথচারী/যাত্রীদের সচেতনমুলক দিক নির্দেশনা প্রদান করছেন। জেব্রা ক্রসিং ব্যবহারে অনিহা এমন পথচারীদের ধরে ধরে যত্রতত্র রাস্তা পারাপার হতে নিষেধ করছেন এবং জেব্রা ক্রসিং ব্যবহারে উদ্বুদ্ধ করছেন।

নিসচার পক্ষ থেকে জানানো হয়, সড়কে এখন মালিক, চালক ও শ্রমিকদের পাশাপাশি যাত্রী ও পথচারীদের মধ্যেও বেপরোয়া মনোভাব লক্ষ করা যায়। সড়কের শৃংখলা ফেরাতে আইন ও নিয়ম-নীতি অমান্য করার এই সংস্কৃতি থেকে সব পক্ষকেই বিরত থাকতে হবে। এ ছাড়া জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে সারা দেশে ব্যাপক প্রচারণা চালাতে হবে এবং দেশের গণমাধ্যমকেও এ ব্যাপারে দায়িত্ব নিতে হবে। তাহলে সরকার সমস্যা সমাধানে জরুরি পদক্ষেপ গ্রহণ করবে বলে মনে করে নিসচা।

নিসচার পক্ষ থেকে আরো জানানো হয়েছে, ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত ট্রাফিক আইন মানতে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ কিছু মোড়ে ক্যাম্পেইন ও পালিত কর্মসূচির আলোকে সমস্যা চিহ্নিত করে সরকারের কাছে তুলে ধরা, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের সড়ক নিরাপত্তা বিষয়ক প্রশিক্ষণ প্রদান ও শিক্ষার্থীদের স্কুলে আসা-যাওয়ার পথে কি কি সমস্যা বিদ্যমান রয়েছে তা চিহ্নিত করা এবং স্কুলের সামনের সমস্যা চিহ্নিত করে তা প্রতিকারে ব্যবস্থা নিতে উদ্যোগী হওয়া, বিদ্যমান চালকদের দক্ষতা বৃদ্ধিতে প্রশিক্ষণ প্রদান, পিটিআইয়ের মাধ্যমে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সড়ক নিরাপত্তা বিষয়ক প্রশিক্ষণ প্রদান, সেমিনারের আয়োজন, র‌্যালী এবং বাস টার্মিনালসমূহে সড়ক নিরাপত্তা বিষয়ক বিশেষ ক্যাম্পেইন পরিচালনা করা। সেইসাথে দেশব্যাপী বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের মাঝে ও বাস টার্মিনাল ছাত্রীদের মাঝে সড়ক নিরাপত্তা বিষয়ক বিশেষ ক্যাম্পেইন পরিচালনা করা হবে।

আজ ক্যাম্পেইন শেষে সাংবাদিকদের ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, ট্রাফিক শৃঙ্খলা একটি জাতির সভ্যতার প্রতীক। সড়ক দুর্ঘটনারোধে চালক, মালিক ও পথচারীদের দায়িত্ব রয়েছে। সবাই সচেতন হলে ট্রাফিকের শৃঙ্খলা ফেরানো সম্ভব। সড়কে ট্রাফিক শৃঙ্খলা ফেরাতে আমরা নিসচা সংগঠনের পক্ষ থেকে নিয়মিত সড়কে ক্যাম্পেইন পরিচালনা করছি। আশা করি আমাদের এই ক্যাম্পেইন পরিচালনার মাধ্যমে কিছুটা হলেও জনসাধারনের মাঝে সচেতনতা সৃস্টি হচ্ছে। সড়কের শৃঙ্খলা ফেরাতে সবার সহযোগিতা চেয়ে ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন,আইন না মানার সংস্কৃতি আমাদের সবচেয়ে বড় সমস্যা। রাস্তায় নামলে কেউ আইন মানতে চাই না। ট্রাফিক শৃঙ্খলা ফেরাতে আইন না মানার সংস্কৃতি থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে। ইলিয়াস কাঞ্চন আরো বলেন,ট্রাফিকের বিশৃঙ্খলা একদিনে সৃষ্টি হয়নি। নিয়ম ভাঙার অভ্যাস থেকে ফিরে আসতে কিছুটা সময় লাগবে। সড়কের শৃঙ্খলা ফিরে আসবে বলে আমরা আশাবাদী। সড়কের শৃঙ্খলা আনতে হলে সবাইকে সচেতন হয়ে আইন মানতেই হবে।

নিসচার আজকের কেন্দ্রীয় কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস উদযাপন কমিটির আহবায়ক ও যুগ্ম মহাসচিব লিটন এরশাদ, যুগ্ম মহাসচিব লায়ন গনি মিয়া বাবুল, জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব ও সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম আজাদ,অর্থ সম্পাদক নাসিম রুমি,  সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুর রহমান। আরো অংশগ্রহণ করেন সমাজকল্যাণ সম্পাদক আসাদুর রহমান আসাদ, কার্যনির্বাহী সদস্য কামাল হোসেন খান, সাধারণ সদস্য আলী আকবর, আবদুল মান্নান, রাইসিন গাজী, আবদুর রাজ্জাক, নির্মল, শহিদুল ইসলাম, আরিফুর তারেক, মোঃ মোহসিন খান, রাইসিন গাজী, নুরুল আজিম, মোঃ সাকিব হোসেন, সোহেল বিশ্বাস, আনোয়ার হোসেন শাকিল, আল হাসান রাজীব, মনির, মিথিলা আমিন স্নিগ্ধা, মনির, মোয়াজ্জেম, নিশি, নুসরাত, আনিস আহমেদ,ফখরুল ইসলাম, আবদুল আলীম, মাহবুব, জসিম উদ্দিন, আলহাজ্ব মোজাহাদুল ইসলাম মোজাহিদ, মনির, ফজলুর রহমান, হাবিবুর রহমান হাবিব, আসাদুল ইসলাম আসাদ, জাহিদুল ইসলাম, সাবান্তা, কাউসার, ট্রাফিক পুলিশ হাসান প্রমুখ।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)