আপডেট ১ মিনিট ৩২ সেকেন্ড

ঢাকা শনিবার, ১২ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ , গ্রীষ্মকাল, ১০ রমযান, ১৪৩৯

চট্টগ্রাম, সাহিত্য আজ কবিয়াল রমেশ শীলের ৫০তম মৃত্যুবার্ষিকী

আজ কবিয়াল রমেশ শীলের ৫০তম মৃত্যুবার্ষিকী

আজ কবিয়াল রমেশ শীলের ৫০তম মৃত্যুবার্ষিকী

শফিক আহমেদ সাজীব, ০৬ এপ্রিল ২০১৭, নিরাপদ নিউজ : আজ কবিয়াল রমেশ শীলের ৫০তম মৃত্যুবার্ষিকী, রমেশ শীল ১৮৭৭ সালে ৯ মে চট্টগ্রামের বোয়ালখালী উপজেলার শীল পাড়ার অতিসাধারণ এক ঘরে রমেশ শীলের জন্ম। ১১ বছর বয়সে পিতৃহারা হন। তাঁর ওপর নেমে আসে পরিবারের ছয় সদস্যের ভার। জীবিকার তাগিদে গমন করেন বার্মায় (মিয়ানমার)। কিন্তু তাঁর মন-প্রাণে মিশে আছে বাংলার সোঁদা গন্ধ। ১৮ বছর বয়সে ফিরে আসেন মাতৃভূমিতে। নিজ গ্রামে। শুরু করেন পৈতৃক পেশা ক্ষোরকর্মে। স্বর্ণশিল্পী, মুদি-চালের গুদামে চাকরি, শৈল্য-কবিরাজি-হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা, কবিগান ও গণসংস্কৃতি চর্চা। ১৮৯৭ সালের চট্টগ্রামের মাঝিরঘাটে বন্ধুদের সাথে জগদ্ধাত্রী পূজায় গান শুনতে গিয়েছিলেন বালক রমেশ শীল।

দুই প্রবীণ কবিয়াল মোহন বাঁশী ও চিন্তাহরণের কবিগানের আসর। আসরে ওঠে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লেন কবিয়াল চিন্তাহরণ। দুচিন্তায় পড়েছেন আয়োজকেরা। তারা ঘোষণা দিলেন, আসরে কোনো কবি থাকলে মঞ্চে আসার জন্য। বন্ধুরা মিলে রমেশ শীলকে আসরে উঠিয়ে দিলেন। গান শুনতে গিয়ে ২১ বছর বয়সেই রমেশ হয়ে গেলেন কবিয়াল। অজপাড়া গ্রামের রমেশ শহরে গান শুনতে এসেই কবিয়াল সরকারের উপাধি পান। ২০০২ সালে সরকার তাঁকে একুশে পদকে ভূষিত করেন। একই সাথে তাঁর দোহার বিনয়বাঁশীঁ জলদাসও এ পদক পান।

লোককবি রমেশ শীল ১৯৬৭ সালের ৬ এপ্রিল দেহত্যাগ করেন। বাড়ির পাশে নিজ আঁখড়ায় সমাধি করা হয়।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)