ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট অক্টোবর ২৩, ২০১৯

ঢাকা শুক্রবার, ৭ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ২৪ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১

রাজশাহী, সড়ক সংবাদ আত্রাইয়ে ঢাকাগামী আন্তঃনগর ট্রেনের স্টপেজ শুধু কি স্বপ্নই থেকে গেল?

আত্রাইয়ে ঢাকাগামী আন্তঃনগর ট্রেনের স্টপেজ শুধু কি স্বপ্নই থেকে গেল?

নাজমুল হক নাহিদ, নিরাপদনিউজ : নওগাঁর আত্রাইয়ের আহসানগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনে ঢাকাগামী সকল আন্তঃনগর ট্রেনের স্টপেজ শুধু কি স্বপ্নই থেকে গেল ? এ স্বপ্ন বাস্তবায়নে তেমন কোন উদ্যোগ পরিলক্ষিত না হওয়ায় আত্রাইবাসী এখন অনেকটা হতাশ হয়ে পড়েছে।

আত্রাই বাসীর দীর্ঘদিনে দাবি এখানে ঢাকাগামী সকল আন্তঃনগর ট্রেনের স্টপেজ দেয়া হোক। এ দাবি আদায়ের জন্য গত ২০১৬-১৭ সনে এবং এবারে গত জুন মাসের শেষ দিকে ও জুলাই মাসের শুরুর দিকে ব্যাপক আন্দোলন গড়ে তোলা হয়। আন্দোলনকারীরা প্রতিদিন আত্রাই রেলওয়ে স্টেশনে মানববন্ধন, রেলপথ অবরোধসহ বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করেছে।

এসব কর্মসূচী চলাকালীন পঞ্চগড় থেকে ঢাকাগামী দ্রুতযান এক্সপ্রেস ট্রেন আত্রাইয়ে পৌঁছলে আন্দোলনকারীদের তোপের মুখে চালক ট্রেন থামিয়ে দেন। এভাবে ১০ থেকে ১২ দিন ট্রেন থামানোর পর গত ৫ জুলাই এ আন্দোলনে নেতৃত্বদানকারীরা দেখা করেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজনের সাথে। সক্ষাৎকালে তিনি আসন্ন কুরবানী ঈদের আগেই ট্রেনের স্টপেজ কার্যকর করার আশ্বাস প্রদান করেন।

আত্রাইয়ের আন্দোলনে নেতৃত্বদানকারী উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ এবাদুর রহমান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মমতাজ বেগম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নৃপেন্দ্রনাথ দত্ত দুলাল, সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী গোলাম মোস্তফা বাদলসহ বেশ কয়েকজন নেতৃবৃন্দ রেলমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎ অনুষ্টানে উপস্থিত ছিলেন।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মমতাজ বেগম বলেন, গত ৫ জুলাই নাটোর রেলওয়ে স্টেশন মাস্টারের কক্ষে রেলমন্ত্রীর সাথে আমাদের কথা হয়েছে। তিনি ঈদের আগেই আত্রাইয়ে ট্রেনের স্টপেজ কার্যকর করবেন বলে আমাদেরকে আশ^স্ত করেছিলেন। সে অনুযায়ী আমরা আন্দোলন স্থগিত করে এ ব্যাপারে বাংলাদেশ রেলওয়ে পশ্চিম জোনের জিএম কার্যালয়, ঢাকা রেলভবন ও মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন জায়গায় গিয়েছি।

গত ১৮ জুলাই বাংলাদেশ রেলওয়ে (পশ্চিম) এর চিফ অপারেটিং সুপারিনটেনডেন্ট (পশ্চিম) এএমএম শাহনেওয়াজ স্বাক্ষরিত একটি চিঠি বাংলাদেশ রেলওয়ে মহাপরিচালক বরাবর দেয়া হয় (যার স্মারক নং- ওপি/টিটি/বিরতি/আত্রাই-০০৮-১৪৬, তারিখ ১৮ জুলাই-২০১৯)। ওই পত্রে তিনি জনদাবির প্রেক্ষিতে আহসানগঞ্জ স্টেশনে সাময়িকভাবে শুধুমাত্র ঢাকাগামী ৭৫৮/৭৫৭ দ্রুতযান এক্সপ্রেস ট্রেনের যাত্রা বিরতি দেয়া যেতে পারে বলে মতামত দেন। কিন্তু এ চিঠি চিঠিই থেকে গেছে অদ্যাবধি এটি বাস্তাবয়ন হয়নি।

উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ এবাদুর রহমান বলেন, রাজধানী ঢাকার সাথে আত্রাইয়ের একমাত্র রেলপথ ছাড়া সরাসরি যোগাযোগের কোন পথ নেই। এখানে ঢাকাগামী মাত্র একটি ট্রেনের স্টপেজ দেয়া হয়। ওই ট্রেনে যাত্রীদের এত চাপ যে কর্তৃপক্ষ টিকিটই দিতে পারেন না। তাই এখানে ঢাকাগামী অন্যান্য ট্রেনের স্টপেজ কার্যকর হলে এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দুর্ভোগ লাঘব হবে।

উল্লেখ্য প্রতিদিন আত্রাইয়ের উপর দিয়ে উত্তরাঞ্চল থেকে ঢাকার মধ্যে ৫ জোড়া আন্তঃনগর ট্রেন চলাচল করে থাকে। এসব ট্রেনের মধ্যে কেবলমাত্র নীলসাগর এক্সপ্রেসে ট্রেনের স্টপেজ রয়েছে আত্রাইয়ে। এ ট্রেনে চাহিদার তুলনায় আসন সংখ্যা বরাদ্দ খুব কম। অথচ এ স্টেশন থেকে রেলের প্রতি মাসে আয় হয় ১৪ থেকে ১৬ লাখ টাকা। ঢাকাগামী অন্যান্য আন্তঃনগর ট্রেনের স্টপেজ কার্যকর হলে রেলের আয় আরও অনেক বেড়ে যাবে বলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অভিমত।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)