আপডেট ৬ মিনিট ৫৪ সেকেন্ড

ঢাকা রবিবার, ৮ আশ্বিন, ১৪২৬ , শরৎকাল, ২৩ মুহাররম, ১৪৪১

বরিশাল, সড়ক সংবাদ আমতলী একে স্কুল-তালুকদার বাজার সড়কে খানাখন্দ, লক্ষাধীক মানুষের দুর্ভোগ

আমতলী একে স্কুল-তালুকদার বাজার সড়কে খানাখন্দ, লক্ষাধীক মানুষের দুর্ভোগ

আব্দুল্লাহ আল নোমান,নিরাপদ নিউজ: বরগুনার আমতলী একে স্কুল-তালুকদার বাজার সড়ক খানাখন্দে ভরপুর। গত তিন বছর ধরে এ অবস্থায় পরে থাকলেও সংস্কারের উদ্যোগ নিচ্ছে না স্থানীয় প্রকৌশলী বিভাগ। এতে দুর্ভোগে পরেছে লক্ষাধীক মানুষ। সড়কের বেহাল অবস্থার কারনে প্রায়ই ঘটে দুর্ঘটনা। দ্রুত সড়কটি সংস্কারের দাবী জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা।

উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অফিস সূত্রে জানাগেছে, আমতলী পৌর শহর থেকে শুরু করে তালুকদার বাজার পর্যন্ত ৭.১৫ কিলোমিটার পাকা সড়ক। ২০১৪ সালে ওই সড়কের ৩.৯০ কিলোমিটার স্থানীয় প্রকেীশল বিভাগ সংস্কার করে। নিম্নমানের কাজ করায় সংস্কারের দুই বছরের মাথায় সড়কটি খানাখন্দে পরিনত হয়। ২০১৬ সালে ওই সড়কের বাকী ৩.২৫ কিলোমিটার সংস্কার করা হয়। এ অংশটি খানাখন্দে ভরে গেছে। এ সড়ক সংলগ্ন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ, বকুলনেছা মহিলা কলেজ, একে মডেল সরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয়, তালুকদার বাজার মাদ্রাসা ও চন্দ্রা টেকনিক্যাল কলেজ রয়েছে।

ওই প্রতিষ্ঠানগুলোর শিক্ষার্থীসহ চাওড়া, হলদিয়া, আঠারোগাছিয়া, কুকুয়া ইউনিয়ন ও আমতলী পৌরসভার প্রায় লক্ষাধীক মানুষ যাতায়াত করে। প্রতিদিন প্রায় বিশ হাজার মানুষের যাতায়াত এ সড়কটি দিয়ে। ব্যস্ততম এ সড়কটি খানাখন্দে ভরপুর হয়ে যাওয়ায় মানুষের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। সড়ক দিয়ে ঠিমকত যানবাহন চলাচল করতে পারে না। ব্যবসায়ের তিনটি প্রাণ কেন্দ্র আমতলী বাজার,তালুকদার বাজার ও গাজীপুর বন্দরে পন্য পরিরহনে এ সড়কটি ব্যবহার করতে হয়। সড়কটির বেহাল অবস্থার কারনে পন্য পরিবহন করতে সমস্যা হচ্ছে। সড়কের দুরাবস্থার কারনে প্রায় ঘটে দুর্ঘটনা। তাই দ্রুত সড়কটি সংস্কারের দাবী জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা।

মঙ্গলবার সরেজমিনে ঘুরে দেখাগেছে, আমতলী একে স্কুল থেকে শেখ হাসিনা টেকনিক্যাল কলেজ পর্যন্ত এক কিলোমিটার সড়কে প্রায় দুই শতাধিক খানাখন্দ রয়েছে। প্রতি ৫০ মিটার অন্তর অন্তর খানাখন্দ। গাড়ী খানাখন্দে পরলে উঠতে সমস্যা হচ্ছে। আমতলী কালীবাড়ী গ্রামের মোঃ মেহেদী হাসান রাকিব ও মোঃ হাফিজুর রহমান বলেন, গত তিন বছর ধরে সড়কটি খানাখন্দে ভরে আছে। কেউ এ সড়কটি সংস্কারের উদ্যোগ নিচ্ছে না। সড়কটি সংকার না করায় প্রায়ই ঘটে দুর্ঘটনা। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে দ্রুত সড়কটি সংস্কারের দাবী জানাই।

আমতলী বকুলনেছা মহিলা কলেজের শিক্ষার্থী সারমিন, শিরিনা, ফারিয়া ও মাহফুজা বলেন, গাজীপুর বন্দর থেকে এ সড়টি দিয়ে প্রতিদিন কলেজ আসতে হয়। সড়কের বেহাল অবস্থার কারনে কলেজে আসতে খুব সমস্যা হচ্ছে। দ্রুত রাস্তাটি সংস্কারের দাবী জানাই। বে-সরকারী সংস্থা সুশীলনের স্টোর কিপার মোঃ বশির মৃধা বলেন, গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটি খানাখন্দে ভয়ে থাকায় যানবাহনসহ মানুষের চলাচলের সমস্যা হচ্ছে। দ্রুত সড়কটি সংস্কার করা প্রয়োজন।

বকুলনেছা মহিলা কলেজের প্রভাষক মোঃ বশির উদ্দিন বলেন, সড়কটি খানাখন্দে ভরে থাকায় স্কুল কলেজ শিক্ষার্থীসহ উপজেলা শহর মুখী মানুষের যাতায়াতে খুব সমস্যা হয়। বছরের পর বছর সড়কটি এ অবস্থায় পড়ে থাকলেও কেউ সড়কটি মেরামতের উদ্যোগ নিচ্ছে না।

আমতলী উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ নজরুল ইসলাম বলেন, ৭ টন ওজনের ধারন ক্ষমতার সড়ক দিয়ে ২০ টন ওজনের গাড়ী চলে। ভারী গাড়ী চলায় সড়কটি খানাখন্দে পরিনত হয়েছে। তিনি আরো বলেন,প্রতি চার বছরের মাথায় সড়ক সংস্কারের আওতায় আসবে। সে হিসেবে ওই সড়ক সংস্কারের প্রকল্প দিয়েছি।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)