আপডেট ১৯ মিনিট ২৩ সেকেন্ড

ঢাকা সোমবার, ৮ আশ্বিন, ১৪২৬ , শরৎকাল, ২৩ মুহাররম, ১৪৪১

ধর্মকর্ম আল কোরআন ও আল হাদিস

আল কোরআন ও আল হাদিস

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম

আল কোরআন
৩০. তিনি (আল্লাহ) এক দলকে সৎপথে পরিচালিত করেছেন এবং অপর দলের জন্য (সঙ্গত কারণেই) ভ্রষ্টতা নির্ধারিত হয়েছে, তারা আল্লাহকে ছেড়ে শয়তানকে অভিভাবক (ও বন্ধু) বানিয়েছিল এবং নিজেদেরকে হেদায়াতপ্রাপ্ত মনে করত।
৩১. হে আদম সন্তান! প্রত্যেক নামাযের সময় সুন্দর পরিচ্ছদ গ্রহণ কর, আর খাও এবং পান কর। (তবে পরিচ্ছদ ও পানাহারে) অপচয় করবে না, কেননা আল্লাহ অপচয়কারীদের ভালোবাসেন না।

আল হাদিস
৪৩ নং পরিচ্ছেদ
মিথ্যা শপথের মাধ্যমে কোন মুসলমানের
সম্পদ দখলের শাস্তি
৮৪। আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সা) বলেছেন, যে ব্যক্তি কোন মুসলমানের সম্পদ আÍসাতের লক্ষ্যে জেনে-বুঝে স্থিরচিত্তে মিথ্যা শপথ করবে, সে আল্লাহ তা‘আলার সামনে কিয়ামতের দিন এমন অবস্থায় উপস্থিত হবে যে, আল্লাহ তার প্রতি ভয়ানক রাগাম্বিত থাকবেন। একথার সত্যতা প্রমাণের জন্য আল্লাহ তা‘আলা এ আয়াত নাযিল করলেন, “যারা সামান্য বিনিময়ে আল্লাহর প্রতি দেয়া শপথ ও ওয়াদা বিক্রি করে, কিয়ামতের দিন তাদের ভাগ্যে কিছুই জুটবে না। আল্লাহ তাদের সাথে কোন কথা বলবেন না। তাদের প্রতি (রহমতের দৃষ্টিতে) তাকাবেন না এবং তাদের পরিশুদ্ধও করবেন না। তাদের জন্য রয়েছে কঠোর শাস্তি। হাদীসের বর্ণনাকারী বলেন, এ সময় আশআ‘স ইবনে কায়েস আমাদের কাছে এসে বললেন, আবু আব্দুর রহমান তোমাদেরকে কোন হাদীস শুনিয়েছেন? আমরা বললাম, এই রকম এই রকম হাদীস বর্ণনা করেছেন। তিনি বললেন, কুরআন পাকের উক্ত আয়াতটি আমার সম্পর্কে নাযিল হয়েছে। আমার চাচাতো ভাইয়ের জমিতে আমার একটি কূপ ছিল। কূপটির মালিকানা বিষয়ে গ-গোল দেখা দিলে আমি রাসূলুল্লাহ (সা)-এর দরবারে মামলা দায়ের করি। রাসূল (সা) আমাকে বললেন, তুমি সাক্ষ্য প্রমাণ হাজির করো নতুবা তাকে শপথ করতে বলবো। আমি বললাম, তাহলে সে তো শপথই করে ফেলবে! রাসূলুল্লাহ (সা) বললেন, যে ব্যক্তি কোন মুসলমানের সম্পদ আসাতের লক্ষ্যে জেনে-বুঝে ঠান্ডা মাথায় মিথ্যা শপথ করবে, সে কিয়ামতের দিন আল্লাহ তা‘আলার সামনে এমন অবস্থায় হাজির হবে যে, আল্লাহ তার প্রতি ভয়ানক অসন্তুষ্ট থাকবেন।
(বুখারী-কিতাবুত তাফসীর)

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)