ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ৫৬ সেকেন্ড

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ৬ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ২৩ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১

এই দিনে ইতিহাসের এই দিনে

ইতিহাসের এই দিনে

আজ (মঙ্গলবার) ১৭ সেপ্টেম্বর’২০১৯

১৯৪৮ সালের এই দিনে আরব ইসরাইল যুদ্ধ এবং ফিলিস্তিন সংকট বিষয়ক জাতিসঙ্ঘের মধ্যস্ততাকারী কেন্ট বার্ণাডোট বায়তুল মোকাদ্দাসে ইহুদী অধ্যুষিত এলাকায় ইহুদীবাদীদের হাতে নিহত হয়েছিলেন। আরব ও ইসরাইলীদের অবস্থান বা দৃষ্টিভঙ্গী সম্পর্কে জানার পর দুপক্ষের যুদ্ধ ও ফিলিস্তিন সংকট অবসানের জন্য তার পরিকল্পনা পেশ করার কথা ছিল। জাতিসঙ্ঘের এই মধ্যস্ততাকারী ইসরাইল রাষ্ট্রের অস্তিত্ব টিকে থাকার বিষয়টিকে সমর্থন করলেও ফিলিস্তিনীদের স্বার্থ রক্ষার পক্ষেও কথা বলতেন। এ কারণে ইহুদীবাদীরা তার উপর ক্ষুব্ধ হয় এবং শেষ পর্যন্ত তাকে হত্যা করে।

১৯৪৮ সালের এই দিনে জার্মানীর খ্যাতনামা জীবনীকার এমিল লুধউইক মৃত্যুবরণ করেন। তিনি ১৮৮১ সাল জন্ম গ্রহণ করেন এবং উনবিংশ শতাব্দীর দ্বিতীয়ার্ধে জার্মানীর চ্যান্সেলর বিসমার্কের জীবনী লিখে খ্যাতি অর্জন করেন। এমিল লুধউইক দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় সাংবাদিক হিসাবে কাজ কারার সুবাদে রুযভেল্ট, চার্চিল ও ষ্ট্যালিনের মত সে সময়কার খ্যাতনামা ব্যক্তিত্বদের সাক্ষাৎকার গ্রহণ করেন এবং তাদের জীবনের বিভিন্ন দিক লিপিবদ্ধ করে রাখেন।

১৯৭০ সালের এই দিনে জর্দান সেনা বাহিনী ফিলিস্তিনীদের উপর ব্যাপক গণহত্যা অভিযান শুরু করেছিল। ইসরাইলের বিরুদ্ধে ফিলিস্তিনী গেরিলাদের অভিযান তীব্রতর হওয়ায় এবং জর্দানে ফিলিস্তিনীদের তৎপরতা বৃদ্ধি পাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে জার্দানের তৎকালীন বাদশাহ হোসেন বিন তালাল বিষয়টিকে তার ক্ষমতার জন্য হুমকি বলে মনে করতে থাকেন। ১৯৭০ সালের ১লা সেপ্টেম্বর থেকে রাজধানী আম্মানে জর্দানের সেনা বাহিনীর সাথে ফিলিস্তিনী গেরিলাদের বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ শুরু হয়। ফলে ১৬ই সেপ্টেম্বর জর্দানে সামরিক সরকার গঠিত হয় এবং এর পরের দিন বাদশাহর নির্দেশে সেনা বাহিনী গেরিলা ও বেসামরিক ফিলিস্তিনীদের উপর হামলা চালায় এবং এতে কয়েক হাজার ফিলিস্তিনী হতাহত হয়। এরপর ২৭শে সেপ্টেম্বর পিএলও নেতা ইয়াসির আরাফাত ও জর্দানের বাদশাহর মধ্যে এক যুদ্ধ বিরতি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। কিন্তু ঐ বছরের শেষের দিকে জর্দানের সেনা বাহিনীর সাথে ফিলিস্তিনী গেরিলাদের আবারও সংঘর্ষ বাধে এবং জর্দান সরকার সেদেশের মাটি থেকে ইসরাইলে হামলা চালানো নিষিদ্ধ ঘোষণা করে।

ফার্সী ১৩৬৭ সালের এই দিনে ইরানের প্রখ্যাত কবি ও সাহিত্যিক মোহাম্মদ হোসেন শাহরিয়ার পরলোক গমন করেন। তিনি ফার্সী ১২৮৩ সালে উত্তর পশ্চিম ইরানের তাবরিয শহরে জন্ম গ্রহণ করেন। তিনি তেহরানের দারুল ফুনুন শিক্ষা কেন্দ্রে মাধ্যমিক স্তরের লেখাপড়া শেষ করে চিকিৎসা শিক্ষা কেন্দ্রে ভর্তি হন। কিন্তু এর কয়েক বছর পর তিনি এ শিক্ষা কেন্দ্র ত্যাগ করে মাতৃভ‚মি তাবরিযে ফিরে গিয়ে সাহিত্য চর্চা শুরু করেন। ২৩ বছর বয়সে তার প্রথম একটি কবিতার গ্রন্থ প্রকাশিত হয়। তিনি অসংখ্য ফার্সী ও চতুস্পদি কবিতা এবং গজল লেখেন। বিশ্বনবী হযরত মোহাম্মদ (সা:) এর প্রশংসা করেও তিনি প্রচুর কবিতা লিখেছেন। তিনি শুরু থেকেই ইরানে ইসলামী আন্দোলনের সমর্থক ছিলেন এবং তৎকালীন শাহ সরকারের স্বৈরশাসনের সমালোচনা করে প্রচুর লেখালেখি করেছেন। মোহাম্মদ হোসেন শাহরিয়ার মরমি কবি হিসাবেও পরিচিতি পান।

১৯৮২ সালের এই দিনে হানাদার ইসরাইলী সেনারা লেবাননের সাবরা ও শাতিলা শরণার্থী শিবিরে আশ্রয়গ্রহণকারী নিরিহ ফিলিস্তিনীদের উপর ব্যাপক গণহত্যা চালায়। ১৯৮২ সালের জুন মাসে প্রায় দেড় লক্ষ ইসরাইলী সৈন্য হামলা চালিয়ে সশস্ত্র ফিলিস্তিনীদেরকে বৈরুত থেকে বিতাড়িত করে প্রথমে শহরটি দখল করে নেয়। এরপর তৎকালীন ইসরাইলী প্রধানমন্ত্রী ও যুদ্ধ মন্ত্রীর নির্দেশে ইসরাইলী সেনারা সাবরা ও শাতিলা শরণার্থী শিবির অবরুদ্ধ করে এবং পরে লেবাননে ইসরাইল সমর্থিত ফ্যালাঞ্জিষ্ট মিলিশিয়ারা নিরীহ ফিলিস্তিনীদের উপর নজির বিহীন গণহত্যা চালায়। ৪০ ঘন্টা ধরে চলা এ অভিযানে তিন হাজার ৩০০ ফিলিস্তিনী নিহত হয়।

হিজরী ৭২৭ সালের এই দিনে দামেস্কের খ্যাতনামা মুসলিম ফকিহ, মোহাদ্দেস ও সাহিত্যিক ইবনে জামালকানি পরলোক গমন করেন। তিনি তার যুগে স্বনামধন্য শিক্ষকদের কাছে ধর্মীয় বিষয়ে প্রচুর পড়ালেখা করেন এবং মাত্র ২০ বছর বয়সে ফতোয়া জারি করার যোগ্যতা অর্জন করেন। তিনি বিচারকার্য পরিচালনা করেন এবং দামেস্কে বহু স্কুল বা শিক্ষাকেন্দ্র গড়ে তোলেন।

স্পেনের রাজা চতুর্থ ফিলিপের মৃত্যু (১৬৬৫)
শ্রীলংকার জাতীয়তাবাদী নেতা ও বৌদ্ধ ভিক্ষু ধর্মপালের জন্ম (১৮৬৪)
যুক্তরাষ্ট্রের রাইট ভ্রাতৃদ্বয় অরভিল ও উইলবারের সর্বপ্রথম সাফল্যের সাথে উড়োজাহাজ উড্ডয়ন (১৯০৩)
গণবিরোধী হামুদুর রহমান শিক্ষা কমিশনের রিপোর্টের বিরুদ্ধে পূর্ব বাংলায় ছাত্র আন্দোলন ও হরতাল পালিত (১৯৬২)
বাংলাদেশের জাতিসংঘ সদস্যপদ লাভ (১৯৭৪)
নিকারাগুয়ার প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি অ্যানান্তসিও সামোজা দেবায়েল যুদ্ধক্ষেত্রে নিহত (১৯৮০)
ভারত-শ্রীলংকা প্রথম ক্রিকেট ম্যাচ অনুষ্ঠিত (১৯৮২)
এস্তেনিয়া, লাটভিয়া, লিথুনিয়া, উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়ার জাতিসংঘের সদস্যপদ লাভ (১৯৯১)

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)