ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট মার্চ ২৮, ২০১৭

ঢাকা সোমবার, ৩ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ২০ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১

এই দিনে ইতিহাসের এই দিনে

ইতিহাসের এই দিনে

ইতিহাসের এই দিনে

আজ (মঙ্গলবার) ২৮ মার্চ’২০১৭

১৮৬৮ সালের এ দিনে রাশিয়ার বিখ্যাত ছোট গল্পকার, লেখক, উপন্যাসিক ম্যাক্সিম গোর্কি জন্ম গ্রহণ করেন। পুরানো হিসেবে তার জন্ম তারিখ হবে ১৬ই মার্চ। গোর্কি তার ছদ্মনাম। যার অর্থ হলো তিক্ত প্রাণ। তিনি নিজনি নভগোরোড নামের রাশিয়ার একটি শহরে জন্ম গ্রহণ করেন। পরে এ তার সম্মানে এ শহরের নাম বদলিয়ে গোর্কি রাখা হয়। অল্প বয়সেই গোর্কি তার বাবা মাকে হারান। তার বাবা কলেরায় মারা যান এবং মা মারা যান যক্ষ্মায়। গোর্কি তার আত্মজীবনী আমার ছেলেবেলার মায়ের একটি মর্মস্পশী বর্ণনা দিয়েছেন। রাশিয়ার সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবের পটভূমিতে রচিত তার বিখ্যাত গ্রস্থের নাম মা। ১৯৩৬ সালে গোর্কি পরলোকগমন করেন।

১৯৩৯ সালের এ দিনে প্রায় তিন বছর যুদ্ধের পর স্পেনের গৃহযুদ্ধের পরিসমাপ্তি ঘটে। এ যুদ্ধে শেষ পর্যন্ত জেনারেল ফ্রান্সিকো ফ্রাংকোর নেতৃত্বাধীন জাতীয়বাদিরা বিজয় লাভ করে। গৃহ যুদ্ধ চলাকালে ফ্রাংকোকে সহায়তা দিয়েছে জার্মানী ও ইতালি। অন্যদিকে তার প্রতিপক্ষ রিপাবলিকানদের সহায়তা করেছে সোভিয়েত ইউনিয়ন। এ ছাড়া ইন্টারন্যাশনাল বিগ্রেড নামে একটি সংগঠন তৈরি করে আমেরিকা সহ বিশ্বের অন্যান্য স্থানের কম্যুনিষ্টরা রিপাবলিকানদের সহায়তায় এগিয়ে এসেছিলো। তিন বছরের এ লড়াইয়ে দশ লক্ষ লোক প্রাণ হারিয়েছে এবং স্পেনের ইতিহাসে এটাই সবচেয়ে ভয়াবহ যুদ্ধ ছিলো।

১৯৩০ সালের এ দিনে তুরস্কের প্রাচীন শহর কন্টান্টিনোপেলের নাম পরিবর্তন করে ইস্তাম্বুল রাখা হয়। উত্তর পশ্চিম তুরস্কের অবস্থিত এ শহর দুই মহাদেশ ইউরোপ এবং এশিয়ার মধ্যে অবস্থিত। বিশ্বের আর কোনো শহর এ ভাবে দুই মহাদেশের মধ্যে অবস্থিত নয়। বসফরাস নামের ছোট একটা প্রণালীর মাধ্যমে কৃষ্ণ সাগর এবং মারমারা সাগরের মধ্যে সংযোগ রক্ষা করা হয়েছে। এই প্রণালীই ইউরোপ ও এশিয়ারকে বিভক্ত করেছে। তুরস্কের সবচেয়ে বড় শহর ইস্তাম্বুল দেশটির প্রধান বাণিজ্যিক এবং সাংস্কৃতিক কেন্দ্র হিসেবে বিবেচিত হয়। সপ্তদশ শতকে এই শহরের গোড়াপত্তন হয়েছিলো ।

১৯৭৯ সালের এ দিনে যুক্তরাষ্ট্রের পেনিসেলভিয়া অঙ্গরাজ্যের অবস্থিত থ্রি মাইল আইল্যান্ডের পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্রে দুঘর্টনা ঘটেছিলো। পরামাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্রকে শীতল রাখার যে ব্যবস্থা ছিলো তাতে ক্রটি দেখা দেয়। ফলে পরমাণু চুল্লীর অংশ বিশেষ গলে যায়। এই ব্যবস্থা পুনরায় কার্যকর করতে বেশ কয়েক দিন সময় লেগে যায়। এর মধ্য পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে তেজস্ক্রিয় পানি বাইরে চলে যায়। দুর্ঘটনার খবর দেরি করে জনগণকে জানানো হয়েছিলো। পরে গর্ভবতী নারীদেরকে থ্রি মাইল আইল্যান্ড ত্যাগ করতে বলা হয়েছিলো। তবে এ দুর্ঘটনার পর ওই বিদ্যুৎ কেন্দ্রের আশে পাশে ক্যান্সারের প্রকোপ বৃদ্ধি পেয়েছে একই সাথে বেড়েছে শিশু মৃত্যুর হার।

২০০১ সালের এ দিনে যুক্তরাষ্ট্রের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশ কিয়াটো প্রোটোকল থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থন প্রত্যাহার করে নেন। তার এ পদক্ষেপের ফলে সমগ্র বিশ্বের পরিবেশ সচেতন মানুষ প্রচন্ড ক্ষুব্ধ হয়েছিলো। বিশ্বের উষ্ণতা বৃদ্ধির ক্ষেত্রে গ্রীণ হাউজ গ্যাসের বিশেষ ভূমিকা আছে। এ গ্রীণ হাউজ গ্যাসের নির্গমন হ্রাস করার জন্য কিয়োটো প্রোটোকল নামের আর্ন্তজাতিক চুক্তি ১৯৯৭ সালে গ্রহণ করা হয়। উন্নত দেশগুলোর গ্রীণ হাউজ গ্যাসের নির্গমন বন্ধ করার জন্য সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য মাত্রা এতে নির্ধারণ করা হয়। বিশ্বের জলবায়ুর পরিবর্তন সংক্রান্ত জাতিসংঘের কনভেনশনের পরপুরক হিসেবে কিয়োটো প্রোটোকল বা চুক্তি করা হয়। কোয়োটো চুক্তি বাস্তবায়নে বেশ কয়েক বছর বিলম্ব হয়েছে। তবে শেষ পর্যন্ত ২০০৫ সালে এ চুক্তি বলবৎ হলেও বিশ্বের ১৩০টি দেশ এ পর্যন্ত এ চুক্তি স্বাক্ষর করলেও যুক্তরাষ্ট্র এখনো এ চুক্তি স্বাক্ষর করেনি। অথচ বিশ্বের সবচেয়ে বেশি গ্রীণ হাউস গ্যাসের নির্গমন ঘটে যুক্তরাষ্ট্রে। এখানে উল্লেখ্য যে ছয়টি প্রধান গ্রীণ হাউজ গ্যাসের মধ্যে তিনটি হলো কাবর্ন ডাই অক্সসাইড,মিথেন এবং নাইট্রাস অক্সাইড।

আইরিশ পার্লামেন্টে ইংল্যান্ডের সঙ্গে সংযুক্তি আইন অনুমোদন (১৮০০)
উর্দু ভাষায় প্রথম ভারতীয় সংবাদপত্র সাপ্তাহিক ‘জাম-ই-জাহান জুম্মা’ প্রকাশিত (১৮২২)
রাশিয়ার বিরুদ্ধে ফ্রান্স ও ব্রিটেনের যুদ্ধ ঘোষণা (১৮৫৪)
কনস্টানটি নোপলের নাম ইস্তাম্বুল ও আঙ্গোরার নাম আংকারা নির্ধারণ (১৯৩০)
স্পেনের জেনারেল ফ্লাঙ্কোর ক্ষমতা দখল (১৯৩১)
জাপান নানকিংয়ে চীন প্রজাতন্ত্রের পুতুল সরকার গঠন (১৯৩৮)
মাদ্রিদ জেনারেল ফ্রান্সিসকো ফ্রাঙ্কের বাহিনীর কাছে আত্মসমর্পণ এবং স্পেনের গৃহযুদ্ধের অবসান (১৯৩৯)
সুদান সেনাবাহিনীর অভ্যুত্থান ব্যর্থ। আলজেরিয়ায় ইউরোপীয় সিক্রেট আর্মি সংগঠন ফরাসি বাহিনীর বিরুদ্ধে সর্বাত্মক গেরিলা যুদ্ধ ঘোষণা (১৯৬২)
ইকুয়েডরে ভূমিকম্পে ৫০ জন নিহত (১৯৯৬)

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)