আপডেট আগস্ট ১৮, ২০১৮

ঢাকা রবিবার, ৫ কার্তিক, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ২০ সফর, ১৪৪১

জানতে হবে মানতে হবে, লিড নিউজ ঈদ যাত্রায় সচেতন ও সতর্ক থাকুন, এই সতর্কতায় আপনাকে নিরাপত্তা দেবে

ঈদ যাত্রায় সচেতন ও সতর্ক থাকুন, এই সতর্কতায় আপনাকে নিরাপত্তা দেবে

নিরাপদনিউজ : ঈদ মুসলমান ধর্মাবলম্বীদের বড় ধর্মীয় উৎসব। জীবিকার তাগিদে মানুষ কর্মস্থলে  অবস্থান করলেও প্রতি ঈদে শিকড়ের টানে ফেলে আসা আপনজনদের কাছে পেতে ছুটে যায় গ্রামে। তাই বিপুল সংখ্যক মানুষ একসাথে গন্তব্য যাওয়ায় সড়ক পথে মানুষের চাপ বাড়ে বহুগুনে ,ধারণ ক্ষমতার চেয়ে বহুগুণ যানবাহন ও যাত্রীর চাপ বাড়ায় অনেকটা নিয়ন্ত্রনহীন হয়ে পরে সড়ক ব্যবস্থা। স্বল্প সময়ে বিপুল সংখ্যক যাত্রীকে গন্তব্য পৌছাতে গিয়ে অসর্কতা ও অসচেতনতার কারণে দুর্ঘটনার ঘটছে ,যার কারণে বিপুল মানুষ এই সময়টিতে প্রাণ হারাচ্ছেন।শুধু মাত্র চালক ,মালিক ,শ্রমিকদের ও যাত্রীদের অসতর্কতা এবং অবহেলার কারনেই দুর্ঘটনা গুলি ঘটছে।  তাই আমাদের মূল্যবান প্রাণ বাঁচাতে প্রয়োজন সতর্কতা ও সচেনতা। সড়ক দুর্ঘটনা গুলোর কারণ খুঁজলে যে বিষয়গুলো আমাদের সামনে আসে তা হল :

১)চালকদের বেপরোয়া গাড়ি চালানোর মনোভাব বা অনিয়ন্ত্রিত গতি সড়ক দুর্ঘটনার অন্যতম কারণ অল্প সময়ে গন্তব্যে পৌঁছানোর প্রবণতা ,স্বল্প সময়ে অধিক ট্রিপ দেওয়ার প্রবণতার কারণে অনেক সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুর্ঘটনা ঘটিয়ে  থাকে। তাই অনিয়ন্ত্রিত গতিতে গাড়ি চালানো উচিত নয় ।

২) দূরযাত্রার ক্ষেত্রে চালকের বিশ্রাম না নেওয়া বা বিশ্রাম না নিয়ে একাধিক ট্রিপ দেওয়ার কারণে অনেক সময় ক্লান্ত পরিশ্রান্ত বা ঘুম ,ঘুম ,ভাব নিয়ে গাড়ী চালিয়ে থাকে যার কারণে একসময় নিজের উপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুর্ঘটনা ঘটায়। তাই চালকের সঠিক ঘুম ও বিশ্রাম অত্যান্ত জরুরী।

৩) অবৈধ ওভারটেকিং এর  কারণে দুর্ঘটনা ঘটিয়ে থাকে ,অনেক সময় স্বল্প গতির যানবাহনকে ওভারটেকিং এর প্রয়োজন পরে নিয়ম নীতি না মেনে ওভারটেকিং করতে গিয়ে মুখোমুখি সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। তাই সংশ্লিষ্ট গাড়ী কে সিগন্যাল দিয়ে সামনে দিক হতে কোনো গাড়ী আসছে কিনা নিচ্চিত হয়ে নিদিষ্ট দুরুত্ব বজায় রেখে ওভারটেকিং করতে হবে।

৪) ফিটনেস বিহীন গাড়ীর কারণে দুর্ঘটনা ঘটিয়ে থাকে গাড়ী চলন্ত অবস্থায় ব্রেক কাজ না করায় বা ইঞ্জিনের ত্রূটির কারণে দুর্ঘটনা ঘটায়।

৫)সড়কে ত্রূটিপূর্ণ বাকের কারণে সামনের দিক হতে আসা গাড়ী দেখতে না পাওয়ায় সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে থাকে এছাড়াও অনুমোদনহীন স্প্রীড ব্রেকার ,রাস্তার পাশে হাটবাজারের কারণে দুর্ঘটনা ঘটছে।

৬)ঈদের সময় অধিক সংখ্যক যাত্রী পরিবহনে যানবাহনের সংখ্যা বেড়ে যায়। তাই অধিক সংখ্যক ড্রাইভার প্রয়োজন পরে। তাই বাস মালিকগণ এই চাহিদা মেটাতে আধাদক্ষ ,অদক্ষ ড্রাইভার  নিযুক্ত করেন। তাদের মহাসড়কে গাড়ী চালানোর অভিজ্ঞতা না থাকায় ,নিয়মনীতি না জানায় দুর্ঘটনা ঘটায়।

৭)বাসের ছাদে বা ট্রাকে যাত্রী হয়ে যাওয়া উচিত নয় কারণ মুখোমুখি সংঘর্ষে বেঁচে থাকার সম্ববনা ক্ষীণ থাকে এছাড়াও সামান্য দুর্ঘটনাতে ছাদ থেকে ছিটকে পড়ে অধিক হতাহত হয়।

৮) ক্লান্তি দূর করার জন্য অনেক সময় চালকগণ মাদক গ্রহণ করে থাকে যার ফলে একসময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুর্ঘটনা ঘটায়।

৯) গাড়ি চালাতে গিয়ে চালকগণ  মোবাইল  ফোনে কথা বলার কারণে  মনোযোগের ব্যাঘাত ঘটে যার ফলে দুর্ঘটনা ঘটায়। তাই গাড়ি চালানোর সময় মোবাইলে কথা বলা পরিহার করা উচিত।

তাই ঈদ যাত্রায় সচেতন ও সতর্ক থাকুন এই সতর্কতায় আপনাকে নিরাপত্তা দেবে।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)