ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ৩ মিনিট ৪০ সেকেন্ড

ঢাকা শনিবার, ৯ আষাঢ়, ১৪২৫ , বর্ষাকাল, ৮ শাওয়াল, ১৪৩৯

জানতে হবে মানতে হবে, লিড নিউজ ঈদ যাত্রা নিরাপদ হোক, মেনে চলুন কিছু পরামর্শ…

ঈদ যাত্রা নিরাপদ হোক, মেনে চলুন কিছু পরামর্শ…

ফারজানা ইয়াসমিন রুম্পা,  নিরাপদনিউজ : ঘনিয়ে আসছে ঈদ। ক্রমশই বাড়ছে ঘরমুখো মানুষের ভিড়।প্রতি বছর প্রিয়জনদের সাথে একসাথে ঈদ উৎসব পালন করতে ঘরমুখী মানুষের উপচে পড়া ভিড় দেখা যায় যানবাহন গুলোতে। দুর্ঘটনার স্বীকার হয়ে অকাল মৃত্যুতে হয়তো কারো আর ঈদের আনন্দ করা হয়ে ওঠেনা। কত ভাই হারা, বোন হারা, মা-বাবা হারা পরিবার গুলোর করুণ অার্তনাদে ভারী হয়ে ওঠে আকাশ বাতাস। অমানিশার ঘোর অন্ধকার নেমে আসে পরিবার গুলোতে।

ট্রেন, বাস ও লঞ্চে মাত্রাতিরিক্ত যাত্রী বোঝাই এসব দুর্ঘটনার অন্যতম কারন। এ সুযোগে এক শ্রেণীর পরিবহন মালিক তাদের আনফিট ও লক্কর-জক্কর যানবাহন গুলোর বাহ্যিক চেহারা রং লাগিয়ে পরিপাটি করে যাত্রীদের কাছে অাকর্ষনীয় করে তোলে। এ ধরনের যানবাহন সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ।

সরকারের কঠোর মনিটরিং ও জনগণের সচেতনতাই এসব দুর্ঘটনা রোধ করা সম্ভব। জণগণকে মনে রাখতে হবে, একটি দুর্ঘটনা মানেই সারা জীবনের কান্না। সময়ের চেয়ে জীবনের মূল্য অনেক। তাই নিরাপদ ভ্রমণের জন্য আমাকে আপনাকে আরো অধিক সচেতন হতে হবে।

আপনার যাত্রা সাবলীল ও নিরাপদ করতে  কিছু দিকনির্দেশনা তুলে ধরা হলো। আশা করি সকলের উপকারে আসবে।

গাড়ির টিকিট
টিকিট কাটার কাজটি সবারই সম্পন্ন হওয়ার কথা। বাস, ট্রেন বা বিমান—যেটাতেই যান না কেন প্রস্তুতি থাকা চাই। ঈদের সময় টিকিট তো সোনার হরিণ হয়ে যায়। এ ক্ষেত্রে প্রথম কাজ হলো হরিণটাকে যত্নে রাখা। যেখানে-সেখানে ভাঁজ করে রাখবেন না। একটা নির্দিষ্ট স্থানে রেখে নিন। এটা যেন পানিতে না ভেজে এবং কুঁচকে না যায়।

দিন অনুযায়ী প্রস্তুতি
বাড়িতে কত দিন থাকবেন তার ওপর নির্ভর করবে আপনি কী কী নিচ্ছেন। অযথা বেশি পোশাক নিয়ে ব্যাগ ভারী করার দরকার নেই। আপনজনদের জন্য ঈদের জিনিসপত্র নিলে সেগুলো অবশ্যই আলাদা ব্যাগে রাখতে হবে। কিংবা সব ব্যাগ রাখতে হবে একসঙ্গে কিংবা একটি ব্যাগে। বাচ্চা থাকলে তার খাবার সঙ্গেই রাখতে হবে। আর বয়স্ক কোনো মানুষ থাকলে তাঁর বিশেষ খাবার ও ওষুধপথ্যের ক্ষেত্রেও একই পরামর্শ।

কিছু ওষুধ
হঠাৎ অসুস্থতা বা শারীরিক অসুবিধা ঘটতেই পারে। এ জন্য কিছু ওষুধপথ্য এমনিতেই সঙ্গে রাখতে হয়। গ্যাস্ট্রিক, মাথাব্যথা বা পেট খারাপের ওষুধগুলো ভ্রমণকালে এমনিতেই ব্যাগে থাকা দরকার। নারীদের পিরিয়ড চলতে থাকলে বাড়তি স্যানিটারি ন্যাপকিন নিয়ে নিন।

সাবধানতা
ভ্রমণের সময়ে কিছু সাবধানতার বিষয় আছে। মলম পার্টি বা অজ্ঞান পার্টির মতো হুমকির কথা সবাই জানে। কাজেই অপরিচিত কারো দেওয়া কোনো খাবার কোনো অবস্থায়ই খাবেন না। যে পথে বাড়িতে যাবেন সেই পথে কোনো আত্মীয়-স্বজন থাকলে তাদের নম্বরটা মোবাইলে সেভ করে রাখুন। আর সহায়তার জন্যে ৯৯৯ নম্বরটি তো আছেই। ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় কোনো যানবাহনে ভ্রমণ করবেন না।

হালকা থাকুন
ভ্রমণে যতটা পারেন হালকা-পাতলা থাকবেন। অর্থাৎ অপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র নিয়ে ব্যাগের সংখ্যা বাড়াবেন না। এতে আপনারই কষ্ট। যানজটের কথা মাথায় রেখে বাসা থেকে একটু আগেভাগে বের হবেন।

*পরিবারের সকল সদস্য বিশেষ করে ছোট বাচ্চাদের হাতের নাগালে রাখুন। প্রয়োজনীয় ব্যাগ ও মালামাল নিজ দায়িত্বে রাখুন।

আপনার নিরাপদ ভ্রমন আমাদের একান্ত কাম্য।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)