ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ১৯ মিনিট ৩০ সেকেন্ড

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ , হেমন্তকাল, ৫ রবিউস-সানি, ১৪৪০

রাজশাহী, সড়ক সংবাদ উড়াল সেতু নয় যেন মৃত্যু ফাঁদ!

উড়াল সেতু নয় যেন মৃত্যু ফাঁদ!

উড়াল সেতু নয় যেন মৃত্যু ফাঁদ

সাইদুজ্জামান সাগর, নিরাপদ নিউজ : নওগাঁর রাণীনগর রেলওয়ে ষ্টেশন সংলগ্ন উড়াল সেতুটি যাত্রী ও সর্ব সাধারণের যাওয়া-আসার সুবিধার্থে নিমার্ণ করা হলেও সুবিধা ভোগের পাশাপাশি সেতুটি যেন মৃত্যু ফাঁদে পরিণিত হয়েছে। ট্রেন গুলো নির্ধারিত গতিতে চলাচলের জন্য সময়ের প্রয়োজনে রেললাইন মাঝে মাঝে সংস্কার করায় রেলের পাটাতনের উচ্চতা কিছুটা বৃদ্ধি হলেও উড়াল সেতুটি আগের মত থাকার কারণে অবৈধ ভাবে ট্রেনের ছাদে ভ্রমণকারী যাত্রীরা অসাবধানতা বসত প্রায়ই উড়াল সেতুর রেলিং এর সাথে ধাক্কা লেগে গুরুত্বর আহত সহ নিহতের ঘটনা অহরহ ঘটছে। প্রতি বছরই মৃত্যুর সংখ্যা বৃদ্ধি পেলেও রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের নজরদারীর অভাবে সেতুর রেলিং এর সাথে ধাক্কা লেগে নিহতদের তালিকা ভারী হচ্ছে।

মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব সহ বিভিন্ন পূজা-পার্বনে রেলের যাত্রী বৃদ্ধি পাওয়ায় এক শ্রেণীর যাত্রীরা অনেকটা বাধ্য হয়েই ট্রেনের ছাদে চড়ে নির্ধারিত গন্তব্যে যাওয়ার চেষ্টা করে। দিনাজপুর, সৈয়দপুর, চিলাহাটী, পার্বতীপুর, নিলফামারী, সান্তাহার সহ উত্তর জনপদের বিভিন্ন রেলওয়ে ষ্টেশন থেকে ঈশ্বরদী, যশোর, খুলনা, যমুনা সেতু পাড় হয়ে রাজধানী ঢাকা পর্যন্ত দিন রাতে আন্ত:নগর ও মেইল ট্রেন সহ প্রায় ১১ টি ট্রেন নিয়মিত রাণীনগর রেলওয়ে ষ্টেশন হয়ে চলাচল করে। রেলওয়ের পশ্চিম অঞ্চলে ষ্টেশনের ক্যাটাগরি মোতাবেক অধিকাংশ স্থানে উড়াল সেতু আছে সেই সব সেতুর সাথে ধাক্কা লেগে প্রাণহানীর ঘটনা কম-বেশি থাকলেও রাণীনগর রেল ষ্টেশনে স্থাপিত উড়াল সেতুর রেলিং এর সাথে ধাক্কা খেয়ে ট্রেনের ছাদে ভ্রমণ করা যাত্রীদের প্রতি মাসেই প্রায় আহত-নিহতর ঘটনা লেগেই আছে।

বগুড়া জেলার সান্তাহার রেলওয়ে জংশনে কর্মরত এক কর্মকর্তা জানান, যদিও ট্রেনের ছাদে ভ্রমণ করা বাংলাদেশ রেলওয়ে আইনে দন্ডনীয় অপরাধ। ছাদে ভ্রমণে যাত্রীদের আমরা বারবার নিষেধ করলেও এক শ্রেণীর যাত্রীরা না মানার কারণে রাণীনগরের উড়াল সেতুর সাথে ধাক্কা খেয়ে প্রাণহানীর মত ঘটনা বেরেই চলেছে। বিট্রিশ আমলে নির্মিত রেলগুলো সময়ের প্রয়োজনে নতুন করে নির্মাণ কিংবা সংস্কার করায় পাটাতনের উচ্চতা কিছুটা বৃদ্ধি হওয়ার ফলে উড়াল সেতুর রেলিং এর সাথে অসাবধানতা বসত ছাদে ভ্রমণ যাত্রীদের দূর্ঘটনার শিকার হতে হয়। তবে তার দাবি, রাণীনগরে রেললাইন থেকে উড়াল সেতুর উচ্চতা মাপ মোতাবেক ১৫ ফিট ৩ ইঞ্চি এবং ট্রেনের উচ্চতা ১৩ ফিট ৬ ইঞ্চি ঠিক আছে। কিন্তু ট্রেনের ছাদে যাত্রীরা যখন বাধ্য হয়ে ভ্রমণ করে তখন উড়াল সেতুর রেলিং এর সাথে ধাক্কা লেগে প্রায়ই মর্মাতিœক দূর্ঘটনা ঘটে। সম্প্রতি রাণীনগর রেল ষ্টেশন বন্ধ হয়ে যাওয়ায় কর্মরত ষ্টেশন মাষ্টার না থাকায় নজরদারী কমে যাওয়ায় দূর্ঘটনার মাত্রা বেড়েই চলছে। গত ফেব্রুয়ারী মাসে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা দিনাজপুর গামী দ্রুতযান আন্ত:নগর ট্রেনের ছাদে ভ্রমণরত যাত্রীদের মধ্যে ৭ জন যাত্রী উড়াল সেতুর সাথে ধাক্কা খেয়ে নিচে পড়ে গিয়ে ঘটনাস্থলেই ৪ জন যাত্রী মারা যায় এবং আরো ৩ জন গুরুত্বর আহত হয়। আহতদের মধ্যে আরো একজন যাত্রী রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঘটনার পরেদিন মারা যায়। রাণীনগরে ৫ জন যাত্রী মারা যাওয়ার পর রেল বিভাগের উর্ধতন কর্তৃপক্ষ ঘটনাস্থল পরিদর্শনে এসে মৃত্যু ফাঁদ এই উড়াল সেতু সংস্কারের আশ্বাস দিলেও প্রায় ২০ দিন অতিবাহিত হলেও রেল কর্তৃপক্ষ উড়াল সেতু সংস্কারের দৃশ্যমান কোন অগ্রগতি নজরে আনতে পাড়েনি। অনতিবিলম্বে এই উড়াল সেতুর সংস্কারের কাজ সম্পূর্ণ করার দাবি জানান এলাকাবাসি।

নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)’র রাণীনগর উপজেলা শাখার সভাপতি সাইদুজ্জামান সাগর জানান, রাণীনগর রেল ষ্টেশনের উড়াল সেতুর রেলিং এর সাথে ধাক্কা লেগে ট্রেনের ছাদে ভ্রমণ যাত্রীদের আহত-নিহতর ঘটনা প্রায়ই ঘটছে। যদিও ট্রেনের ছাদে ভ্রমণ করা বাংলাদেশ রেলওয়ে আইনে দন্ডনীয় অপরাধ। বিভিন্ন ধর্মীয় উৎসবের ছুটিতে ও ছুটি শেষে রেলের যাত্রী বৃদ্ধি পাই, তখন যাত্রীরা অনেকটা বাধ্য হয়েই ট্রেনের ছাদে চড়ে নির্ধারিত গন্তব্যে যাওয়ার চেষ্টা করে। আর তখনি সেতুটি মৃত্যু ফাঁদে পরিণিত হয়। মর্মান্তিক এসব দূর্ঘটনা রোধে, রেল যাত্রী ও এলাকার সর্ব সাধারণের স্বার্থে এই উড়াল সেতুটি দ্রুত সংস্কারের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান তিনি।

এব্যাপারে পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ে পরিবহন কর্মকর্তা (ডিটিও) মো: শওকত জামিল জানান, গত ২১ ফেব্রুয়ারী রাতে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা দিনাজপুর গামী দ্রুতযান আন্ত:নগর ট্রেনের ছাদে ভ্রমণকারী যাত্রী রাণীনগর উড়াল সেতুর রেলিং এর সাথে ধাক্কা খেয়ে ৫ জন নিহত ও ২ জন গুরুত্বর জখমের খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করি। সেতুটি সংস্কারের জন্য কমিটির সুপারিশ মোতাবেক রেলওয়ের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের বরাবরে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রেরণ করা হয়েছে। অনুমোদন স্বাপেক্ষে সেতুটির সংস্কার কাজ শুরু করা হবে।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)