আপডেট ৩৮ মিনিট ১৩ সেকেন্ড

ঢাকা শনিবার, ৬ শ্রাবণ, ১৪২৫ , বর্ষাকাল, ৭ জিলক্বদ, ১৪৩৯

মতামত, লিড নিউজ ‘একটুর জন্য আমার ক্ষতি হয়নি’: ওদের ফাঁদে আপনিও পা দেননি তো…?

‘একটুর জন্য আমার ক্ষতি হয়নি’: ওদের ফাঁদে আপনিও পা দেননি তো…?

ফেসবুকে প্রতারনার এক নতুন কৌশল!

এনএসসি-সোহাগ, নিরাপদ নিউজ : ফেসবুকে প্রতারনার এক নতুন কৌশল! যা শুনে অবাক হবেন আপনি। সম্প্রতি সোনিয়া নামে এক ফেসবুক ব্যবহারকারী নতুন এই প্রতারনার শিকার। সোনিয়া নিরাপদ নিউজকে জানালেন তার সাথে ঘটে যাওয়া প্রতারনার ঘটনাটি কিভাবে ঘটেছে। সোনিয়া নিরাপদদ নিউজকে জানান, তিনি গত পনেরো দিন আগে তার ফেসবুকে জ্যাকসন নামে এক বিদেশী যুবকের ফেন্ড রিকুয়েষ্ট পায় এরপর তাদের বন্ধুত্ব হয়। প্রতিদিন সুন্দর সুন্দর মেসেজ আদান প্রদান চলতে থাকে তাদের, এভাবেই ফেসবুকে দুজনের মাঝে বেশ বন্ধুত্ব জমে ওঠে। একদিন জ্যাকসন সোনিয়াকে জানান সে কখনো বাংলাদেশ দেখেনি তবে বাংলাদেশ তার কাছে অনেক ভালো লাগে। জ্যাকসন থাকে লন্ডনে সোনিয়াকে সে এ কথাই জানিয়েছিলেন। মাঝে মাঝে জ্যাকসন তার বিদেশে অবস্থানরত ছবি এবং তার পরিবারের সাথে তোলা বিভিন্ন ছবিও সোনিয়াকে পাঠায় তাতে করে সোনিয়ার মনে বিশ্বাস জন্ম নেয় জ্যাকসন নিশ্চয় বিদেশের যুবক।

তাছাড়া জ্যাকসন কখনো সোনিয়ার সাথে খারাপ আচরন করেনি সবসময় সন্মানের সাথে মেসেজ আদান প্রদান করেছে তাকে। এক সময় জ্যাকসন সোনিয়াকে জানায়, তার জন্মদিন কবে সে জন্মদিনের গিফ্ট পাঠাতে চায় । জ্যাকসন এও বলে সামনে ঈদে সে বাংলাদেশে তাদের বাড়িতে বেড়াতে আসবে। সোনিয়া সবকিছু বিশ্বাস করতে থাকেন এবং সে তার জন্মদিনের কথা তাকে জানান। জন্মদিনের তারিখ অনুযায়ী জ্যকসন তাকে গিফ্ট পাঠনোর জন্য প্রস্তুতি নেয়। একদিন জ্যকসন সোনিয়াকে জানায় সে মার্কেটে যাচ্ছে তার জন্য উপহাড় কিনতে সে যেন তার বাড়ির ঠিকানাটা তাকে দেয়। এরপর সে ফেসবুকে মেসেজে লেপটপ, আইফোন, গোল্ডের গহনা, হাত ব্যগ, বিভিন্ন গিফ্ট এর ছবি দেখাতে থাকে এবং বড় একটি প্যাকেট দেখিয়ে বলে এই ব্যাগের ভেতর সব আছে আমি এক্ষনি পাঠিয়ে দিচ্ছি।

সোনিয়াকে জ্যকসন এও জানান ব্যাগের ভেতর ৩০০ডলার রাখা আছে এটা তোমার হাত খরচের জন্য পাঠালাম। এতকিছু স্বপ্নের মতো মনে হতে লাগলো সোনিয়ার কাছে। জ্যাকসন কেন এতকিছু তাকে পাঠাচ্ছে! সেকি পাগল! নাকি বিদেশে থাকে বলে প্রচুর টাকার মালিক এরা এজন্য তার কাছে এগুলো কিছুই মনে হচ্ছেনা। সোনিয়া চিন্তায় পড়ে যায়। জ্যাকসন বারবার বলে বন্ধু তুমি চিন্তা করোনা আমার এখানে টাকার অভাব নেই এটা প্রথমবার পাঠালাম এরপর আরও অনেক কিছু পাঠাাবো। তুমি অপেক্ষা করো ২দিনের ভেতরেই তোমার কাছে কুরিয়ার পৌছে যাবে।

সোনিয়া তার কথায় কোন প্রতারনার গন্ধ পায়নি কখনো। কারণ জ্যাকসনতো কিছু চাচ্ছেনা সোনিয়ার কাছ থেকে । সে শুধু দিয়েই যেতে চাচ্ছে কেন প্রতারনা হবে এটা! সোনিয়া এরপরও টেনশনে থাকে আসলে কি ঘটতে যাচ্ছে সত্যি কি এতকিছু জ্যাকসন তার জন্য পাঠিয়েছে। সব জল্পনা কল্পনা শেষে পাঠানোর ২দিন পর সোনিয়ার কাছে একটি ফোন আসে তারা পরিচয় দেয় চট্টগ্রাম থেকে বলছি। আপনার কুরিয়ার এসেছে এটি পৌছে দেবার জন্য আপনাকে চার্জ দিতে হবে মাত্র ৪০হাজার টাকা।

সোনিয়া ভাবতে থাকে একা একা । জ্যাকসন যতগুলো জিনিষ পাঠিয়েছে সব মিলিয়ে প্রায় ৩লাখ টাকার মতো হবে। এতগুলো দামি জিনিস নিতে গিয়ে যদি ৪০হাজার টাকা যায় তাতে ক্ষতি কি! এরপর সে তার বাড়িতে সব কিছু জানায়। কিন্তু বাড়ির মানুষ তার মতো ভুল কাজটি করেননি। তারা ভেবে চিন্তে সিদ্ধান্ত নেন এটি আসলে কোন প্রতারনার চক্র। তারা সোনিয়াকে বোঝায় যে ছেলে এত লাখ টাকার জিনিস পাঠাতে পারে সে কুরিয়ার চার্জ দিতে পারলো না। সোনিয়া তখন জ্যকসনকে জানায় তার কাছে এত টাকা নেই তখন জ্যকসন বলে তাহলে ১০হাজার টাকা দাও। তখনি সন্দেহ আরো গভীর হয়। নিশ্চয় প্রতারক এরা। ফাঁদ পেতে ৪০হাজার টাকা আত্মসাধ করতে চেয়েছিলো শেষে ১০ হাজার টাকার ফাঁদ পেতেছে। তখন সোনিয়া জ্যকসনকে তার সন্দেহর কথা জানালে জ্যকসন বাই বলে ফেসবুক থেকে তাকে রিমুভ করে দেয়। এখন আর জ্যকসন কে সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে কোথাও খুজে পাওয়া যাচ্ছেনা। সব ঘটনা এখন সোনিয়ার কাছে পরিস্কার সে বড় ধরনের প্রতারকের পাল্লায় পড়েছিলেন।

এই ঘটনা থেকে সে শিক্ষাগ্রহন করে নিরাপদ নিউজকে সব ঘটনা খুলে জানান এবং সকলকে এমন প্রতারকদের থেকে সাবধান হবার অনুরোধ করেন।
এই লেখাটি ফেসবুক ব্যবহারকারী সকলের জন্য একটি সতর্ক বার্তা। হয়তো এমন প্রতারনার ফাঁদে আপনিও পা দিয়ে বসে আছেন! অবাক হবার কিছু নেই। আপনাদের সম্পূন্য ঘটনাটি জানিয়ে দেয়া হলো আশা করি এমন ঘটনা আপনার সাথে ঘটলে আপনি এবার আগেই প্রতারকের কৌশলটি ধরে ফেলতে পারবেন। ফেসবুক প্রতারনা বন্ধে আমাদের সকলের সচেতনতা প্রয়োজন। এসব নিত্য নতুন প্রতারনার কৌশল থেকে মুক্তি পেতে লোভ সংবরন করুন, সতর্ক হোন, নিজের উপস্থিত বুদ্ধি প্রয়োগ করুন। নিজে সচেতন হোন, অন্যকেও সতর্ক করুন।

জনস্বার্থে পোস্টটি শেয়ার করুন। বন্ধুবান্ধব আত্মীয় স্বজন সবাইকে অবগত করুন।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)