ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ২৩ মিনিট ৫৪ সেকেন্ড

ঢাকা মঙ্গলবার, ১ কার্তিক, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ১৬ সফর, ১৪৪১

বিনোদন, সাক্ষাৎকার এক যুগ আগেই চলচ্চিত্রে অনীহা চলে এসেছে- ববিতা

এক যুগ আগেই চলচ্চিত্রে অনীহা চলে এসেছে- ববিতা

এক যুগ আগেই চলচ্চিত্রের অনীহা চলে এসেছে- একসমেয়র ড্রীমগার্ল ববিতা

নাসিম রুমি, ২৫ মে ২০১৭, নিরাপদ নিউজ : ষাট দশকের শেষের দিকে ববিতা নায়িকা হয়ে আত্নপ্রকাশ করেন। তার মুক্তি প্রাপ্ত ছবির সংখ্যা প্রায় চারশত। ভাল অভিনয়ের জন্য তিনি একাধিকবার জাতীয় এবং বাচসাস পুরষ্কার অর্জন করেন। তিনি শুধু একজন অতি জনপ্রিয় নায়িকাই ছিলেননা। প্রযোজকও ছিলেন। তবে ববিতা প্রযোজক হয়ে সফলতা অর্জন করতে পারেনি। প্রয়াত সত্যজিৎ রায়ের ”অংশনি সংকেত”ছবিতে অভিনয় করে, দেশে এবং বিদেশে সুনাম অর্জন করেন। ববিতা সত্যিই একজন গুনী অভিনেত্রী। আমার সঙ্গে তার পরিবারিক সম্পর্ক বিদ্যমান। গত ৫ মে শিল্পীসমিতির নির্বাচনে প্রযোজক সমিতির কক্ষে তার সঙ্গে কথা হয় তা পাঠকদের উদ্দেশে তুলে ধরা হল।

প্রশ্ন: আপনে পবিত্র হজ্ব পালন করার পর এই প্রতিবেদকে কথা প্রসঙ্গে বলেছিলেন চলচ্চিত্রে আর অভিনয় করবেন না। কিন্ত জানা যায় নতুন একটি ছবিতে অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন।
উত্তর: সত্যি কথা বলতে কি হজ্ব পালন করার পর দুই বছর পর্যন্ত আমি নতুন কোন ছবিতে অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়নি। এখনো চুক্তিবদ্ধ হইনি। তবে আমার অভিনীত চরিত্রটি বেশ গুরুত্বপূর্ণ। তাই ইচ্ছে আছে হয়তো বা সেই ছবিতে অভিনয় করতে পারি। এখনো চুড়ান্ত কিছু হয়নি।

প্রশ্ন: ছবির নাম কি?
উত্তর: ছবির নাম এখনো নির্মাতারা ঠিক করেনি। তবে শুনেছি ছবির নায়ক শাকিব খান আর নায়িকা বুবলি।
প্রশ্ন: ছবিটি কি জাজ মিডিয়া নির্মান করবে?
উত্তর: না।

নিরাপদ নিউজের সিনিয়র রিপোর্টার নাসিম রুমির সঙ্গে ববিতা

প্রশ্ন: তাহলে ছবির পরিচালক ও প্রযোজক কে?
উত্তর: ছবিতে যখন চুক্তিবদ্ধ হব তখন পরিচালক ও প্রযোজকের নাম জানাবো। চার মাস যাবত তো ওরা কোন যোগাযোগ করছে না। তাই ভাবছি ছবিতে অভিনয় করবো কিনা? সত্যি কথা বলতে কি ষাট, সত্তর, আশি ও নব্বই দশকের মত চলচিত্র এখন খুবই নগন্য নির্মান হচ্ছে। যা আমাদের মত সিনিয়র শিল্পীদের কদর এখনকার নির্মাতাদের কাছে নেই।
প্রশ্ন: অতীতে অনেক ব্যস্ত ছিলেন। এখন চলচ্চিত্রে ব্যস্ততা একেবারেই নেই এ প্রসঙ্গে কিছু বলুন?
উত্তর: একেবারেই খারাপ লাগে না। কারন এক যুগ আগেই আমার অভিনয়ের প্রতি অনীহা চলে এসেছে। তাছাড়া আমরা যারা সিনিয়র শিল্পী রয়েছি একাধিকবার জাতীয় পুরুষ্কার সহ বাচসাস পুরুষ্কার অর্জন করেছি তাদের কি এসময়ের নির্মাতারা মূল্যায়ন করছেন? আমাদের যদি মূল্যায়ন করতো তাহলে চলচ্ছিত্রের এমন মন্দ দশা হোতনা। অবশ্য এর জন্য একক ভাবে কাউকে দায়ী করছিনা। দেখুন আজকে শিল্পী সমিতির ভোট দিতে এসেছি, পুরানো সকলের সঙ্গে দেখা হলো। খুব ভাল লাগছে। আমার যে এখনো অসংখ্য ভক্ত রয়েছে তা তো আপনারা দেখতেই পাচ্ছেন।
প্রশ্ন: শাবানা চলচিত্রে দেড় যুগেরও অধিক সময় যাবত নেই। কবরী ও চলচ্চিত্রে নিয়মিত নন। আপনিও তাই। আপনারা তিন জনই অত্যন্ত গুনী শিল্পী। চলচিত্রের উন্নয়নের জন্য পদক্ষেপ নেন।
উত্তর: যতদিন বেঁচে আছি চলচ্চিত্রকে মনে প্রাণে ভালবেসে যাব। কারন আমার যা-যা অর্জন তা সব কিছুই চলচ্চিত্র থেকে। চলচ্চিত্রে এমন নাজুক পরিস্থিতি সত্যিই আমাকে কষ্ট দেয়। কিন্ত আমার ক্ষমতা তো সীমাবদ্ধ। সরকারকে সবচেয়ে আগে উদার হতে হবে। আর আমরা যারা সিনিয়র শিল্পী রয়েছি তাদের ও দায়িত্ব রয়েছে চলচ্চিত্রের উন্নয়নের জন্য। আমার দৃঢ বিশ্বাস শিল্পীসমিতির নির্বাচনে আমার পছন্দের পরিষদটি যদি জয়ী হতে পারে তাহলে চলচ্চিত্রের কল্যাণ হবে।
প্রশ্নঃ আপনার পছন্দের পরিষদ কোনটি?

মুক্তিপ্রাপ্ত ‌’প্রেমিক’ ছবিতে প্রয়াত জাফর ইকবালের সঙ্গে ববিতা

উত্তরঃ তা বলা যাবে না। তবে আমি আমার পছন্দের পরিষদের সবাইকে ভোট প্রয়োগ করিনি তা সত্য।
প্রশ্নঃ আগামী নির্বাচনে আপনি সভাপতি প্রার্থী হবেন কি?
ববিতাঃ অসম্ভব শিল্পী সমিতির দায়িত্ব পালন করার ক্ষমতা এবং সাহস কোনটাই আমার মাঝে বিদ্যমান নেই। তাছাড়া আমার শরীরটা গত কয়েক বছর যাবত ভাল যাচ্ছে না। হঠাৎ আমার উদ্দেশ্যে তিনি বললেন আপনি তো খুবই সুদর্শন ও স্মার্ট ছিলেন প্রয়াত জাফর ইকবালকে অনুশরন করতেন। তার সঙ্গে আপনার খুবই ভাল সম্পর্ক ছিল। এখন আপনার শরীর ভেঙ্গে গেছে। সোন্দর্য্যও হ্রাস পেয়েছে। প্রতি উত্তরে বললাম এখন আমি যুবক নই, বয়স হয়েছে। ববিতা চলে যাওয়ার জন্য ব্যাকুল হয়ে উঠলেন তাই তার সঙ্গে আর বেশি কথা বলা সম্ভব হলো না। বললেন ফোন করে বাসাই আসবেন আমি আমার পূর্বের গুলশান বাসায় চলে এসেছি। চলার পথেই সব শেষ প্রশ্নটি করলাম প্রয়াত জাফর ইকবালের কথা ¯œরন হয় কি? উত্তরে বললেন শুধু জাফর কেন? চলচ্চিত্রের আমার সহকর্মী যাহারা ইন্তেকাল করেছে তাদের সবার কথা মনে পড়ে এবং তাদের সবার জন্য দোয়া করি।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)