ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ৩৮ সেকেন্ড

ঢাকা রবিবার, ১ আশ্বিন, ১৪২৬ , শরৎকাল, ১৬ মুহাররম, ১৪৪১

রংপুর, লিড নিউজ এরশাদের ‘পল্লী নিবাসে’ কান্নায় ভেঙে পড়লেন রওশন এরশাদ

এরশাদের ‘পল্লী নিবাসে’ কান্নায় ভেঙে পড়লেন রওশন এরশাদ

নিরাপদ নিউজ: জাতীয় পার্টির প্রয়াত চেয়ারম্যান হুসেইন মোহাম্মদ এরশাদের কুলখানি ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ শনিবার দুপুরে রংপুরে এরশাদের ‘পল্লী নিবাসে’ এ দোয়া মাহফিলে ও কুলখানির আয়োজন করা হয়।

দোয়া মাহফিল ও কুলখানিতে উপস্থিত ছিলেন জাপার সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপনেতা রওশন এরশাদ। সেখানে এরশাদের কবর জিয়ারত করতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি। কুলখানিতে রওশনের কান্নায় আবেগঘন এক পরিবেশের সৃষ্টি হয়। এ সময় তাকে সান্ত্বনা দেন জাপা মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা।

দোয়া মাহফিলে জাপার মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা বলেন, ‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টি ও আওয়ামী লীগ এক ছিল। জোটবদ্ধ থেকে নির্বাচন করেছি আমরা। আশা করি, রংপুর-৩ আসনের উপনির্বাচনও জোটগতভাবে হবে।  এই আসন থেকে উনি (এরশাদ) সব সময় বেশি ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। ’

আওয়ামী লীগকে উদ্দেশ্য করে রাঙ্গা বলেন, ‘এই আসনটি জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের আসন। তাই আওয়ামী লীগের কাছে আমরা আশা করি, এখানে প্রার্থী না দিয়ে আওয়ামী লীগ আমাদের সহায়তা করবে। এটা জনগণের কাছে দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।’

দোয়া মাহফিলে জাতীয় পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান ও সংসদের বিরাধী দলীয় উপনেতা বেগম রওশন এরশাদ উপস্থিত থাকলেও কোনো মন্তব্য করেননি।  এরশাদের মৃত্যুর পর রংপুরে প্রথমবার এলেও তিনি সাংবাদিকদের মুখোমুখি হননি।

দোয়া মাহফিলে আরও উপস্থিত ছিলেন এরশাদের ছেলে রাহগীর আল মাহি সাদ এরশাদ, কেন্দ্রীয় নেতা ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, রুহুল আমিন হাওলাদার, জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, রংপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফাসহ জাতীয় পার্টি ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা।

উল্লেখ্য, গত ১৪ জুলাই ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাপার চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। এরশাদের মৃত্যুতে রংপুর সদর আসনটি শূন্য ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)