আপডেট ৫২ মিনিট ৩৮ সেকেন্ড

ঢাকা মঙ্গলবার, ২ আশ্বিন, ১৪২৬ , শরৎকাল, ১৭ মুহাররম, ১৪৪১

ভ্রমন ওড়িষ্যার চাঁদিপুর নির্জন সৈকত

ওড়িষ্যার চাঁদিপুর নির্জন সৈকত

ওড়িষ্যা থেকে ফিরে

নাসিম রুমি, ১১ জুলাই ২০১৯, নিরাপদ নিউজ : ওড়িষ্যার চাঁদিপুর নির্জন সৈকতে সর্ব প্রথম আমি এবং আমার প্রিয়জনদের নিয়ে ২০০০ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে ভ্রমন করি। চাঁদিপুর থেকে ৫৪ কিঃমি দূরে অবস্থিত পাহাড় আর একাধিক ছোট-ছোট র্ঝনা নিয়ে পঞ্চলিঙ্গশ্বরও সফর করেছিলাম। চাঁদিপুরে আমার অনেক স্মৃতি জড়িয়ে রয়েছে। পুনরায় গত ০৪/০৭/২০১৯ চাঁদিপুর সফর করি।

চাঁদিপুর সৈকত

চাঁদিপুর সৈকতে এখানে দিনে দুবার সমুদ্র সরে যায় বহুদূরে ৫ কিলোমিটার বা তারও বেশি। আবার ছুটে আসে পাড়ের কাছে। কেয়া কাজু আর ঝাউয়ের অন্যন্য শোভায় সুন্দরী চাঁদিপুর। এখানে সূর্যোদয় এবং সূর্যাস্ত দুই মনোরম। চাঁদিপুর থেকে ৩ কিলোমিটার দূরে বলরামগড়ি। বঙ্গোপসাগর মিলিত হয়েছে বুড়িবালাম নদীর সঙ্গে। চাঁদিপুর ক্যান্টনমেন্ট এলাকা। এখানে প্রতিনিয়ত অস্ত্রশস্ত্রের পরীক্ষা – নিরীক্ষা চলছে। বহুদূর থেকে তার শব্দ আর অলোর ঝলসানি দেখা যায়।

চাঁদিপুর পান্থনিবাস হোটেল

চাঁদিপুরের থেকে ১৬ কিলোমিটার দূরে বালেশ্বর। বালেশ্বরের আশপাশে কতকগুলো দর্শনীয় জায়গা আছে যা বালেশ্বরে বা চাঁদিপুর থেকে ঘুরে নেওয়া যায়। অটো বা প্রাইভেট গাড়ি ভাড়া পাবেন বালেশ্বরে ষ্টেশনের কাছেই অথবা চাঁদিপুর থেকে। পঞ্চলিঙ্গশ্বর থেকে ৫২ কিলোমিটার দুরে দৃষ্টিদন্দন দেবকুন্ডে জলপ্রপাত রয়েছে।চাঁদিপুরে থাকার বেশ কয়েকটি হোটেল রয়েছে। এর মধ্যে পান্থনিবাস অন্যতম আমরা এই হোটেলই ছিলাম। ভাড়া ১২০০ রূপি থেকে ৩৫০০ রূপি। একবারে সমুদ্রের কাছে এই পান্থনিবাস।

 

 

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)