ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট অক্টোবর ৪, ২০১৫

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ৩ কার্তিক, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ১৭ সফর, ১৪৪১

রংপুর খনির শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতির বিরুদ্ধে বাদীর দাযে়র করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার

খনির শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতির বিরুদ্ধে বাদীর দাযে়র করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার

বাদীর দাযে়র করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার

বাদীর দাযে়র করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার

০৪ অক্টোবর ২০১৫, নিরাপদ নিউজ,মেঃ মেহেদী হাসান উজ্জল ফুলবাড়ীঃ দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি মোঃ আবুল কাশেম শিকদারের বিরুদ্ধে দাযে়রকৃত বাদীর মিথ্যা মামলা অবশেষে প্রত্যাহার করে নিলেন।

এ ব্যাপারে এই মামলার বাদী মোঃ আইনুল হক লিখিত অভিযোগে ও সাংবাদিক সম্মেলন এর মাধ্যমে জানান , বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির ভিতরে গত ১৪ই আগস্ট সরকারি কর্মসূচি থাকায় সেই দিন ইউনিয়নের সকল কর্মচারী কাজ কর্মে ব্যস্ত ছিল।

কিন্তু বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির জনৈক এক কর্মকর্তা ষড়যন্ত্র করে শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মোঃ আবুল কাশেম সিকদার ও আজগর আলীর বিরুদ্ধে নারী কেলেঙ্কারীর মিথ্যা ঘটনা সাজিযে় শিবনগর ইউনিয়নের মজিদপুর গ্রামের মোঃ ইব্রাহিম আলীর স্ত্রী মোছাঃ মারুফা বেগমকে দিযে় থানায় মামলা করে তাদের ভাবমূর্তি নষ্ট করার চেষ্টা করেছি।

অবশেষে ৯ দিন পর কয়লা খনির ডেপুটি ম্যানেজার মাসুদ হাওলাদারের চাপে পার্বতীপুর থানায় ঐ মিথ্যা মামলাটি দাযে়র করেছি চাকুরীর আশায়। কয়লা খনির ডেপুটি ম্যানেজার মাসুদ হাওলাদার উক্ত কর্মকর্তা ব্যক্তিরেশে ভাইবোনকে চাকুরী দেওয়ার প্রলোভন ও মামলা চলার সমুদয় খরচ বহন করার আশ্বাস দিলেও বর্তমান আমাদেরকে চাকুরী না দিযে় তাল বাহানা করছে বলে অভিযোগে উল্লেখ্য করেন।

আমি ঐ কর্মকর্তার মিথ্যা প্রলোভন বুঝতে পেরে এবং আমার বোনের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হওয়ায় খনি প্রকল্পের ইউনিয়নের সভাপতির বিরুদ্ধে দাযে়র করা মিথ্যা মামলা আর চালাতে রাজি না হওয়ায় গ্রামবাসীদের পরামর্শে সামাজিক ভাবে বসবাস করার লক্ষ্যে গত ১৪/০৮/২০১৫ ইং তারিখের সৃষ্ট ঘটনার যে মিথ্যা মামলা করেছিলাম তা গত ২৯/০৯/২০১৫ ইং তারিখে দিনাজপুর নোটারী পাবলিক সাহেবের সমীপে আমি মোঃ আইনুল হক ও আমার বোন মোছাঃ মারুফা বেগম উপস্থিত হযে় এফিডেভিট এর মাধ্যমে আপোষ করে নিযে়ছি। যার এফিডেভিট নং- ৮০৬/২৯।

অপর দিকে গত ৩০/০৯/২০১৫ ইং তারিখে শিবনগর ইউপির চেয়ারম্যান মোঃ হারুনুর রশিদ ও ৮নং ওয়ার্ড সদস্য শফিকুল আলম মুকুল এবং স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের পরামর্শে মামলার বাদি আইনুল হক ও তার বোন মারুফা বেগম দিনাজপুর ১ম শ্রেণীর জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত নং- ৫ স্ব-শরীরে উপস্থিত হযে় স্বাক্ষর এর মাধ্যমে মামলা প্রত্যাহার করে নেন বলে জানান। মামলার বাদী মোঃ আইনুল হক গত ৪ই অক্টোবর রবিবার ফুলবাড়ীর মানবাধিকার সংস্থার কার্যালযে় তার লিখিত অভিযোগ ও সাংবাদিক সম্মেলন এর মাধ্যমে খনি প্রকল্পের ডেপুটি ম্যানেজার মাসুদ হাওলাদারের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলেন, ঐ কর্মকর্তা সমস্ত ঘটনা ঘটার উৎসাহিত করেছেন এবং আমাকে ও আমার বোনকে ব্যবহার করে ব্যক্তিগত আক্রোশ মেটানোর চেষ্টা করেছেন।

এমতাবস্থায় আমরা আমাদের ভুল বুঝতে পেরে স্বজ্ঞানে, স্ব-ইচ্ছায় মামলা প্রত্যাহার করেছি এবং আমরা বিভিন্ন দফতরে ঐ অসাধু কর্মকর্তার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ পাঠিযে়ছি। এ ব্যাপারে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির ডেপুটি ম্যানেজার মাসুদ হাওলাদার এর সাথে গতকাল রবিবার তার মুঠোফোনে যোগযোগ করা হলে তিনি বলেন আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করেছে তা মনগড়া। এই সব ঘটনার সাথে কোন ভাবে আমি জডি়ত নই।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)