ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট মার্চ ১০, ২০১৯

ঢাকা মঙ্গলবার, ৬ চৈত্র, ১৪২৫ , বসন্তকাল, ১২ রজব, ১৪৪০

লাইফস্টাইল গরমে রোগ-ব্যাধি ও নানা সমস্যা

গরমে রোগ-ব্যাধি ও নানা সমস্যা

নিরাপদ নিউজ: অতিরিক্ত গরম সব সময়ই শরীরের জন্য ক্ষতিকর। অতিরিক্ত তাপ যে কোনো বয়সের মানুষের জন্যই ক্ষতির কারণ, তবে বিশেষ করে শিশু ও যাদের বয়স ৬৫ বছরের কাছাকাছি বা তার চেয়ে বেশি তাদের ঝুঁকি এ সময় সবচেয়ে বেশি থাকে…

গরমে রোগ-ব্যাধি ও নানা সমস্যা

গ্রীষ্মকাল মানেই গরমকাল? অতিরিক্ত গরম সব সময়ই শরীরের জন্য ক্ষতিকর। অতিরিক্ত তাপ যে কোনো বয়সের মানুষের জন্যই ক্ষতির কারণ, তবে বিশেষ করে শিশু ও যাদের বয়স ৬৫ বছরের কাছাকাছি বা তার চেয়ে বেশি তাদের ঝুঁকি এ সময় সবচেয়ে বেশি থাকে। গরমে শারীরিক অস্বস্তি ও নানান রোগ-ব্যাধি দেখা দেয়? বলতে গেলে ছয় ঋতুর প্রভাব এই বঙ্গে দেখা যায়? আর প্রতিটি ঋতুর আগমনই আমাদের কাছে আনন্দদায়ক? তবে প্রতিটি ঋতুর মতো গ্রীষ্মেরও ভালো ও মন্দ দু’দিক রয়েছে? একটু সচেতন থাকলে গ্রীষ্মের এই মন্দ অর্থাৎ রোগ-ব্যাধি থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব বলে চিকিৎসকদের অভিমত? এই গরমে চলতে-ফিরতে সবার অসুবিধা হয় ও আমরা সবাই কম-বেশি শারীরিক ও মানসিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়ি? সময়মতো সচেতন না হলে অনেক সময় তা মৃত্যুর কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে? সাধারণত অতিরিক্ত গরমে যে সব সমস্যা দেখা দিতে পারে, সেগুলোর কারণ ও প্রতিকার সম্পর্কে এখানে আলোচনা করা হলো-

হিট স্ট্রোক

চারিদিকে ভীষণ গরম? এই গরমে সামান্য পরিমাণ জল আমাদের স্বস্তি দিতে পারে? গ্রীষ্মের দুপুরে তাপমাত্রা কখনও কখনও ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছাড়িয়ে যায়? বাতাসের আর্দ্রতাও বেড়ে যায় দারুণভাবে? প্রখর রোদে এইরকম গরমে বাইরে যেতে ইচ্ছে না থাকলেও বিভিন্ন কাজে বাইরে যেতেই হয়? তার ফলে গরম হিট স্ট্রোকে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থেকেই যায়? তাই হিট স্ট্রোক থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য কিছু জরুরি সর্তকতা মেনে চলা উচিত?

হিট স্ট্রোক কী?

হিট স্ট্রোক এক ধরনের হাইপারথার্মিয়া? হাইপার হচ্ছে অধিক মাত্রা, আর থার্মিয়া মানে তাপ? শরীরে অধিক তাপমাত্রা বৃদ্ধিকেই বলা হয় হিট স্ট্রোক? আমাদের শরীরের ভেতরে নানা রাসায়নিক ক্রিয়ার কারণে সব সময় তাপ সৃষ্টি হতে থাকে? ঘামের সাহায্যে সেই তাপ শরীর থেকে বেরিয়ে যায়? কিন্তু এক টানা রোদে থাকলে গরমে ঘামের সঙ্গে শরীরের অতিরিক্ত জল বেরিয়ে যায়? শরীর থেকে অতিরিক্ত জল বেরিয়ে যাওয়ায় ডিহাইড্রেশন সৃষ্টি হয়? ঘামের সঙ্গে লবণ বেরিয়ে যাওয়াতে লবণের ঘাটতি দেখা দেয়? যার ফলে শরীরকে করে তোলে অবসন্ন ও পরিশ্রান্ত? এতে মাথাঘোরা বা অজ্ঞান হয়ে পড়তে পারেন অনেকেই? তৎক্ষণাৎ চিকিৎসার ব্যবস্থা না করলে মৃত্যুও হওয়া অস্বাভাবিক নয়? বাচ্চা, বয়স্ক ও যারা ওবেসিটিতে ভুগছে তারা হিট স্ট্রোকে সহজেই আক্রান্ত হয়?

প্রতিকার: যতটুকু সম্ভব এই গরমে রোদে কম বের হতে হবে? একান্তই বের হতে হলে সঙ্গে জলের বোতল রাখা দরকার ও মাঝে মাঝে জলপান করা উচিত? তা না হলে শরীর অবসন্ন মনে হওয়া মাত্রই ছায়াযুক্ত বা শীতল কোন স্থানে বিশ্রাম করা? যদি অবস্থা খারাপ মনে হয় তাহলে ঠান্ডা জলে ভেজানো কাপড় শরীর মুছিয়ে দিতে হবে? খাবার স্যালাইন খাওয়াতে হবে, যাতে শরীরের লবণ ও জলের শূন্যতা দূর করতে পারে? অজ্ঞান হয়ে গেলে বা মাথা ঘোরালে মাথায় জল ঢালতে হবে? তাতেও যদি অবস্থার উন্নতি না হয়, তাহলে হিট স্ট্রোকে আক্রান্তকে হাসপাতালে নেয়ার ব্যবস্থা করতে হবে?

পেটের অসুখ

গরমের সময় অত্যধিক তাপমাত্রায় খাদ্য দ্রব্য তাড়াতাড়ি নষ্ট হয়ে যায়? এ ছাড়া গরম থেকে স্বস্তি পাওয়ার জন্য চলার পথে আমরা অনেক কিছুই খেয়ে ফেলি, যেগুলিতে হয়তো রোগ জীবাণু থাকতে পারে? গরমে জল সংকটের কারণে বাসায় বা হোটেলে থালা -বাসন ঠিক মতো পরিষ্কার করা হয় না? এসব কারণে অনেকেই পেটের অসুখে আক্রান্ত হয়? যাকে আমরা বলি ফুড পয়জনিং? এ থেকে বমি, পায়খানা বা ডায়রিয়াসহ অনেক রোগেই আমরা আক্রান্ত হতে পারি?

প্রতিকার : পেটের অসুখ থেকে বাঁচতে হলে আমাদের বাইরের খোলা খাবার খাওয়া বন্ধ করতে হবে? একান্তই যদি বাইরে খেতে হয় তবে ভালো হোটেলে বা রেস্টুরেন্টে খাওয়া ভালো? বাসি খাবার একদম খাওয়া যাবে না? খাবার আগে ভালো করে সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে নিতে হবে? এ ছাড়া পর্যাপ্ত পরিমাণ বিশুদ্ধ জল, শরবত বা ফলের রস পান করতে হবে? পাতলা পায়খানা শুরু হলে স্যালাইন খেতে হবে? অবস্থা বেশি খারাপ হলে হাসপাতালে ভর্তি হতে হবে?

ত্বকের সমস্যা

গরমের সময় অনেকেই ত্বকের বিভিন্ন রকম সমস্যা দেখা দেয়? ঘাম থেকে ঘামাচি হওয়া, তারপর সেই ঘামাচি চুলকাতে গিয়ে নখের আঁচড়ে ঘা তৈরি হয়ে সমস্যা সৃষ্টি করে? আবার গরমে জলের অভাব থাকায় ঠিক মতো স্নান করতে না পারার ফলে শরীর অপরিষ্কার থাকে? ফলে চর্মরোগের সৃষ্টি হয়? গরমে পুড়ে ত্বক কালো হওয়া বা অনেকের ত্বকে ছোপ ছোপ দাগও পড়ে?

প্রতিকার : ত্বকের সমস্যা থেকে রক্ষা পেতে হলে রোদে বেশি ঘোরাঘুরি করা উচিত নয়? প্রতিদিন বাইরে থেকে আসার পর সাবান দিয়ে ভালো করে স্নান করা উচিত? বাইরে বের হওয়া সময় ছাতা ব্যবহার করতে হবে? সবসময় হালকা রঙের কাপড় ব্যবহার করতে হবে? ভালো প্রতিষ্ঠানের সানস্ক্রিন লোশন ব্যবহার করা যেতে পারে। চোখে সানগস্নাস ব্যবহার করা যেতে পারে? আর ঘামাচি হলে ঘামাচি পাউডার লাগাতে হবে? গরমে অনেকের সর্দি, জ¦র, শ্বাসকষ্ট ও হাঁপানির সমস্যা দেখা দেয়। সে ক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়া উচিত? গরমে অসুস্থ হয়ে পড়া যেমন স্বাভাবিক, তেমনি একটু সাবধানে থাকলে সুস্থ থাকা অসম্ভব নয়?

হিট একজর্সন

হিট স্ট্রোক ও হিট একজর্সনের লক্ষণগুলো প্রায় এক ধরনের? প্রচন্ড গরমে একটানা ৩-৪ ঘণ্টা থাকলে এই রোগ দেখা দেয়? বমি ভাব, মাথা ঘোরা, মুখ ফ্যাকাসে হয়ে যাওয়া এ সবই হিট একজর্সনের লক্ষণ?

প্রতিকার : রোদে কাজ করতে হলে কাজের মাঝে মাঝেই ব্রেক নিয়ে ছায়ায় বসুন? মাথায় টুপি ব্যবহার করা যেতে পারে? মাঝে মাঝে জল খেতে হবে?

সান বার্ন

সূর্যের আল্ট্রা ভায়োলেট রশ্মি ত্বকেরও ক্ষতিকর প্রভাব বিস্তার করে? তার ফলেই গ্রীষ্মকালে ত্বকে দেখা দেয় সান বার্ন? এই সান বার্ন স্কিন ক্যান্সারের সম্ভাবনা বেশ খানিকটা বাড়িয়ে দেয়? সান বার্ন থেকে বাঁচতে হলে ভালো কোম্পানির ভালো লোশন মুখ, গলা, হাতে লাগাবেন? বাইরে বের হওয়ার সময় ছাতা অবশ্যই রাখবেন?

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)