আপডেট অগাস্ট ১১, ২০১৯

ঢাকা রবিবার, ২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ১৯ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১

প্রবাসী সংবাদ গ্রিসে প্রবাসী বাংলাদেশীদের সমাধান সভা অনুষ্ঠিত

গ্রিসে প্রবাসী বাংলাদেশীদের সমাধান সভা অনুষ্ঠিত

ইসমাইল হোসেন স্বপনইতালি,নিরাপদনিউজ: বাংলাদেশ দূতাবাস গ্রীস এর উদ্যোগের প্রবাসী বাংলাদেশী নাগরিকগণের জন্য সমাধান সভা অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল শুক্রবার বিকাল ৫টা ৩০ মিনিটের সময় দূতাবাস মিলনায়তনে মান্যবর রাষ্ট্রদূত প্রবাস বন্ধু মো: জসীম উদ্দিন এনডিসি এর সভাপতিত্বে দূতাবাস কাউন্সিলর ড.সৈয়দা ফারহানা নূর চৌধুরীর পরিচালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগ এর অতিরিক্ত সচিব মো:আজহারুল হক। দূতাবাসে কার্যক্রম এর প্রামাণ্য চিত্র উপস্থাপন করেন, দূতাবাসের প্রথম সচিব সুজন দেবনাথ। উক্ত আলোচনা সভায় অংশগ্রহণ করেন বাংলাদেশ কমিউনিটি ইন গ্রীস এর সভাপতি হাজী মোঃ আব্দুল কুদ্দুস, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল খালেক মাতব্বর, সাবেক সভাপতি গোলাম মাওলা, গ্রীস আওয়ামী লীগের সভাপতি মান্নান মাতব্বর,সহ-সভাপতি সামাদ মাতব্বর, আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ছাত্রলীগ।ইউরো বাংলা প্রেস ক্লাব, দোয়েল একাডেমি, গ্রিক বাংলা এডুকেশন সেন্টার সহ বিভিন্ন সামাজিক, আঞ্চলিক সংগঠন এর নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথি আজহারুল হক প্রবাসীদের বক্তব্য মনোযোগ সহকারে শোনেন, পাসপোর্ট এর বিভিন্ন সমস্যা সহ প্রবাসীদের এর সমস্যা সমাধানের আশ্বাস প্রদান করে বলেন সরকার প্রবাসীদের জন্য অত্যন্ত আন্তরিক। প্রবাসীদের সেবা প্রদানের জন্য বিভিন্ন আইন করা হয় কিন্তু দালালরা আইনের অপব্যাখ্যা করে অসাধুরা বিভিন্ন অপকর্ম করে বেড়ায় এবং তাদের হাত অনেক লম্বা, অসাধু ও দুর্নীতিবাজদের লাগাম টেনে ধরার লক্ষ্যে সরকার ই-পাসপোর্ট ব্যবস্থা চালু করতে যাচ্ছে। ই-পাসপোর্ট চালু হলে ১০ আংগুলের হাতের চাপ থাকবে। ইউনিয়ন পরিষদ পর্যায়ে ই পাসপোর্ট এর সেবা প্রদান করা হবে।সিলেট, চট্টগ্রাম, শাহজালাল আন্তর্জাতিক এয়ারপোর্ট এ -ই গেট চালু করা হবে। তাতে করে প্রবাসীদের ইমিগ্রেশন সমস্যার সমাধান হবে। মান্যবর রাষ্ট্রদূত বলেন যাহাদের ডিজিটাল পাসপোর্টে ছোটখাটো সমস্যা রয়েছে অতি তাড়াতাড়ি সংশোধন করার জন্য ই পাসপোর্ট চালু হলে আর সংশোধন করার কোন সুযোগ থাকবে না। আমরা বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে, আমাদের দায়িত্ব রয়েছে তা সঠিক ভাবে পালন করতে হবে। আলোচনায় উঠে এসে যাহারা মায়ানমারের নাম লিখে বাংলাদেশের নাগরিক বৈধ হয়েছেন অথচ দেশে যেতে পারতেছেন না এটা অত্যন্ত দুঃখজনক। কিন্তু কথা হচ্ছে কেন দেশের নাম পরিবর্তন করবেন, দেশ হচ্ছে আমাদের মা কেউ কি তার মায়ের নাম পরিবর্তন করে ?নাগরিক হিসেবে সরকারের পাশাপাশি আমাদের অনেক দায়িত্ব রয়েছে তা যথাযথ পালন করে চলতে হবে।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)