ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ৩ মিনিট ১১ সেকেন্ড

ঢাকা শুক্রবার, ৭ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ২৩ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১

ঘূর্ণিঝড়ের দেশ বাংলাদেশ

ঘূর্ণিঝড়ের দেশ বাংলাদেশ

ঘূর্ণিঝড়ের দেশ বাংলাদেশ

শফিক আহমেদ সাজীব, ২১ মে, ২০১৬, নিরাপদনিউজ : ঘূর্ণিঝড়ের দেশ বাংলাদেশ। ভৌগোলিক অবস্থানগত কারণে দূর্যোগপ্রবণ এলাকা হিসেবেই চিহ্নিত বন্দরনগরী চট্টগ্রাম। অতীতে বঙ্গোপসাগর থেকে বহু ঘূর্ণিঝড় এই অঞ্চলের ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে ১৯৬০ ও ১৯৯১ সালের দুটি প্রলয়ঙ্করী ঘূর্ণিঝড়। এসব ঘূর্ণিঝড়ে জানমালের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে প্রচুর।

১৯৬০ সালের অক্টোবর মাসে চট্টগ্রামে ঘণ্টায় ২১০ কিলোমিটার গতিতে ১৫ ফুট থেকে ১৮ ফুট উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসসহ তীব্র ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানে। অনেক মানুষের মৃত্যু ঘটে এতে। ১৯৬৩ সালের মে মাসে সংগঠিত তীব্র ঘূর্ণিঝড়ে চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকা মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এসময় চট্টগ্রামে ১২ ফুট থেকে ১৫ ফুট উঁচু জলোচ্ছ্বাস সংঘটিত হয় এবং সর্বোচ্চ বায়ুপ্রবাহ ছিল ঘণ্টায় ২০৩ কিলোমিটার।

১৯৬৬ সালের অক্টোবর মাসে ঘণ্টায় ১৪৬ কিলোমিটার গতিতে তীব্র ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানে চট্টগ্রামে। ১৯৭০ সালের ১২ নভেম্বর সংঘটিত হয় বাংলাদেশের ইতিহাসে সর্বাপেক্ষা প্রাণ ও সম্পদ বিনষ্টকারী ধ্বংসাত্মক ঘূর্ণিঝড়। হারিকেনের তীব্রতা নিয়ে প্রচণ্ড বাতাস দু’দিন ধরে বারবার আঘাত হানে চট্টগ্রামে। স্মরণকালের সর্বাপেক্ষা বেশি জীবন, সম্পদ ও ফসলের ক্ষতি সাধন হয় এ দুর্যোগে। এ ঘূর্ণিঝড়ে বাতাসের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় প্রায় ২২২ কিলোমিটার এবং জলোচ্ছ্বাসের উচ্চতা ছিল প্রায় ৩৩ ফুট।

১৯৭১ সালের নভেম্বর মাসে চট্টগ্রামের উপকূলবর্তী অঞ্চলে তীব্র ঘূর্ণিঝড় আঘাতে হানে। ১৯৭৪ সালের নভেম্বর মাসে চট্টগ্রামের উপকূলীয় অঞ্চলে ১৬১ কিলোমিটার বেগে তীব্র ঘূর্ণিঝড় ও ৯ ফুট থেকে ১৫ ফুট উঁচু জলোচ্ছ্বাস আঘাত হানে। ১৯৭৭, ১৯৮৩, ১৯৮৫ ও ১৯৮৬ সালে চট্টগ্রামে ঘূর্ণিঝড়ে অনেক প্রাণহানি ও সম্পদ ধ্বংস হয়।

১৯৯১ সালে সংঘটিত ঝড়টিকে ‘প্রলয়ঙ্করী ঘূর্ণিঝড়’ নামে চিহ্নিত করা হয়। এটি ১৯৯১ সালের ২৯ এপ্রিল রাতে বাংলাদেশের উপকূলে আঘাত হানে। ঘণ্টায় ১৬০ কিলোমিটার গতিতে অঘাত করা এ ঘূর্ণিঝড়ের সাথে জলোচ্ছ্বাসের উচ্চতা ছিল ১৫ থেকে ২৪ ফুট। ঘূর্ণিঝড় ও জলোচ্ছ্বাসে প্রায় দেড় লাখ লোকের প্রাণহানি হয় ও ৭০ হাজার গবাদিপশু মারা যায়। পরবর্তীতে ১৯৯৭ সালে দুটি ও ১৯৯৮ সালে একটি ঘূর্ণিঝড় চট্টগ্রামে সংঘটিত হয়েছিল।

এছাড়া ২০০৬ সালের ২৯ এপ্রিল ‘মালা’ ২০০৭ সালের মে মাসের ১৪ তারিখে ‘আকাশ’, ২০০৮ সালে ২ মে ‘নার্গিস’ ও ২৬ অক্টোবর ‘রেশমী’ আঘাত হানে চট্টগ্রামে। ২০০৯ সালের ১৭ এপ্রিল ‘বিজলী’ দূর্বলভাবে চট্টগ্রাম উপকূলে আঘাত করে। পরবর্তীতে ২০০৯ সালের ২৫ মে আবার ঘূর্ণিঝড় ‘আইলা’র প্রভাবে ক্ষতি হয় চট্টগ্রামের উপকূলীয় এলাকা। সর্বশেষ ২০১৩ সালের মে মাসে ‘ভিয়ারু’ নামক ঘূর্ণিঝড় চট্টগ্রামে আঘাত করলেও তা তেমন সক্রিয় ছিল না।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)