ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট মে ২৫, ২০১৭

ঢাকা মঙ্গলবার, ৪ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ২০ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১

চট্টগ্রাম, সড়ক সংবাদ চট্টগ্রামে যানজট নিরসনে পুলিশের সাথে থাকবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫শ শিক্ষার্থী

চট্টগ্রামে যানজট নিরসনে পুলিশের সাথে থাকবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫শ শিক্ষার্থী

চট্টগ্রামে যানজট নিরসনে পুলিশের সাথে থাকবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫শ শিক্ষার্থী

শফিক আহমেদ সাজীব , ২৫ মে ২০১৭, নিরাপদ নিউজ : রমজানে নগরীকে যানজটমুক্ত রাখতে একগুচ্ছ পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি)। গত বছরের রমজানের চেয়ে নগরবাসীকে ৩০ ভাগ বেশি স্বস্তি দেয়ার টার্গেট করেছে সিএমপি। রমজানকে ঘিরে নিরাপত্তা ব্যবস্থাকেও দুই ভাগে ভাগ করা হয়েছে। গতকাল রমজান ও ঈদ উল ফিতরের নিরাপত্তা নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানিয়েছেন সিএমপি কমিশনার মো.ইকবাল বাহার। সিএমপি কমিশনার জানান, নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে দুই পালায় ভাগ করে পর্যাপ্ত সংখ্যক মহিলা পুলিশ, সাদা পোশাকের পুলিশ, অন্যান্য পুলিশ বাহিনীর সদস্য, র্যা ব ও এপিবিএন থাকবে। সকাল ১১টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত প্রথম পালা এবং রাত ৮টা থেকে ভোর ৪টা পর্যন্ত দ্বিতীয় পালা। রমজানের প্রথম ১৫ দিন এক পালা এবং শেষের ১৫দিন দুই পালায় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবেন বলে তিনি জানান। পুলিশ কমিশনার জানান, বিভিন্ন মার্কেটের সামনে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫০০ শিক্ষার্থীকে এবার স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে দায়িত্ব দেয়া হবে। স্বেচ্ছাসেবকরা ওই মার্কেটে আগত ক্রেতাদের বোঝাবেন যে আমার এখানে পার্কিং নেই। আপনি দয়া করে অন্য কোন স্থানে যেখানে অনুমতি পাবেন সেখানে গাড়ি রাখুন। এছাড়া রমজানজুড়ে রাস্তায় কোনো গাড়ি অবৈধভাবে পার্কিং করতে দেয়া হবে না। দশটি মোড়কে টার্গেট করে মাইকে প্রচারণা চালানো হবে। মোড়ে পুলিশ এবং স্বেচ্ছাসেবক থাকবে। বামপাশে যাতে সার্বক্ষণিক গাড়ি চলাচল করে সেটা নিশ্চিত করা হবে। তিনি জানান, নগরীতে পার্কিংয়ের জন্য ৪২টি স্পট মার্কিং করে দেয়া হয়েছে। এর বাইরে গাড়ি রাখা যাবে না। প্রত্যেক মার্কেটে গাড়ি পার্কিংয়ে শৃঙ্খলা আনার কথাও বলেন সিএমপি কমিশনার। এজন্য প্রথমবারের মতো পাঁচটি মার্কেটের সামনে ডিজিটাল ডিসপ্লে রাখার কথা জানিয়েছেন তিনি। ডিসপ্লেতে নিউমার্কেট, চিটাগং শপিং কমপ্লেক্স, সানম্যার, মিমি সুপার মার্কেটের কোথায় পার্কিং খালি আছে সেটা লেখা থাকবে। সিএমপি কমিশনার জানান, আফমি প্লাজা থেকে ষোলশহর দুই নম্বর গেট পর্যন্ত রাস্তায় কোন গাড়ি পার্কিং করতে দেয়া হবে না। নাসিরাবাদ আবাসিক এলাকার দুই নম্বর ও তিন নম্বর গলিতে এক লাইনে গাড়ি পার্কিংয়ের অনুমতি দেয়া হবে। আফমি প্লাজার পাশ দিয়ে যে সড়ক গেছে সেটাতে আরেকটা পার্কিং করা হবে। রিয়াজউদ্দিন বাজারে পার্কিংয়ের উদ্যোগ মার্কেট কর্তৃপক্ষ নিচ্ছে। মিউনিসিপ্যাল স্কুল মাঠ এবং রেলস্টেশনের সামনে খালি জায়াগায় পার্কিংয়ের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এছাড়া প্রথমবারের মতো টেরিবাজার ব্যবসায়ী সমিতি এবার গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা করেছে। তারা লালদিঘির মাঠ ভাড়া করছে। টেরিবাজারে ঢোকার মুখ থেকে বের হওয়া পর্যন্ত রিকশা বা ভ্যানও চলতে দেয়া হবে না। সেখানে কাউকে যেতে হলে পায়ে হেঁটেই যেতে হবে এবং বের হতে হবে। পুলিশ কমিশনার বলেন, গত বছরের চেয়ে তুলনায় ৩০ ভাগ উন্নতি ও পরিবর্তন দৃশ্যমান করতে চাই। আশা করি স্বস্তির জায়গা গতবারের চেয়ে ৩০ ভাগ বেশি হবে। সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্তি পুলিশ কমিশনার মাসুদ উল হাসান, সালেহ মোহাম্মদ তানভীর ও দেবদাস ভট্টাচার্য।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)