ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ২৯ মিনিট ৫৭ সেকেন্ড

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ৫ আশ্বিন, ১৪২৫ , শরৎকাল, ৯ মুহাররম, ১৪৪০

চট্টগ্রাম, পরিবেশ চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানায় প্রতিষ্ঠার ২৯ বছর পর প্রথম জেব্রা আমদানি

চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানায় প্রতিষ্ঠার ২৯ বছর পর প্রথম জেব্রা আমদানি

চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানায় প্রতিষ্ঠার ২৯ বছর পর প্রথম জেব্রা আমদানি

শফিক আহমেদ সাজীব,নিরাপদ নিউজ : ‘মা, এগুলা জেব্রা না? কি সুন্দর সাদা-কালো ডোরাকাটা। দেখে মনে হয় যেন ঘোড়ার ওপর কেউ আর্ট করেছে! ৭ বছরের ছোট্ট লিলির উৎসুক দৃষ্টি চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানার নতুন প্রাণী জেব্রার দিকে। মায়ের কাছে বায়না ধরে সাদা-কালো জেব্রার সাথে রঙিন ছবি তোলার। লিলির মতো আরো অনেক ক্ষুদে দর্শনার্থী এসেছিলো আফ্রিকার জেব্রা দেখতে। প্রতিষ্ঠার ২৯ বছর পর প্রথমবারের মত জেব্রা আনা হলো চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানায়। আর তা দেখতেই ভিড় জমেছিলো গতকাল । দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ৪৮ লাখ টাকায় আমদানি করা হয়েছে এক বছর বয়সী ৬টি জেব্রা। আফ্রিকার মতো এবার চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানার ধুলো উড়িয়ে ছুটছে এই প্রাণীগুলো। তাই দর্শনার্থীদের অসুবিধা না হওয়ার জন্য সারাক্ষণ খাঁচার মাটি ভিজিয়ে রাখছেন চিড়িয়াখানার কর্মচারীরা।

জঙ্গলে যেমনটা দলবেঁধে থাকতে দেখা যায়, এখানেও তার ব্যতিক্রম দেখা গেল না। একেবারে গা ঘেঁষে চলছে সবগুলো জেব্রা। কখনো বা খুনসুটিতেও মাতছে। একে অন্যকে পেছনের পা উঁচিয়ে ধাক্কা দিচ্ছে। আর তাতে মজা পেয়ে আনন্দে চিৎকার করছে ক্ষুদে দর্শনার্থীরা।

জেব্রার খাঁচার গ্রিল দুহাতে চেপে উৎসুক দৃষ্টিতে তাকিয়ে ছিলো ৬ বছরের সাকিব। পেছনেই বাবা-মা। বাবা আনোয়ার হোসেন নিরাপদ নিউজকে জানান, আমরা প্রায়ই চিড়িয়াখানায় সাকিবকে নিয়ে আসি। ছয় মাস আগেও এসেছিলাম। গতকাল পত্রিকায় পড়ে জানলাম, চিড়িয়াখানায় জেব্রা আনা হচ্ছে। তাই আজ ওকে নিয়ে আসলাম দেখাতে। বইয়ের সাথে সাথে নিজ চোখে দেখেও চিনুক।

গতকাল বেলা পৌনে ১২টায় নতুন এই চারটি নারী ও দুটি পুরুষ জেব্রা দর্শকদের জন্য উন্মুক্ত ঘোষণা করেন নগরীর বিদায়ী ও নতুন জেলা প্রশাসক।

এ সময় বিদায়ী জেলা প্রশাসক মো. জিল্লুর রহমান চৌধুরী বলেন, দর্শকদের কাছে টিকেট বিক্রি করে যে টাকা পাওয়া যায় সেখান থেকে ৪৮ লাখ টাকা ব্যয়ে ৬টি জেব্রা সংগ্রহ করা হয়েছে। চিড়িয়াখানার খরচ নির্বাহের পর উদ্বৃত্ত যে তহবিল, সেখান থেকেই এ খরচ দেয়া হয়েছে। জেব্রাগুলো দেখতে খুবই সুন্দর। বয়সও কম। জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাগণ, চিড়িয়াখানার কিউরেটর, পরিচালনা পর্ষদের সদস্যসচিব রুহুল আমীনসহ সবার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় এ চিড়িয়াখানার পরিবেশ ক্রমাগত সুন্দর হচ্ছে। আমরা অনেক দূর যেতে চাই। চট্টগ্রামের জন্য একটিই চিড়িয়াখানা আছে।

নিজের বিদায় প্রসঙ্গে বিদায়ী এ জেলা প্রশাসক বলেন, আমি কথার চেয়ে কাজ বেশি পছন্দ করি। চট্টগ্রামের জন্য ভালো ভাববার, ভালো করবার চেষ্টা করেছি। নতুন জেলা প্রশাসক দায়িত্ব নিয়েছেন। তাকে আপনারা সহযোগিতা করবেন যাতে সরকারের মুখ উজ্জ্বল হয়, চট্টগ্রামের উন্নয়ন হয়।

নতুন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন বলেন, বিদায়ী জেলা প্রশাসক চট্টগ্রামবাসীকে ছয়টি আফ্রিকান জেব্রা উপহার দিয়েছেন। আমিও চেষ্টা করব এ চিড়িয়াখানায় নতুন নতুন প্রাণী সংগ্রহসহ অবকাঠামোগত উন্নয়ন করতে।

চিড়িয়াখানায় শীঘ্রই একটি এভিয়ারি পার্ক করা হবে বলে জানান চিড়িয়াখানার পরিচালনা পর্ষদের সদস্যসচিব ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটন রুহুল আমীন। তিনি নিরাপদ নিউজকে বলেন, মূলত ক্ষুদে দর্শনার্থীদের বিনোদনের জন্য এই জেব্রাগুলো আনা হয়েছে। তাদের জন্য চিড়িয়াখানায় আমরা একটি শিশুপার্কও করেছি। আমাদের পরবর্তী লক্ষ্য চিড়িয়াখানার মূল প্রবেশপথের কাছেই একটি এভিয়ারি পার্ক করা। এছাড়া ভেতরে যে পাহাড়টি আছে, সেখানে বসার কিছুটা ব্যবস’া করা হবে। চিড়িয়াখানায় যে চলমান উন্নয়ন কাজ আছে, তা শেষ হওয়ার পর আমরা আরো নতুন প্রাণী আনার চেষ্টা করবো।

চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানায় বাঘ-সিংহ, নতুন নতুন প্রাণী আনা ও যেসব উন্নয়ন কাজ চলছে এতে চট্টগ্রামের মানুষদের এর প্রতি আগ্রহ বাড়ছে বলেও জানান তিনি। গত জানুয়ারি মাসে চিড়িয়াখানায় এক লাখ দর্শনার্থীর আগমণ ঘটে।

এর আগে এই চিড়িয়াখানায় দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে দুইটি সিংহ ও সিংহী সরবরাহ করেছিলো ফ্যালকন ট্রেডার্স। নতুন তিন জোড়া জেব্রাও প্রতিষ্ঠানটি চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানায় সরবরাহ করেছে। প্রথম ১৫দিন প্রতিষ্ঠানটিই জেব্রাগুলো দেখাশোনা করবে। এরপর চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষের কাছে পুরোপুরি হস্তান্তর করা হবে।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)