সংবাদ শিরোনাম

২১শে অক্টোবর, ২০১৭ ইং

00:00:00 রবিবার, ৭ই কার্তিক, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ , হেমন্তকাল, ২রা সফর, ১৪৩৯ হিজরী
উপসম্পাদকীয়, জানতে হবে মানতে হবে, মতামত, সড়ক সংবাদ জনসাধারনের জন্য নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সরকারের করনীয় এবং প্রাসঙ্গিক ভাবনা

জনসাধারনের জন্য নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সরকারের করনীয় এবং প্রাসঙ্গিক ভাবনা

পোস্ট করেছেন: Nsc Sohag | প্রকাশিত হয়েছে: এপ্রিল ৯, ২০১৭ , ১২:১৩ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: উপসম্পাদকীয়,জানতে হবে মানতে হবে,মতামত,সড়ক সংবাদ

জনসাধারনের জন্য নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সরকারের করনীয় এবং প্রাসঙ্গিক ভাবনা

নিরাপদ নিউজ : এ কথা অপ্রত্যাশিত হলেও বাস্তব সত্য যে, অধিকাংশ গুরুত্বপূর্ণ সড়ক গুলো নিরাপদ না হওয়া সত্বেও জনসাধারনের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে উদ্বেগ উৎকন্ঠার মধ্যে এক স্থান হতে অন্য স্থানে চলাচল করছেন। ফলশ্রুতিতে গুরুত্বপূর্ণ ব্যস্ত সড়ক গুলোতে প্রতিনিয়ত মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় ঝড়ে যাচ্ছে অনেক তাজা প্রাণ যা অপুরনীয় এবং মর্মস্পশী। এই গুরুত্বপূর্ণ ব্যস্ত সড়ক গুলোকে নিরাপদ সড়কে রুপান্তর করতে হলে নিরাপত্তাহীনতার কারন গুলো সঠিকভাবে চিহ্নিত করা প্রয়োজন। এই অবস্থায় গুরুত্বপূর্ণ ব্যস্ত সড়ক গুলোকে নিরাপদ সড়কে পরিণত করতে হলে যে সকল কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা প্রয়োজন সে গুলোর বিবরণ নিরাপত্তাহীনতার কারন গ্রলোর সার-সংক্ষেপসহ ক্রমান্বয়ে নিম্নে প্রদান করা হলো।

পদক্ষেপ নং-০১
এই চির সবুজ চির সুন্দর দেশটির সরকারী এবং বে-সরকারী পর্যায়ে প্রায় ৪৫ লক্ষ প্রশিক্ষিত দক্ষ গাড়ী / যানবাহন চালক প্রয়োজন। এ ছাড়া বহিঃ বিশ্বে গাড়ী / যানবাহন চালকসহ প্রচুর দক্ষ শ্রমিকের চাহিদা বিদ্যমান । ফলশ্রুতিতে পূর্ণমাত্রায় প্রয়োজনীয় কার্যকর প্রশিক্ষণ প্রদান করে প্রশিক্ষিত দক্ষ গাড়ী / যানবাহন চালক তৈরী করতে পারলে দেশ বিদেশে ক্রমান্বয়ে অন্তত ১ কোটি লোকের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করা সম্ভব হতো যা বৈদেশিক অর্থ উপার্জনের পাশাপাশি স্বনির্ভর উন্নত বাংলাদেশ গড়ে তোলার জন্য একান্ত প্রয়োজন। একথা অত্যন্ত উদ্বেগজনক হলেও বাস্তব সত্য যে ট্রাফিক নিয়মাবলী ট্রাফিক আইন-মনস্তাত্তিক সচেতনতা গাড়ী চালনাসহ মৌলিক কারিগরী ধারনা সম্বলিত কার্যকর প্রশিক্ষণ প্রদান করে প্রয়োজনীয় সংখ্যক গাড়ী/যানবাহন চালক তৈরী করার মত কার্যকর কোন সরকারী ট্রেনিং ইনষ্টিটিউট আজো স্থাপন করা হয় নাই। ফলশ্রুতিতে প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ প্রদান না করাই প্রচলিত নিয়মে অধিকাংশ ক্ষেত্রে নামে মাত্র অকার্যকর পরীক্ষা নিয়ে BRTA কর্তৃক চালকদেরকে Non Digital ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদান করায় অধিকাংশ ক্ষেত্রে অদক্ষ কিংবা ভূঁয়া লাইসেন্সধারী চালকগণ যানবাহন চালাচ্ছেন বিধায় মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনা অপ্রতিরোধ্য ভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে যা জনস্বার্থে হ্রাস করা একান্ত প্রয়োজন।
এই পেক্ষাপটে নতুন গাড়ী কিংবা যানবাহন চালক তৈরী করার প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ প্রদানের জন্য Logistic Support সহ দেশ ব্যাপি ১৫টি Multi Purpose প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপন করা প্রয়োজন। এই Multi Purpose প্রশিক্ষণ কেন্দ্র গুলো চাহিদা মোতাবেক দক্ষ গাড়ী চালক তৈরী করার পাশাপাশি অন্যান্য বিশেষজ্ঞ প্রশিক্ষকের সহায়তায় অন্যান্য পেশার জন্য চাহিদা মোতাবেক দক্ষ প্রশিক্ষিত শ্রমিক তৈরী করবেন।
পদক্ষেপ নং-০২ 
এই Multi Purpose প্রশিক্ষণ কেন্দ্র গুলোর প্রশাসনিক কর্তৃপক্ষ প্রয়োজনীয় দক্ষ গাড়ী চালক তৈরী করার পাশাপাশি প্রশিক্ষিত চালকদেরকে Digital পদ্ধতিতে ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদান করবেন এবং তিন বৎসর অন্তর অন্তর চালকদের Physical Fitness পরীক্ষান্তে ড্রাইভিং লাইসেন্স গুলো নবায়ন করবেন।
এই Multi Purpose প্রশিক্ষণ কেন্দ্র গুলো থেকে প্রশিক্ষণ প্রদান করে যে সকল গাড়ী / যানবাহন চালকগণকে ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদান করা হবে সে সকল প্রশিক্ষিত চালকদের ছবিসহ Bio Data একটি Web Site-এ Up Dated অবস্থায় সংরক্ষণ করা প্রয়োজন যেন, যে কেউ তা জানতে কিংবা পরীক্ষা করতে পারেন। এই কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করলে ভূঁয়া লাইসেন্সসহ কিংবা লাইসেন্স বিহীন অদক্ষ চালকগণ কোন প্রকার যানবাহন চালাতে পারবেন না বিধায় সড়ক দুর্ঘটনা অনেকাংশে হ্রাস পাবে যা জনগুরুত্বপূর্ণ ব্যস্ত সড়ক গুলোকে নিরাপদ করার জন্য একান্ত প্রয়োজন।
পদক্ষেপ নং-০৩ 
এই প্রস্তাবিত ১৫টি Multi Purpose প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে সুপরিকল্পিত ভাবে প্রশিক্ষণ প্রদান করার জন্য প্রশিক্ষণ কর্তৃপক্ষ নিম্নেবর্ণিত তিন ধরনের প্রশিক্ষণ কোর্স তৈরী করবেন
(ক) Long Term Vehicle Driving Training Course:

এই প্রশিক্ষণ কোর্স নতুন যানবাহন চালক তৈরী করার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য-এই প্রশিক্ষণের মেয়াদ ৯০ দিন নির্ধারন করতঃ প্রশিক্ষণ কর্তৃপক্ষ নিবিড় এবং কার্যকর প্রশিক্ষণ কোর্স প্রনয়ন করবেন। এই প্রশিক্ষণ কোর্সে যানবাহন চালানো-ট্রাফিক নিয়মাবলী-মনস্তাত্ত্বিক সচেতনতা এবং বেসিক কারিগরী বিষয়গুলো অন্তর্ভুক্ত করবেন।
(ক) Medium Term Vehicle Driving Training Course:

এই প্রশিক্ষণ কোর্স অদক্ষ কিংবা লাইসেন্স বিহীন চালকদের জন্য প্রযোজ্য-এই প্রশিক্ষণের মেয়াদ ৩০ দিন নির্ধারন করতঃ দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য প্রশিক্ষণ কর্তৃপক্ষ নিবিড় এবং কার্যকর প্রশিক্ষণ কোর্স প্রনয়ন করবেন।
(ক) Short Term Vehicle Driving Training Course:

যে সকল চালকগণ BRTA থেকে ড্রাইভিং লাইসেন্স গ্রহণ করে গাড়ী/ যানবাহন চালাচ্ছেন তাদেরকে শধু ট্রাফিক রুল-মনস্তাত্ত্বিক সচেতনতা এবং মৌলিক টেকনিক্যাল বিষয়ে এই প্রশিক্ষণ প্রদান করে Multi Purpose প্রশিক্ষণ কেন্দ্র গুলো চালকদেরকে Digital Driving লাইসেন্স প্রদান করবেন। এই প্রশিক্ষণের মেয়াদ ২১ দিন নির্ধারন করতঃ প্রশিক্ষণ কর্তৃপক্ষ নিবিড় এবং কার্যকর প্রশিক্ষণ কোর্স প্রনয়ন করবেন।
পদক্ষেপ নং-০৪ 
সরকারী এবং বেসরকারী পর্যায়ে গাড়ী ক্রয় করার সময় গাড়ী ক্রেতাগণ ড্রাইভার প্রশিক্ষণ ফি বাবদ এককালীন অন্ততঃ ২০,০০০/- টাকা Multi Purpose প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের অনুকুলে প্রদান করবেন। বেসরকারী মালিকগণ সরাসরি কোন গাড়ী চালক নিয়োগ করতে পারবেন না। এই ক্ষেত্রে বেসরকারী গাড়ীর মালিকগণ নির্ধারিত হাওে ড্রাইভার প্রশিক্ষণ ফি প্রদান করে একজন প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত গাড়ী চালক নিয়োগ প্রদান করার জন্য ¨ Multi Purpose প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের Administrative authority-র নিকট নির্ধারিত ফর্মে (যদি ঈযড়রপব থাকে তা উল্লেখসহ) আবেদন করবেন।
অতঃপর Multi Purpose প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের Administrative authority সরকারী নীতিমালার আলোকে নূন্যতম বেতন ভাতা নির্ধারণ করতঃ একজন গাড়ী চালক নিয়োগ প্রদান করবেন। এই নিয়োগপ্রাপ্ত গাড়ী চালকদের আচরন কিংবা দক্ষতা সন্তোষজনক প্রতীয়মান না হলে গাড়ীর মালিকগণ Multi Purpose প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের Administrative authority-র মাধ্যমে গাড়ীচালক পরিবর্তন করতে পারবেন। এই ক্ষেত্রে প্রস্তাবিত Multi Purpose প্রশিক্ষণ কেন্দ্র গুলো ড্রাইভার তৈরীর প্রশিক্ষণ প্রদান-ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদান/নবায়ন-গাড়ীর মালিকদের চাহিদা মোতাবেক ড্রাইভারদের নিয়োগ এবং ড্রাইভারদের নিয়ন্ত্রণকারী কর্তৃপক্ষ হিসাবে দায়িত্ব পালন করবেন। এখানে উল্লেখ্য যে, সুইডেনসহ অনেক উন্নত দেশে বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের কিংবা ব্যক্তিবর্গের চাহিদা মোতাবেক শ্রমিক নিয়োগের দায়িত্ব রাষ্টীয় ভাবে পালন করা হয়।
এই অবস্থায় সরকারী প্রতিষ্ঠান গুলো নিজস্ব মানদন্ডের আলোকে ড্রাইভার নিয়োগ প্রদান করলেও Short time Driving Training গ্রহণ কিংবা Multi Purpose প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের ড্রাইভিং লাইসেন্স গ্রহণ করাটা বাধ্যতামূলক করা প্রয়োজন।
পদক্ষেপ নং-০৫ 
বৈধ ড্রাইভিং লাইসেন্সধারী প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কোন চালকের কারণে কোন প্রকার দুর্ঘটনা ঘটলে প্রচলিত আইনে লঘুদন্ড প্রদানের বিধার কার্যকর রাখলেও ড্রাইভিং লাইসেন্স বিহীন কিংবা ভূঁয়া লাইসেন্সসহ যানবাহন চালনাকে কঠোর শাস্তিমূলক অপরাধ হিসাবে আইন প্রণয়ন করে তা Mobile Court এর মাধ্যমে কার্যকর করতে হবে। এই ক্ষেত্রে কোন ব্যক্তি ড্রাইভিং লাইসেন্স বিহীন কিংবা ভূঁয়া লাইসেন্সসহ গাড়ী চালানোর কারণে কোন প্রাণহানী ঘটলে তার জন্য সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ডসহ গাড়ীর মালিককে কঠোর অর্থ দন্ড প্রদানের বিধান প্রণয়ন এবং কার্যকর করা প্রয়োজন।
পদক্ষেপ নং-০৬
জনগুরুত্বপূর্ণ ব্যস্ত সড়ক গুলোর Non Visible Road Turning গুলোর গাছপালা কিংবা দৃষ্টি প্রতিবন্ধক গুলো অপসারন করে বিপরীত দিক থেকে আসা গাড়ী গুলোর Safe Distance পর্যন্ত অবস্থান Visible করা প্রয়োজন।
পদক্ষেপ নং-০৭ 
প্রতিটি যানবাহনের সকল প্রকার Fitness কঠোর ভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে যেন কোন Fitness বিহীন গাড়ী গুরুত্বপূর্ণ ব্যস্ত সড়ক গুলোতে চলতে না পারে। এই ক্ষেত্রে ভূঁয়া অবাস্তব Fitness প্রদান এবং গ্রহণ করাকে কঠোর শাস্তিমূলক অপরাধ হিসাবে গন্য করতঃ আইন প্রণয়ন করে তা কার্যকর করতে হবে যার কোন বিকল্প নাই।
পদক্ষেপ নং-০৮ 
অতিরিক্ত যাত্রী-অতিরিক্ত মালামাল কিংবা Over Speed -এ গাড়ী চালানোকে শাস্তিমূলক অপরাধ হিসাবে গন্য করে তা Mobile Court এর মাধ্যমে কার্যকর করতে হবে যা সড়ক দুর্ঘটনা রোধ করার জন্য একান্ত প্রয়োজন।
পদক্ষেপ নং-০৯ 
জাতীয় মহাসড়ক গুলোকে ১০০ মাইল অন্তর অন্তর চেকিং চত্বর স্থাপন করে অন্তত ১% যানবাহন Random ভাবে Select করে পরীক্ষা করা প্রয়োজন । এই চেকিং চত্বর সৃষ্টি করলে চেকিং এর কারণে যানজট সৃষ্টি হবে না- এই চত্বর গুলোতে Parking Feasilities Tea Stall-Hotel-Toilet-Shoping Feasilities ট্রমি সেন্টার এবং এঁবংঃ Guest House স্থাপন করা যেতে পারে।
পদক্ষেপ নং-১০ 
এই প্রস্তাবিত ১৫টি অঞ্চলে ১৫টি বিশেষজ্ঞ Technical Team গঠন করা প্রয়োজন – এই Technical বিশেষজ্ঞ Team গুলো ব্যস্ত সড়ক গুলোতে কোন প্রকারDesignসংক্রান্ত কিংবা কোন ঝুঁকিপূর্ণ স্থান আছে কিনা তা নিয়মিত পরীক্ষা করে দেখার পাশাপাশি ঝুঁকিপূর্ণ স্থান গুলো ঝুঁকি মুক্ত করার জন্য কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। এই ১৫টি অঞ্চলে ১৫টি অভিযোগ কেন্দ্র স্থাপন করা যেতে পারে।
পদক্ষেপ নং-১১ 
জনগুরুত্বপূর্ণ ব্যস্ত চৌরাস্তা গুলোর একদিকে Over Pass কিংবা Under Pass তৈরী করলে ট্রাফিক জ্যাম অভাবনীয় ভাবে হ্রাস পাবে যা জনদূর্ভোগ লাঘবের জন্য একান্ত প্রয়োজন।
পদক্ষেপ নং-১২ 
এ কথা সত্য যে মালামাল পরিবহনের ক্ষেত্রে রেল এবং নৌপথ নিরাপদ এবং সাশ্রয়ী বিধায় অগ্রধিকার ভিত্তিতে পর্যাপ্ত পরিমাণ পরিকল্পিত রেল এবং নৌপথ (Loading Unloading Spot এবং Feasilities সহ) Develop করা প্রয়োজন। প্রতিটি জাতীয় এবং গুরুত্বপূর্ণ সড়কের দুইপাশে পর্যায়ক্রমে একমুখী রেলপথ স্থাপন করা প্রয়োজন-নৌপথ এবং রেলপথ পরস্পর সংযুক্ত করে Loading Unloading Spot সহ সমন্বয় করে পরিকল্পিত মালামাল পরিবহনNetwork সৃষ্টি করা প্রয়োজন। এই ক্ষেত্রে নৌপথ গুলো নিয়মিত রক্ষণাবেক্ষণের পাশাপাশি প্রয়োজনীয় অবকাঠামো স্থাপন করা প্রয়োজন । এই ক্ষেত্রে Mechanical কিংবাAutomatic Loading Un-Loading System কার্যকর করতে পারলে জনদূর্ভোগ অনেকাংশে লাঘব হবে যা জনগনের প্রত্যাশার সাথে সংগতিপূর্ণ।
পদক্ষেপ নং-১৩ 
প্রতি বৎসর প্রশিক্ষণ প্রদান করে একটি নির্ধারিত সংখ্যক নতুন প্রশিক্ষিত গাড়ী চালক তৈরী করার জন্য প্রতি বৎসর সরকার Multi Purpose প্রশিক্ষণ কেন্দ্র গুলোকে প্রয়োজনীয় ফান্ড অনুদান হিসাবে প্রদান করবেন। এই ক্ষেত্রে Multi Purpose প্রশিক্ষণ কেন্দ্র গুলো দরিদ্র পরিবারের সুস্থ্য সবল যুবকদেরকে বিনা মূল্যে ড্রাইভিং প্রশিক্ষণ প্রদান করে বে-সরকারী গাড়ী চালক হিসাবে নিয়োগ প্রদান করলে Multi Purpose প্রশিক্ষণ কেন্দ্র গুলো দারিদ্র বিমোচনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারবেন।
পদক্ষেপ নং-১৪ 
এই সকল Multi Purpose প্রশিক্ষণ কেন্দ্র হতে প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত দরিদ্র পরিবারের গাড়ী চালকদেরকে কর্মসংস্থান ব্যাংক হতে বিনা জামানতে সহজ শর্তে ব্যাংক ঋণ প্রদান করলে চালকগণ যানবাহন ক্রয় করে Self Employment Creat করতে পারবেন যা বাংলাদেশের মত জনবহুল দেশের বেকারত্ব হ্রাস করার জন্য একান্ত প্রয়োজন।

পদক্ষেপ নং-১৫ 
এই সকল Multi Purpose প্রশিক্ষণ কেন্দ্র থেকে প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত দরিদ্র পরিবারের যানবাহন চালকদেরকে বিদেশে কর্মসংস্থানের জন্য ত্রি-পাক্ষিক চুক্তির মাধ্যমে (চালক+ব্যাংক+বিদেশী সংস্থা) জামানত বিহীন সহজ শর্তে প্রয়োজনীয় ব্যাংক ঋণ প্রদান করা হলে লক্ষ লক্ষ যুবকদেও জন্য বিদেশে কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করা যেতে পারে।এই ক্ষেত্রে বিদেশী সংস্থা (Employer) চালকদের বেতনের ৩০% টাকা ব্যাংক ঋণ সমন্বয়ের জন্য সরাসরি সংশ্লিষ্ট ব্যাংক শাখাং প্রেরণ করবেন।
উপসংহার ঃ
প্রতিদিন বাংলাদেশের কোটি কোটি মানুষ যানবাহন দিয়ে একস্থান হতে অন্য স্থানে চলাচল করছেন। এই কোটি কোটি মানুষের জীবনের নিরাপত্তা যানবাহন চালকদের দক্ষতা এবং সতর্কতার উপর অনেকাংশে নির্ভরশীল বিধায় গাড়ী চালকদেরকে প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ প্রদান কওে ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদানের বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ । এই অবস্থায় এই বিষয়গুলোর প্রতি জনস্বার্থে সর্বোচ্চ গুরুত্ব প্রদান করা আজ খুব প্রয়োজন-যার কোন বিকল্প নাই।

মোঃ গোলাম মোস্তফা
প্রকৌশলী, আইনবিদ ও রাষ্ট্রবিজ্ঞানী।

Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn1Digg thisShare on Tumblr0Email this to someonePin on Pinterest0Print this page

comments

Bangla Converter | Career | About Us