ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ডিসেম্বর ১, ২০১৭

ঢাকা শনিবার, ২২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ৯ রবিউস-সানি, ১৪৪১

জাতীয়, লিড নিউজ ‘জিডিপিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে এসএমইখাত’

‘জিডিপিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে এসএমইখাত’

শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু – ফাইল ফটো

০১ ডিসেম্বর ২০১৭, নিরাপদ নিউজ : শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেছেন, বর্তমান সরকার বাংলাদেশের এসএমইখাতে ভ্যালু চেইন উন্নয়নের মাধ্যমে জাতীয় প্রবৃদ্ধি ও কর্মসংস্থান বৃদ্ধির কৌশল গ্রহণ করেছে। এসএমই শিল্পখাত জিডিপি প্রবৃদ্ধির শতকরা ২৫ ভাগ, শিল্প কর্মসংস্থানের শতকরা প্রায় ৮৫ ভাগ এবং গৃহস্থালি আয়ের শতকরা ৭৫ ভাগ যোগান দিয়ে থাকে। বৈশ্বিক অর্থনৈতিক মন্দার মাঝেও জিডিপি প্রবৃদ্ধির ক্ষেত্রে এসএমইখাত গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছে।

শুক্রবার ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লির ইন্ডিয়া হ্যাবিটেট সেন্টারে ‘বৈশ্বিক মানোন্নয়ন প্রক্রিয়ায় এসএমইখাতকে একীভূতকরণ : চ্যালেঞ্জ ও সম্ভাবনা’শীর্ষক উচ্চ পর্যায়ের প্লেনারি সেশনে বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

ভারতের ন্যাশনাল রিসার্স অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান ড. এইচ. পুরুশুথামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দেশের ব্যবসায়ীক নেতা, এসএমই শিল্প উদ্যোক্তা, ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তা, আন্তর্জাতিক বাণিজ্য প্রতিষ্ঠানের নির্বাহী, ব্যাংকার, থিংকট্যাংক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা আলোচনায় অংশ নেন।

আমির হোসেন আমু এসএমই খাতের সক্ষমতা বৃদ্ধি, দক্ষ জনবল সৃষ্টি, শক্তিশালী ক্রেতা-বিক্রেতা সম্পর্ক স্থাপন, সৃজনশীল ও প্রশিক্ষিত উদ্যোক্তা তৈরি, পরিবেশবান্ধব আধুনিক প্রযুক্তির প্রয়োগ এবং নতুন উদ্ভাবনে পৃষ্ঠপোষকতা বাড়ানোর তাগিদ দেন।

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে ২০১০ সাল থেকে ২০১৬ সালের মধ্যে জিডিপি দ্বিগুণ করে বাংলাদেশ একটি চিত্তাকর্ষক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনে সক্ষম হয়েছে। ২০১০ সালে বাংলাদেশের জিডিপির পরিমাণ ছিল ১০২.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার, যা ২০১৬ সালে বেড়ে ২২১.৪৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে দাড়িয়েছে। বৈশ্বিক অর্থনৈতিক মন্দার মাঝেও এ ধরনের জিডিপি প্রবৃদ্ধির ক্ষেত্রে এসএমইখাতের গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছে।’ বাসস

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)