ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ডিসেম্বর ৬, ২০১৪

ঢাকা বুধবার, ৯ কার্তিক, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ২৪ সফর, ১৪৪১

অর্থনীতি জিডিপিতে ব্যাংকিং খাতের অবদান ৫৫ শতাংশ : গভর্নর

জিডিপিতে ব্যাংকিং খাতের অবদান ৫৫ শতাংশ : গভর্নর

বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান

বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান

ঢাকা, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৪, নিরাপদনিউজ : বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান বলেন, বেসরকারি খাতে ঋণের প্রবৃদ্ধি দিন দিন বাড়ছে। এ ঋণ প্রবাহ মোট দেশজ উৎপাদনে (জিডিপি) বাড়তি অবদান রাখছে। ২০০৮-০৯ অর্থবছরে জিডিপিতে ব্যাংকিং খাতের অবদান ছিল ৪৬ শতাংশ। ২০১৩ সাল শেষে তা বেড়ে হয় ৫৫ শতাংশ। আজ শনিবার রাজধানীর মিরপুরে বাংলাদেশ ইন্সস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট (বিআইবিএম) মিলনায়তনে ‘বার্ষিক ব্যাংকিং সম্মেলন-২০১৪’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। এ সময় অনুষ্ঠানের বিভিন্ন ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীরা ছাড়াও কেন্দ্রিয় ব্যাংকের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। বিআইবিএম তৃতীয়বারের মতো এ সম্মেলনের আয়োজন করেছে।
গভর্নর বলেন, ২০০৮-০৯ সাল থেকে বিশ্বের উন্নত দেশগুলো কেবলমাত্র মূলধারার অর্থনীতিতে অর্থায়ন করেছে। কিন্তু আমরা সাধারণ মানুষকে অন্তর্ভূক্ত করে প্রকৃত অর্থায়ন করার চেষ্টা করেছি। এ কারণে বৈশ্বিক মন্দার প্রভাব বাংলাদেশে পড়েনি। তিনি বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের কঠোর নজরদারি ও ভূমিকার কারণে ব্যাংকিং খাতের কিছু বড় অনিয়ম ও দুর্নীতি প্রতিরোধ করা সম্ভব হয়েছে। ব্যাংকিং খাতকে দ্রুত আধুনিকায়ন করায় এটা সম্ভব হয়েছে। এখন ইলেকট্রনিক ফান্ড ট্রান্সফার, অনলাইনে ঋণের তথ্য ও তদারকি সহজতর হয়েছে।
অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধে বিআইবিএম মহাপরিচালক ড. তৌফিক আহমেদ চৌধুরী বলেন, বর্তমানে দেশে ৮ কোটি ৫০ লাখ ব্যাংক একাউন্ট রয়েছে। যার মধ্যে ৩ কোটির মত রয়েছে স্কুল ব্যাংকিং ও কৃষকের ১০ টাকার একাউন্ট। তিনি জানান, ব্যাংকগুলোর কৃষি খাতে ঋণ বিতরণ বাড়ছে। ২০১৩-১৪ অর্থবছরে আগের বছরের তুলনায় ঋণের প্রবৃদ্ধি হয়েছে ১৩ দশমিক ৩২ শতাংশ। এই ঋণ প্রবৃদ্ধির ফলে কৃষি খাত জিডিপিতে অতিরিক্ত ৫ দশমিক ৭ শতাংশ অবদান রাখতে পারছে বলে তিনি জানান।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)