আপডেট ৩ মিনিট ২৬ সেকেন্ড

ঢাকা শনিবার, ২২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ৯ রবিউস-সানি, ১৪৪১

বরিশাল টুঙ্গীতে নিহত মুন্নার গ্রামের বাড়িতে শোকের মাতম

টুঙ্গীতে নিহত মুন্নার গ্রামের বাড়িতে শোকের মাতম

কামরুল হাসান, নিরাপদ নিউজঃ গাজীপুর মহানগরের গাজীপুরা এলাকায় নিজ বাসায় দুর্বৃত্তের হাতে নিহত তৌসিফুল ইসলাম মুন্নাকে (১৩) বৃহস্পতিবার দুপুরে তার গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার নাজিরপুর ইউনিয়নের রায় তাঁতেরকাঠীতে হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারনা হয়। মুন্নাকে নিয়ে আসছে এমন খবরে গতকাল সকাল থেকেই ওই বাড়িতে হাজারো মানুষ ভিড় জমায়। দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে মুন্নাকে নিয়ে লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্স পৌঁছালে শোকের মাতম শুরু হয়। নাতির লাশ দেখে বাকরুদ্ধ হয়ে যান সত্তোরোর্ধ দাদা শাহজাহান হাওলাদার। চাচি, চাচাতো ভাই-বোন, নানা-নানী ও স্বজনদের আহাজারিতে ভারি হয়ে ওঠে রায় তাঁতেরকাঠীর গ্রামের বাতাস। মুন্নার ছোট ভাই শিশু শ্রেণির ছাত্র মো. তামিম বলে,‘মুন্না ভাই কই?আমি ভাইয়ের কাছে যাব।’ গত বুধবার সকালে গাজীপুর মহানগরের গাজীপুরা এলাকায় চন্দ্রিমা হাউজিংয়ের ১২ নম্বর বাসায় দুর্বৃত্তরা মুন্নাকে গলা কেটে ও কুপিয়ে খুন করে চলে যায়। সকাল পৌনে ১০টার দিকে বাসায় ফিরে মুন্নাকে রক্তাক্ত অবস্থায় বিছানায় পড়ে থাকতে দেখেন তাঁর মা হামিদা আক্তার ওরফে মুকুল বেগম। তখন মুন্নার গলাকাটা ছিল ও পেটের ভুরি বিছানায় পড়েছিল। মুন্নার মা হামিদা আক্তার বলেন মুন্নাকে খুন করার পর বাসা থেকে একটি ডিএসএলআর ক্যামেরা ও পুরনো মোবাইল সেট নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। মুন্নার বাবা মিজানুর রহমান বলেন,‘বাবায় (মুন্না) আমার গত ৩ জুলাই বাড়ি থেকে ঢাকা যাওয়ার সময় বলে আব্বা এ বছরের কুরবানির গরুটা গত বছরের চেয়ে আরও বড় কিনবা। আমি তোমার সঙ্গে থাকবো। এহন গরু কেনার সময় কে থাকবেরে বাবা?’ এই কথা বলে তিনি কান্নায় ভেঙে পড়েন। মুন্নাকে দুপুর দুইটায় জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। জানায় বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার হাজারো মানুষ অংশ নেয়।জানাজায় সংক্ষিপ্ত বক্তৃতায় নাজিরপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান ইব্রহিম ফারুক ও জেলা পরিষদের সদস্য হারুন অর রশিদ বলেন ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে দৃষ্ঠান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। এ বিষয়ে টঙ্গী পূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কামাল হোসেন মুঠোফোনে বলেন,যেভাবে খুন করা হয়েছে তা অমানবিক। খুনের আসল ঘটনা উদঘাটনের জন্য র‌্যাব ও পুলিশ তৎপর রয়েছে। আশা করি খুব কম সময়ের মধ্যে রহস্য উদঘাটন করে ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেপ্তার করা সম্ভব হবে।’

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)