আপডেট ১ মিনিট ৪৭ সেকেন্ড

ঢাকা শনিবার, ৩ ভাদ্র, ১৪২৬ , শরৎকাল, ১৬ জিলহজ্জ, ১৪৪০

ক্রিকেট, লিড নিউজ তাসকিনের কান্না মাশরাফির কান্নাকে মনে করিয়ে দিচ্ছে

তাসকিনের কান্না মাশরাফির কান্নাকে মনে করিয়ে দিচ্ছে

 

ঢাকা, ১৬ এপ্রিল ২০১৯, নিরাপদ নিউজ: ২০১১ সালের কথা এদেশের কোটি কোটি মাশরাফি ভক্তরা কখনই ভুলতে পারবেন না। সেবার দেশের মাটিতে আয়োজিত বিশ্বকাপের দলে জায়গা না পাওয়ায় কান্নায় ভেঙে পড়েছিলেন ওয়ানডে দলের বর্তমান অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। বিশ্বকাপের আগে তিনিও ইনজুরিতে পড়েছিলেন। স্কোয়াড ঘোষণার আগে ইনজুরি কাটিয়ে উঠলেও পুরো ফিট না থাকায় তাকে দলে জায়গা দেননি তখনকার কোচ জেমি সিডন্স। তখন অনেকেই সন্দেহ প্রকাশ করেছিলেন, তাকে দলে না রাখার পেছনে তৎকালীন অধিনায়ক সাকিব আল হাসানেরও ভূমিকা ছিল। যদিও মাশরাফি তখন যথেষ্ট ফিট ছিলেন বলেই জানা যায়। সে যাই হোক, সেবার দল ঘোষণার পর নিজের নাম তালিকায় না দেখে কান্নায় ভেঙে পড়েছিলেন মাশরাফি। সেই কান্না ছুঁয়ে গিয়েছিল দেশের কোটি ক্রিকেটভক্তদেরও। আজ আবার তাসকিনের কান্না মাশরাফির ওই মুহূর্তকেই যেন মনে করিয়ে দিচ্ছে সবাইকে।
গত বিশ্বকাপেও ছিলেন টাইগারদের পেস আক্রমণের অন্যতম প্রধান ভরসা। অথচ পরের বিশ্বকাপের স্কোয়াডেই সুযোগ পাননি এই টাইগার পেসার তাসকিন আহমেদ। হতাশ হয়ে পড়েন তিনি। লুকিয়ে রাখতে পারেননি আবেগ। বরং সংবাদ মধ্যমের সামনেই কান্নায় ভেঙে পড়লেন। তাসকিনের সেই কান্নার ছবি ছুঁয়ে গেছে সমর্থকদেরও। আজ মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) বিশ্বকাপের স্কোয়াড ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। ঘোষিত স্কোয়াডে অনেকটা জায়গা হয়নি তাসকিন আহমেদের। এমনটা হবে তা আগেই অনুমান করছিলেন অনেকে। হয়েছেও তাই।
দীর্ঘদিন ইনজুরির সঙ্গে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন তাসকিন। সেই ২০১৭ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে ইনজুরিতে পড়ার পর থেকেই দলের বাইরে ছিলেন। বিপিএলে দিয়ে ফর্মে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। কিন্তু এরপর আবার ইনজুরি হানা। সর্বশেষ চোট কাটিয়ে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের হয়ে খেলতে নামলেও ওই ম্যাচে ৫ ওভারে দিয়েছেন ৩৬ রান। উইকেট পাননি। সবেমাত্র চোট থেকে সেরে উঠেছেন। ফিরতে তো সময় লাগবেই। ফলে তাকে দলে নেওয়ার ঝুঁকি নেননি নির্বাচকরা। শুধু বিশ্বকাপ স্কোয়াডে নয়, তার আগে আয়ারল্যান্ড সফরের দলেও নেই তাসকিন। দল ঘোষণার পর সংবাদ মাধ্যমের সামনে কথা বলতে গিয়ে আবেগ ধরে রাখতে পারলেন না তিনি। কেঁদেই ফেললেন।
কান্না চেপে এক পর্যায়ে তাসকিন বললেন, সবাই তো ভালো চায়, সামনে আরও সুযোগ আছে। আমি আমার চেষ্টা চালিয়ে যাবো। সুপার লিগ খেলবো (ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ)। ভালো করে খেলার চেষ্টা করবো। সবাই দোয়া করবেন। কথাটা বলেই দ্রুত চোখ মুছতে মুছতে স্থান ত্যাগ করলেন তিনি।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)