ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ১৯ সেকেন্ড

ঢাকা শনিবার, ২৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ১৬ রবিউস-সানি, ১৪৪১

শিল্প-সংস্কৃতি তৃতীয় বর্ষে ‘ব্ল্যাকফ্লেইম থিয়েটার’

তৃতীয় বর্ষে ‘ব্ল্যাকফ্লেইম থিয়েটার’

নিরাপদ নিউজ: আজ পহেলা নভেম্বর কর্মমুখর নবীন নাট্যসংগঠন ‘ব্ল্যাকফ্লেইম থিয়েটার তৃতীয় বর্ষে পদার্পণ করলো। এ উপলক্ষে আজ বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহড়া কক্ষে (ট্রেনিং রুম, লিফট-৬) সন্ধ্যা ৬ টায় ঘরোয়া আয়োজন করেছে দলটি।
এ প্রসঙ্গে দলের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান সম্পাদক তানভীর শেখ বলেন, বাঙলার সু-প্রাচীন নাট্য-ঐতিহ্যর গর্বিত উত্তরসূরি আমরা। কালগত অভিঘাতে বাঙলা অঞ্চলের নাট্য-ধারাবাহিকতা ইতঃপূর্বে কিঞ্চিদধিক ব্যাহত হলেও আধুনিককালের নাট্য-সচেতনতা আমাদের সমৃদ্ধ ঐতিহ্যর প্রতি করেছে শ্রদ্ধাশীল। সঙ্গত কারনে, আমাদের নাট্য চর্চার সমকালীন যে বিষয়গুলো অন্ধকারে রয়ে গেছে বা দর্শক-সম্মুখে সচারাচর উপস্থাপিত হয়না। সে সকল বিষয়বস্তু নান্দনিক বিনোদনের মাধ্যমে দর্শক সম্মুখে উপস্থাপনই আমাদের প্রত্যয়। আমরা নিশ্চিতই বিশ্বাস করি, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় আলোকিত বহ্নিশিখার আড়ালে লুকিয়ে থাকা অ-ব্যাক্ত কালো অধ্যায় আধুনিক বাঙলা নাট্যরীতি ও দেশীয় মূকাভিনয় রীতির ব্যবহারিক প্রয়োগের মাধ্যমে রুচিশীল দর্শক-সম্মুখে নান্দনিক প্রকাশ ঘটবে। বর্ণিত প্রক্রিয়ায় আমাদের নিজস্ব নাট্য ও মূকাভিনয় আঙ্গিকের প্রয়োগে উপস্থাপিত হবে সমকালীন সে বিষয়গুলো যা অন্ধকারেই রয়ে গেছে। এতদ্ উদ্দেশ্যেই “বিনোদনে নান্দনিকতা” স্লোগানে ২০১৭ খ্রিস্টাব্দে প্রতিষ্ঠিত নাট্যসংগঠন ব্ল্যাকফ্লেইম থিয়েটার ইতোমধ্যে ১২টি মূকাভিনয় প্রযোজনা মঞ্চে এনেছে এবং সেগুলো ঢাকা সহ সারাদেশে নিয়মিত মঞ্চায়ন করে যাচ্ছে, এছাড়াও বেশ কিছু জাতীয় ও আন্তর্জাতিক উৎসবে সাফল্যের সাথে অংশগ্রহন করে ব্যাপক প্রশংসা অর্জন করেছে।
ব্ল্যাকফ্লেইম থিয়েটার এর বিগত উল্লেখযোগ্য কাজ এর মধ্যে এ বছর ‘থাইল্যান্ডের অন্যতম নাট্য সংগঠন ‘রেবেল আর্ট স্পেস’ এর আয়োজনে গত ১৪ থেকে ১৯ অক্টোবর ব্যাংকক আর্ট এন্ড কালচার সেন্টারে অনুষ্ঠিত অত্যন্ত মর্যাদাপূর্ণ থাইল্যান্ডের মূলধারার ইন্টারন্যাশনাল পার্ফরমেন্স আর্ট ফেস্টিভ্যাল ‘রেবেল লাইভ এ্যকশন ইকো আর্ট’ ফেস্টিভ্যাল এ দুইটি একক প্রযোজনার একটি করে প্রদর্শনী এবং ব্যাংকের অন্যতম নাট্য সংগঠন স্পাইন পার্টি মুভমেন্ট এর সাথে তাদের ‘প্রজেক্ট সি ব্যাংকক’ এর সাথে যৌথভাবে ৩ টি প্রযোজনায় গ্রুপ পারফরমেন্স এ অংশগ্রহণ করেছে এবং এবছরই ব্যাংককের স্বনামখ্যাত থিয়েটার কোম্পানি ‘স্পাইন পার্টি মুভমেন্ট’ এর আমন্ত্রণে ব্যাংককে বিশেষ নাট্য কর্মশালা পরিচালনা করেন ব্ল্যাকফ্লেইম থিয়েটার এর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান সম্পাদক তানভীর শেখ এছাড়াও ‘ডুমা ইন্টারন্যাশনাল মাইম ফেস্ট-২০১৯’, ‘ব্যাংকক থিয়েটার ফেস্টিভ্যাল-২০১৮’, ‘ন্যাশনাল মনোমাইম ফেষ্টিভ্যাল-২০১৮’, ‘২য় ঢাকা আন্তর্জাতিক মাইম ফেস্ট-২০১৮’, ‘৩য় চ্যাপলিন মাইম ফেস্টিভ্যাল-২০১৮’, ঢাকার অন্যতম মূকাভিনয় সংগঠন ‘মাইম আর্ট’ এর ১০ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর আয়োজনে ও তীরন্দাজ নাট্যদল আয়োজিত একুশের বিশেষ আয়োজন ‘একুশের প্রথম প্রহর’ এ সফলতার সাথে অংশগ্রহন করেছে। এছাড়াও ব্ল্যাকফ্লেইম থিয়েটার ‘জাপান বাংলা পিস ফাউন্ডেশন’ এর সাথে জাপানের হিরোশিমা-নাগাসাকি’র ভয়াবহতা ও পারমানবিক অস্ত্র মুক্ত মানবিক পৃথিবী গড়ার প্রত্যয়ে পরপর দুইবার ‘হিরোশিমা দিবস-২০১৯’ ও ‘হিরোশিমা দিবস-২০১৮’ এর সফল আয়োজন করেছে যেখানে যথাক্রমে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশে সরকারের মাননীয় তথ্য মন্ত্রী জনাব হাসান মাহমুদ এমপি ও মাননীয় সংস্কৃতি মন্ত্রী নাট্যজন আসাদুজ্জামান নূর এমপি প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, এছাড়াও পাবনায় মূকাভিনয় কর্মশালা পরিচালনা ও ‘বাংলাদেশ মাইম এসোসিয়েশন’ প্রতিষ্ঠায় প্রত্যক্ষ ভূমিকা পালন ও এসোসিয়েশন কর্তৃক বিভিন্ন কর্মকান্ড ও বিভিন্ন দলের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে শুভেচ্ছা জ্ঞাপন সহ নানাবিধ সংস্কৃতিক কর্মকান্ডে সাফল্যের সাথে অংশগ্রহন করেছে।
প্রসঙ্গত, আজকের এই বিশেষ দিনে সকল বন্ধু, শিল্পী, কলাকুশলী, সহকর্মী, নাট্যকর্মী সংস্কৃতিকর্মী, বিশিষ্ট নাট্য-ব্যক্তিত্ব, প্রিয় সাংবাদিক ভাইয়েরা সহ ব্ল্যাকফ্লেইম থিয়েটার কে বিভিন্নভাবে সহযোগীতাকারী ও পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠান ‘বাংলাদেশ আমেরিকান কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট এন্ড ইয়ুথ সার্ভিসেস (BACDYS) ‘, ‘দেশী টেলিগ্রাফ’ (ইউএসএ), ‘দেশী সিনিয়র সেন্টার’ (ইউএসএ), ‘ফাষ্টমুভ গ্লোবাল কনসাল্টেন্ট এন্ড ম্যানেজমেন্ট ফ্যাক্টরী’, ‘রীপ্যাক প্রিন্টিং এন্ড প্যাকেজিং’, ‘শাইন ট্রেডিং ইন্টারন্যাশনাল’, টেক স্কয়ার ইঞ্জিনিয়ারিং লিমিটেড’, ‘কাজী রাইস ইন্ড্রাস্ট্রিজ লিঃ’, ‘ব্ল্যাকফোর্ট করপোরেশন’, ‘হলিডে এক্সপ্রেস’ ‘বাংলাদেশ মাইম এসোসিয়েশন’ ও ‘জাপান বাংলা পিস ফাউন্ডেশন’ এর প্রতি জানায় প্রানঢালা শুভেচ্ছা ও আন্তরিক অভিনন্দন। তারা প্রত্যাশা করেন যেন নান্দনিক শিল্পচর্চার মাধ্যমে দর্শকদের সুস্থ বিনোদন উপহার দিতে পারেন এবং সেই সাথে বাংলাদেশের সংস্কৃতিকে বিশ্ব দরবারে মর্যাদার সাথে উপস্থাপন করতে পারেন।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)