আপডেট ২৭ মিনিট ৩ সেকেন্ড

ঢাকা মঙ্গলবার, ৪ পৌষ, ১৪২৫ , শীতকাল, ১০ রবিউস-সানি, ১৪৪০

নিসচা সংবাদ, লিড নিউজ দিল্লীতে গ্লোবাল এ্যালায়েন্স অব এনজিওস ফর রোড সেফটি এশিয়া রিজিওনের প্রশিক্ষণ কর্মশালায় জয়

দিল্লীতে গ্লোবাল এ্যালায়েন্স অব এনজিওস ফর রোড সেফটি এশিয়া রিজিওনের প্রশিক্ষণ কর্মশালায় জয়

লিটন এরশাদ,নিরাপদ নিউজ:  গ্লোবাল এ্যালায়েন্স অব এনজিও’স ফর রোড সেফটি এশিয়া রিজিওনের একটি প্রশিক্ষণ কর্মশালা ভারতের দিল্লীতে অনুষ্ঠিত হয়। ৬ দিনব্যাপী (২৫-৩০ নভেম্বর ২০১৮) আয়োজিত এই কর্মশালায় বিভিন্ন দেশের রোড সেফটির উপর কাজ করা প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করেন।

উল্লেখ্য ২০২০ সালের ভেতর সড়ক দুর্ঘটনার হার অর্ধেকে নামিয়ে আনতে ২০১১ সালে যখন ডিকেড অফ এ্যাকশন ঘোষিত হয় তখন জাতিসংঘের রোড সেফটি কোল্যাব্রেশন-এর আন্ডারে সুইজারল্যান্ডে এই প্রতিষ্ঠানটি রেজিস্ট্রেশন হয়। তারা ২২০জন সদস্য নিয়ে বিশ্বের প্রায় ৯০টি দেশকে রিপ্রেজেন্ট করছে।


এবার রোড সেফটি এডভোকেসির ওপর ৬দিনের ট্রেনিংটি নিউ দিল্লিতে অনুষ্ঠিত হয়। ট্রেনিংয়ের ভেন্যু ছিলো দিল্লীর ইনস্টিউট অব রোড ট্রাফিক এডুকেশন । ট্রেনিং-এ এশিয়ার মোট ৮টি দেশ থেকে ২০জন প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করেন। বাংলাদেশ থেকে অংশগ্রহণ করেন নিরাপদ সড়ক চাই’র কেন্দ্রীয় কমিটির আন্তর্জাতিক ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক মিরাজুল মঈন জয় ।


অনুষ্ঠানে ৬দিনের ট্রেনিং শেষে গ্র্যাজুয়েশন সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়। এছাড়াও নিরাপদ সড়ক চাই সংগঠন আত্ম প্রচারণার বাইরে থেকে দেশের ভেতর দুর্ঘটনারোধে কার্যকর ভুমিকা রাখার অবদানস্বরূপ নিসচাকে ‘বিহ্যাইন্ড-দা সিন সার্টিফিকেট’ প্রদান করা হয় এবং জাতিসংঘের পরবর্তি সিক্সথ গ্লোবাল মিটিংয়ে নিসচা প্রতিনিধিকে আমন্ত্রণ জানান কর্তৃপক্ষ।

এই সিক্সথ গ্লোবাল মিটিং অনুষ্ঠিত হবে গ্রীসে। নিসচার অংশগ্রহণে মুগ্ধ হয়ে প্রতিষ্ঠানের নির্বাহী পরিচালক লটে ব্রন্ডাম ভূয়সী প্রশসা করেন এবং নিসচার সংগে আগামীতে কাজ করার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেন।


প্রশিক্ষণে শেখানো হয়েছে সড়ক দুর্ঘটনার ডাটা কালেকশন, এ্যাকশন প্ল্যান তৈরি, প্রজেক্ট ইমপ্লিমেন্টেশন এবং এভিডেন্স বেইজড এডভোকেসি ক্যাম্পেইন পরিচালনা। হাতে, কলমে এবং মাঠে এই প্রশিক্ষণ কার্যক্রম চলে। নিসচার প্রতিনিধি মিরাজুল মঈন জয় বলেন, ট্রেনিংটি আসলে আমাদের সড়ক দুর্ঘটনা নিরসনে অনেক কাজে দিবে। এই অভিজ্ঞতায় নতুন প্রজেক্ট তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। সেইসাথে লিডারশীপ তৈরিতে কার্যকর প্ল্যান করা যাবে।


নিসচার কর্মসূচির বিষয়ে নেতৃবৃন্দ প্রশংসার পাশাপাশি সুপারিশ করেন ‘নিরাপদ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জোন’ কিভাবে গড়ে তোলা যায় এবং সড়ক নিরাপত্তার বিষয়ে শুধু ক্যাম্পেইন নয়, কারণ নির্ণয় করে উপযুক্ত প্রতিকারের মাধ্যেই সাফল্য আসতে পারে বলে তারা মত দেন এবং সেভাবে নিসচার আগামী কার্যক্রম সাজানোর সুপারিশ করেন।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)