আপডেট ৮ সেকেন্ড

ঢাকা রবিবার, ৬ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ , গ্রীষ্মকাল, ১৪ রমযান, ১৪৪০

বরিশাল দুর্ঘটনার শিকার পরীক্ষার্থী, হলে আসতে দেরি কয়ায় পরীক্ষা দিতে দিলোনা দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিনিধি

দুর্ঘটনার শিকার পরীক্ষার্থী, হলে আসতে দেরি কয়ায় পরীক্ষা দিতে দিলোনা দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিনিধি

কামরুল হাসান, নিরাপদ নিউজ:  পটুয়াখালীর বাউফলে পল্লী উন্নয়ন বোর্ডের (বিআরডিবির) প্রকল্প অফিসারের অমানুবিকতার শিকার হয়ে এক ছাত্রী ভূগোল বিষয়ের পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেননি। ফলে ওই ছাত্রীটির শিক্ষা জীবন থেকে একটি বছর হারিয়ে গেল। ছাত্রীটির নাম শারমীন আক্তার, পরীক্ষার রোল নম্বর ২২৩৩৮২। তিনি চলতি বছর এইচএসসি পরীক্ষায় বাউফলের বগা ইউনিয়ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় ভেন্যু থেকে পরীক্ষা দিচ্ছেন।

শারমীন আক্তার অভিযোগ করেন, বুধবার ছিল তার ভূগোল পরীক্ষা। এজন্য তিনি যথা সময়ে বাড়ি থেকে পরীক্ষার ভেন্যুতে রওনা দেন। আসার পথে তিনি দুর্ঘটনার শিকার হন। এর ফলে পরীক্ষার ভেন্যুতে পৌঁছাতে তার ১০ মিনিট বিলম্ব হয়। তখন ২৫ মার্কের এমসিকিউ পরীক্ষা চলছিল। ওই পরীক্ষার জন্য নির্ধারিত সময় ছিল ২৫ মিনিট। কিন্তু ওই ভেন্যুতে ইউএনওর প্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্বে থাকা বাউফল উপজেলা পল্লী উন্নয়ন বোর্ডের (বিআরডিবি) প্রকল্প অফিসার তুরাল প্রামানিক তাকে পরীক্ষায় অংশ নিতে বাধা দেন। এসময় তিনি কান্না জড়িত কণ্ঠে অনেক কাকুতি মিনতি করলেও কোন লাভ হয়নি। বরং অমানুবিক আচরন করে তাকে পরীক্ষা ভেন্যু থেকে বের করে দেন। ওই সময় দায়িত্বে থাকা কয়েকজন শিক্ষক তাকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ দেয়ার জন্য ইউএনওর প্রতিনিধিকে অনুরোধ করলেও তিনি কর্ণপাত করেননি। ফলে তিনি মানুষিক ভাবে ভেঙ্গে পড়েছেন। তার শিক্ষা জীবন থেকে হারিয়ে গেল একটি বছর।

শারমীন আক্তারের বড় ভাই জাকির হোসেন বলেন, ইতিমধ্যে শারমিন ছয় বিষয়ের পরীক্ষা দিয়েছে । আর বাকি ছিল মাত্র ৪টি পরীক্ষা। কিন্তু তার আগেই আমার বোনের জীবনাটা তচনছ হয়ে গেল। আর এর জন্য দায়ী হলেন, পরীক্ষা ভেন্যুর দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিনিধি তুরাল প্রামানিক।

এ ব্যাপারে ওই ভেন্যুর দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিনিধি তুরাল প্রামানিক বলেন, “ওই ছাত্রীটি ভেন্যুতে বিলম্বে আসায় তাকে পরীক্ষায় অংশ নিতে দেয়া হয়নি। এ জন্য আমি মোটেই অনুতপ্ত নই”।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)