ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট নভেম্বর ৯, ২০১৬

ঢাকা শুক্রবার, ৭ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ২৪ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১

রাজনীতি ধরে নেবো আপনারা নিজেদের গণতান্ত্রিক চরিত্র হারিয়ে ফেলেছেন: ড. মোশাররফ

ধরে নেবো আপনারা নিজেদের গণতান্ত্রিক চরিত্র হারিয়ে ফেলেছেন: ড. মোশাররফ

ধরে নেবো আপনারা নিজেদের গণতান্ত্রিক চরিত্র হারিয়ে ফেলেছেন: ড. মোশাররফ

ধরে নেবো আপনারা নিজেদের গণতান্ত্রিক চরিত্র হারিয়ে ফেলেছেন: ড. মোশাররফ

ঢাকা, ০৯ নভেম্বর ২০১৬, নিরাপদনিউজ: বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, আমরা আপনাদের গণতান্ত্রিক চরিত্র দেখতে চাই। বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে সমাবেশ করতে আমরা আবারো ১৩ নভেম্বর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের জন্য অনুমতি চেয়েছি। যদি আমাদের অনুমতি দেয়া না হয় তাহলে আমরা ধরে নেবো, আপনারা নিজেদের গণতান্ত্রিক চরিত্র হারিয়ে ফেলেছেন। আজ বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে স্বেচ্ছাসেবক দল আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস’ শীর্ষক এ সভায় তিনি অভিযোগ করেন, বিএনপি যাতে ৭ নভেম্বর উপলক্ষে সমাবেশ পালন করতে না পারে সে কারণেই দুই ঘণ্টা আগে অনুমতি দেয়া হয়েছে। কারণ আওয়ামী লীগ বিএনপিকে ভয় পায়। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, সমাবেশের দুই ঘণ্টা আগে অনুমতি দিতে সরকার পুলিশকে বাধ্য করেছে। যাতে তারা জনগণকে বলতে পারে আমরা তো অনুমতি দিয়েছিলাম। কিন্তু বিএনপি সমাবেশ করেনি। একথা বলে সরকার জনগণকে বোকা বানাতে চাচ্ছে। তিনি বলেন, সমাবেশ করা বিএনপির সাংবিধানিক অধিকার। কিন্তু সরকার সমাবেশের অনুমতি নিয়ে ষড়যন্ত্র করে সংবিধান লঙ্ঘন করেছে।
৭ নভেম্বর বাংলাদেশের রাজনীতির টার্নিং পয়েন্ট মন্তব্য করে তিনি বলেন, বিপ্লব ও সংহতি দিবসকে সরকার ভিন্ন দিকে প্রভাবিত করে তরুণদের বিভ্রান্ত করতে চাচ্ছে। কারণ এই দিনটিকে তারা ভয় পায়। ১৯৭১ থেকে ’৭৫ পর্যন্ত যখন আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় ছিলো, ওই সময় ’৭৪ সালে আওয়ামী লীগ দেশে বাকশাল প্রতিষ্ঠিত করে দেশের সব গণমাধ্যম বন্ধ করে দিয়ে গণতন্ত্রকে হত্যা করেছিল। আর ৭ নভেম্বরের মাধ্যমে দেশে গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠিত হয়। তিনি আরো বলেন, ৭ নভেম্বর আসলে শহীদ জিয়ার নাম আসে এবং আওয়ামী লীগের ব্যর্থতার কথা মনে পড়ে, সেই কারণেই এত ভয় তাদের।
স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবুর সভাপতিত্বে এতে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল ও যুবদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এলবার্ট পি কস্টা প্রমুখ বক্তব্যে রাখেন।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)