আপডেট জানুয়ারি ৩, ২০১৯

ঢাকা মঙ্গলবার, ৫ আষাঢ়, ১৪২৬ , বর্ষাকাল, ১৪ শাওয়াল, ১৪৪০

খুলনা ধানের শীষে খুলনা বিভাগের সর্বোচ্চ ভোট পেলেন নিতাই রায়

ধানের শীষে খুলনা বিভাগের সর্বোচ্চ ভোট পেলেন নিতাই রায়

মাহামুদুন নবী, নিরাপদনিউজ : সম্প্রতি সমাপ্ত হওয়া একাদশ সংসদ নির্বাচনে খুলনা বিভাগের সংসদীয় ৩৬টি আসনের মধ্যে ধানের শীষে সবচেয়ে বেশি ভোট পড়েছে মাগুরা-২ আসনে। এ আসনের ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থি বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা অ্যাডভোকেট নিতাই রায় চৌধুরী পেয়েছেন ৫২ হাজার ৬৬৮ ভোট। মাগুরা-২ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন মহাজোটের আওয়ামীলীগ প্রার্থি অ্যাডভোকেট বীরেন শিকদার, ঐক্যফ্রন্টের বিএনপি নেতা অ্যাডভোকেট নিতাই রায় চৌধুরী এবং ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থি মুফতি মোস্তফা কামাল। সূত্রমতে, এ আসনের মোট ভোটার ৩ লক্ষ ৩৪ হাজার ৯৫৩। নির্বাচনে এর মধ্যে ভোট পড়েছে ২ লক্ষ ৯৬ হাজার ১২০। প্রদত্ত ভোটের মধ্যে বিজয়ী প্রার্থি আওয়ামীলীগ নেতা অ্যাডভোকেট বীরেন শিকদার পেয়েছেন ২ লক্ষ ২৯ হাজার ৬৫৯ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দি বিএনপি নেতা অ্যাডভোকেট নিতাই রায় চৌধুরীর ধানের শীষ প্রতিকে পড়া ৫২ হাজার ৬৬৮ ভোট খুলনা বিভাগের মধ্যে সর্বোচ্চ। খুলনা বিভাগের মধ্যে ধানের শীষ প্রতিকে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ভোট পেয়েছেন কুষ্টিয়া-২ আসনের ধানের শীষের প্রার্র্থি আহসান হাবিব লিঙ্কন। তিনি পেয়েছেন ৩৬ হাজার ৪৭৪ ভোট। তৃতীয় সর্বোচ্চ ভোট পেয়েছেন খুলনা-৫ আসনের জামায়াত নেতা মিয়া গোলাম পারওয়ার।

ধানের শীষ প্রতিকে তিনি পেয়েছেন ৩২ হাজার ৪৯৪ ভোট। খুলনা বিভাগের ৩৬টি আসনে ধানের শীষ প্রতিকে প্রতিদ্বন্দি প্রার্থিদের ভোটের চিত্র নিম্নরূপ :

মেহেরপুর-১ : আসনে বিএনপি প্রার্থি মাসুদ অরুন ১৪ হাজার ১৯৯ ভোট, মেহেরপুর-২ : জাভেদ মাসুদ মিল্টন ৭ হাজার ৭৯২, কুষ্টিয়া-১ : রেজা আহমেদ বাচ্চু ৩ হাজার ৪২০, কুষ্টিয়া-২ : আহসান হাবিব লিঙ্কন ৩৬ হাজার ৪৭৪, কুষ্টিয়া-৩ : জাকির হোসেন সরকার ১৪ হাজার ৩৭৯, কুষ্টিয়া-৪ : সৈয়দ মেহেদি হাসান রুমি ১২ হাজার ৩১৯, চুয়াডাঙ্গা-১ : মো. শরিফুজ্জামান ২৪ হাজার ৪০৩, চুয়াডাঙ্গা-২ : মাহমুদুর রহমান খান ২৭ হাজার ১৩০, ঝিনাইদহ-১ : আসাদুজ্জামান ৬ হাজার ৬৬২, ঝিনাইদহ-২ : ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থি ফখরুল ইসলাম ৯ হাজার ২৯৩, ঝিনাইদহ-৩ আসনের বিএনপি প্রার্র্থি ৩২ হাজার ২৪৯, ঝিনাইদহ-৪ : সাইফুল ইসলাম ফিরোজ ৯ হাজার ৪৪২, যশোর-১ : মফিকুল হাসান তৃপ্তি ৪ হাজার ৮০২, যশোর-২ : জামায়াত নেতা মুহাদ্দিস আবু সাঈদ ১২ হাজার ৯৮৮, যশোর-৩ : অনিন্দ্য ইসলাম অমিত ৩১ হাজার ৭১০, যশোর-৪ : টিএস আইয়ুব ২৫ হাজার ৯১৯, যশোর-৫ : মুফতি মুহাম্মদ ওয়াক্কাস ২৩ হাজার ১১২, যশোর-৬ : আবুল হোসেন আজাদ ৫ হাজার ৫৪৮, মাগুরা-১ : মনোয়ার হোসেন খান ১৬ হাজার ৬০৬, মাগুরা-২ : অ্যাডভোকেট নিতাই রায় চৌধুরী ৫২ হাজার ৬৬৮, নড়াইল-১ : বিশ্বাস জাহাঙ্গীর আলম ৮ হাজার ৯১৯, নড়াইল-২ : এজেড ফরিদুজ্জামান ৭ হাজার ৮৮৩, বাগেরহাট-১ : প্রকৌশলী মাসুদ রানা ১১ হাজার ৪৮৫, বাগেরহাট-২ : এমএ সালাম ৪ হাজার ৫৯৭, বাগেরহাট-৩ : অ্যাডভোকেট আবদুল ওয়াদুদ ১৩ হাজার ৪৭৫, বাগেরহাট-৪ : অধ্যক্ষ আবদুল আলিম ২ হাজার ২৪২, খুলনা-১ : এজাজ খান ২৮ হাজার ৫৮৯, খুলনা-২ : নজরুল ইসলাম মনজু ২৭ হাজার ৩৭৯, খুলনা-৩ : রকিবুল ইসলাম ২৩ হাজার ৬০৬, খুলনা-৪ : আজিজুল বারি হেলাল ১৪ হাজার ১৮৭, খুলনা-৫ : জামায়াত নেতা মিয়া গোলাম পারওয়ার ৩২ হাজার ৪৯৪, খুলনা-৬ : জামায়াত নেতা আবুল কালাম আজাদ ১৯ হাজার ১০৫, সাতক্ষিরা-১ : হাবিবুল ইসলাম হাবিব ১৬ হাজার ৯০২, সাতক্ষিরা-২ : জামায়াত নেতা মুহাম্মদ আবদুল খালেক ২০ হাজার ৬৯৩, সাতক্ষিরা-৩ : শহিদুল আলম ২৪ হাজার ৩৫৩, সাতক্ষিরা-৪ : জামায়াত নেতা জিএম নজরুল ইসলাম ৩০ হাজার ৪৮৬ ভোট।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)