ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট এপ্রিল ৮, ২০১৯

ঢাকা শনিবার, ৬ শ্রাবণ, ১৪২৬ , বর্ষাকাল, ১৬ জিলক্বদ, ১৪৪০

রাজশাহী, সড়ক সংবাদ ধুনটে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশেই গাড়ী পার্কিং: ভোগান্তিতে শিক্ষার্থীসহ সাধারন মানুষ

ধুনটে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশেই গাড়ী পার্কিং: ভোগান্তিতে শিক্ষার্থীসহ সাধারন মানুষ

কারিমুল হাসান লিখন, ধুনট,নিরাপদ নিউজ: বগুড়ার ধুনটে পাকিং ব্যবস্থা না থাকায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশের সড়কেই সিএনজি গুলো সারিবদ্ধ ভাবে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। একদিকে পাকিং ব্যবস্থা যথাযথ সময়ে না হওয়ায় ও উপজেলার পৌরসভা এলাকার সড়ক গুলোর বেহাল অবস্থার কারনে ভোগান্তিতে পড়েছে স্কুল কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীসহ পরিবহন ও সাধারন মানুষ। ধুনট থানার মোড় থেকে শুরু করে ধুনট বাজার পর্যন্ত সড়কের দুপাশে রয়েছে থানা, সাবঃরেজিষ্ট্রি অফিস, সরকারী হাসপাতাল, পল্লি বিদ্যুৎ অফিস, স্কুল।
ব্যাস্ততম এ সড়কের বেহাল অবস্থার কারনে প্রতিদিন ঝুকি নিয়ে চলাচল করছে যাত্রীবাহী সিএনজিসহ বিভিন্ন যানবাহন। সম্প্রতি এইচএসসি পরীক্ষা শুরু হওয়ায় পরীক্ষার্থীদের অনেটাই ঝুকির মধ্যে দিয়ে আসতে হচ্ছে পরীক্ষা কেন্দ্রে।  শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশে এভাবে গাড়ি থাকলে যে কোন সময় শিক্ষার্থীরা দুর্ঘটনার স্বিকার হতে পারে। অন্যদিকে গাড়ি পাকিং এর জন্য নির্ধারিত স্থানের কাজ সম্পুর্ন না হওয়ায় সড়কের উপর সাময়ীক গাড়ি যানযট সৃষ্টি হয়েছে বলে জানান পরিবহন সংশ্লিষ্টক। তবে গাড়ি পাকিং এর নির্ধারিত স্থানের কাজ চলছে অচিরেই প্রতিষ্ঠানের পাশে সড়কের উপর সৃষ্ট যানযট থাকবে না বলেও জানান সিএনজি পরিবহন সংশ্লিষ্টক।
অপর দিকে ধুনট বাজার থেকে হুকুমআলী পর্যন্ত সড়কের পাশে রয়েছে হোন্ডা প্যালেসসহ বিভিন্ন বড় বড় কম্পানীর শোরুম, ফায়ার ষ্টেশন। শুধু মাত্র ধুনট বাজার কেন্দ্রিক আশে পাশের সড়কের বেহাল অবস্থা ও অতিরিক্ত যানযটের কারনে সময়মত গন্তব্যে পৌছেতে পারেনা ফায়ার সাভির্সের গাড়িসহ অনেক যানবাহন। শিক্ষার্থীদের স্কুল কলেজে পৌঁছতে দেরি হচ্ছে প্রতি নিয়ত। সামান্য বৃষ্টিতে যখন সড়কে কাদাসহ পানি জমে তখন আর ভোগান্তির কোন সিমা থাকেনা।
সড়কের বেহাল অবস্থা ও এখন পর্যন্ত নির্দ্দিষ্ট স্থানের যথাযথ ব্যবস্থা না হওয়ায় যাত্রীবাহী সিএনজি গুলো রাস্তার পাশে ও স্কুলের পাশে সাড়িবদ্ধ ভাবে দ্বাড় করিয়ে রাখা হয়। যানযট নিরসনসহ সড়কের এমন দুর্ভোগ ও বেহাল অবস্থা থেকে মুক্তি পেতে সড়ক সংশ্লিষ্ট জন প্রতিনিধিদের হস্তক্ষেপ কারনা করেন শিক্ষার্থীদের অবিভাবক, সাধারন মানুষ, সিএনজি চালকসহ আরো অনেকে।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)