ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট আগস্ট ২০, ২০১৯

ঢাকা সোমবার, ২ আশ্বিন, ১৪২৬ , শরৎকাল, ১৭ মুহাররম, ১৪৪১

শিল্প-সংস্কৃতি নতুন আয়োজনে কণ্ঠশিল্পী মেসবাহ’র ‘আবার দেখা হলে’

নতুন আয়োজনে কণ্ঠশিল্পী মেসবাহ’র ‘আবার দেখা হলে’

নিরাপদ নিউজ: গানবাংলা চ্যানেলের ‘উইন্ড অব চেঞ্জ’ অনুষ্ঠানে মেসবাহ আহমেদের গাওয়া ‘আবার দেখা হলে’ গানটি প্রচারের পর থেকে আবার নতুন করে শ্রোতাদের মন জয় করে চলেছে। গানটি নিয়মিত প্রচার হচ্ছে এবং সাড়ে পাচ্ছেন বলে জানান মেসবাহ। এই ব্যাপারে মেসবাহ আহমেদ বলেন, আবার দেখা হলো গানটি কৌশিক হোসেন তাপস নুতন করে সঙ্গীতায়োজন করেছেন অত্যন্ত মনের মতো করে। তাই গানটি নিয়েও সবার কাছ থেকে দারুণ সাড়া পাচ্ছি। গানবাংলার সুন্দর আয়োজনের কারণে আবারো আমার গানটি সবার কাছে পৌঁছে যাচ্ছে। এজন্য কৌশিক হোসেন তাপস ও ফারজানা মুন্নী ভাবীকে অসংখ্য ধন্যবাদ ও সম্মান জানাচ্ছি।
উল্লেখ্য, ১৯৯৯ সালের গাওয়া মেসবাহ’র কন্ঠে ‘আবার দেখা হলে’ গানটি অডিও ভিডিওতে সেসময় জনপ্রিয় ছিল। গজল গানে মেসবাহ’র পরিচিতি ও জনপ্রিয় আছে। এজন্য মেসবাহ ২০০৫ সালে গজল গানের জন্য ডেইলি স্টার পার্সোনালিটি পুরস্কার পেয়েছেন। মেসবাহ বলেন, বড় পুরস্কার পেলে মনও বড় হয়। নুতন করে নতুন গানে কাজ করতে ভালো লাগে। তাছাড়া শ্রোতা ভক্তদের ভালবাসাটাই অনেক দামী। যতদিন বাঁচবো গানে গানে বাকি জীবনটা পার করে দিতে চাই। গেল ইদে টিবিএন চ্যানেলে ইদের তৃতীয় দিন আমাকে নিয়ে একটা একক অনুষ্ঠান প্রচার হয়েছে। অনুষ্ঠানটি নিয়ে বেশ সাড়া পেয়েছি। বর্তমানে ৮ টি গান নিয়ে একজন শিল্পীর জন্য নিজের সংগীত পরিচালনায় একটি প্রজেক্ট করছি। তাছাড়া নিজের জন্য গজলের ১০টি গানের একটি পুরো অ্যালবাম করছি, যা ইউটিউব চ্যানেলে মুক্তি দেবো। এরইমধ্যে মেসবাহ নিজেই দুটি আধুনিক গেয়েছেন, একটি রংধনু মেয়ে ও অন্যটি হলো হাজার বছর’। গোলাম মোর্শেদের লেখা আমার সুর সংগীতে ফাহমিদা নবী আপার একটা পুরো অ্যালবাম রেডি আছে। তাছাড়া অচিরেই নিজের ইউটিউব এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করতে চান। যেখান নিজের গানের সাজানো একটি আর্কাইভ থাকবে। তা শ্রোতাদের এবং গজল ভক্তদের কথা মাথায় রেখে ইউটিউব চ্যানেলটি আপডেট করতে চান মেসবাহ। সবকিছু মিলিয়ে মেসবাহ সুর, সংগীত ও নিজের গান নিয়ে স্টেজ, টেলিভিশন ও স্টুডিওতে ব্যস্ততায় দিন পার করছেন বলে জানা যায়।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)