আপডেট মে ৬, ২০১৫

ঢাকা রবিবার, ২৩ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ৯ রবিউস-সানি, ১৪৪১

বিলিভ ইট অর নট নিজেই নিজের অপারেশন করে অস্বম্ভবকে সম্ভব করেছিলেন যিনি!

নিজেই নিজের অপারেশন করে অস্বম্ভবকে সম্ভব করেছিলেন যিনি!

পাঁচ দশক পর এ বিষয়ে বিস্তারিত জানিয়েছেন সার্জন লিওনিদের ছেলে ভ্লাদিস্লাভ

পাঁচ দশক পর এ বিষয়ে বিস্তারিত জানিয়েছেন সার্জন লিওনিদের ছেলে ভ্লাদিস্লাভ

০৬ মে ২০১৫, নিরাপদ নিউজ :  অ্যান্টার্কটিকায় তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়ন কর্তৃক ঘাঁটি নির্মাণের এক অভিযানে যোগ দিয়েছিলেন সার্জন লিওনিদ রগোজভ। কাজের এক পর্যায়ে লিওনিদ গুরুতর অসুস্থবোধ করেন এবং তার জরুরি অপারেশনের প্রয়োজন দেখা দেয়। কিন্তু ওই দলে তিনিই ছিলেন একমাত্র চিকিৎসক। ২৭ বছর বয়সী লিওনিদ তখন নিজেই নিজের অপারেশন করতে বাধ্য হন। তার সাহসিকতার এ ঘটনা তখন বেশ আলোড়ন তুলেছিল।

পাঁচ দশক পর এ বিষয়ে বিস্তারিত জানিয়েছেন সার্জন লিওনিদের ছেলে ভ্লাদিস্লাভ । তিনি বলেন, সার্জন হিসেবে এমন অপারেশন বাবার জন্য কঠিন কিছু ছিল না। তবে নিজেই নিজের অপারেশন করার ব্যাপারটা বেশ চমকে যাওয়ার মতোই।

সার্জন লিওনিদ ছিলেন ষষ্ঠ সোভিয়েত অ্যান্টার্কটিক অভিযানের ১২ জনের দলের সদস্য। ১৯৬১ সালের ওই অভিযানে তারা সেখানে
নভোলেজারেভস্কায়া গবেষণা ঘাঁটি তত্ত্বাবধানের দায়িত্বে ছিলেন। এ সময় সার্জন লিওনিদ অ্যাপেন্ডিসাইটিসের যন্ত্রণায় নিজের মৃত্যুর আশঙ্কা করেন। এদিকে তখন ছিল স্নায়ুযুদ্ধের কাল। সফলভাবে কাজ শেষ করাটা সোভিয়েত ইউনিয়নের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ছিল।

তাই বেঁচে থাকার জন্য লিওনিদ নিজেই অপারেশনের পরিকল্পনা করেন। এ কাজে সহযোগিতার জন্য দু’জনকে বাছাই করেন। তারা প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি, লাইট সরবরাহ এবং আয়না স্থাপনে সহায়তা করেন, যাতে লিওনিদ তাতে নিজেকে দেখে কাজ করতে পারেন। তিনি ভালোভাবেই পেট কেটে প্রয়োজনীয় কাজ করতে সমর্থ হন।

কিন্তু হঠাৎ তার জ্ঞান হারানোর উপক্রম হয়। প্রচুর রক্তপাতের কারণে লিওনিদ দুর্বল হয়ে পড়েন। লিউনিদ তখন নিজের মনকে শক্ত করার চেষ্টা করেন। পরে তিনি ভেতরে অ্যাপেন্ডিক্সের সন্ধান পান। তিনি দেখেন, একদিন পরেই সেটি ফেটে যাওয়ার আশঙ্কা ছিল। পরে তিনি অ্যাপেন্ডিক্স অপসারণ করেন। দুই ঘণ্টার এ অপারেশনে তার কাছে ছিল জীবন-মৃত্যুর লড়াই। এর দুই সপ্তাহ পরে লিউনিদ স্বাভাবিক কাজে ফেরেন।

সুত্রঃ বিবিসি

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)