ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ৩৯ মিনিট ৩ সেকেন্ড

ঢাকা রবিবার, ১৩ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ , গ্রীষ্মকাল, ২১ রমযান, ১৪৪০

ব্যবসা-বাণিজ্য নিত্যপণ্যের দাম সহনীয় রাখতে প্রতিদিন অভিযান চলবে: বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি

নিত্যপণ্যের দাম সহনীয় রাখতে প্রতিদিন অভিযান চলবে: বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি

নিরাপদনিউজ:  নিত্যপণ্যের দাম সহনীয় রাখতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট সংস্থা প্রতিদিন রাজধানীর ৮টি বাজারে অভিযান চালাবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। তিনি বলেন, রমজানে প্রতিদিন মন্ত্রণালয়ের চারটি ও ভোক্তা অধিকারের চারটি দল রাজধানীর বিভিন্ন বাজারে অভিযান পরিচালনা করবে। আগে দু’টি বাজারে অভিযান পরিচালনা করা হতো, এখন তা বাড়িয়ে ৮টি করা হয়েছে। এখন থেকে শুক্র ও শনিবারও অভিযান পরিচালনা করা হবে।

মঙ্গলবার (৩০ এপ্রিল) সচিবালয়ে ‘জাতীয় ভোক্তা দিবস-২০১৯’ উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী এ কথা বলেন। এসময় বাণিজ্য সচিব মফিজুল ইসলাম, ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সফিকুর ইসলাম লস্কর প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বাজারে দ্রব্যমূল্য সহনীয় অবস্থায় আছে। তবে কিছু পণ্যের দাম যেমন দুই/এক টাকা বেড়েছে, তেমনি কিছু পণ্যের দাম কমেছেও। বিগত ২০১৭ আর ২০১৮ সালের রমজানের সময় যে দাম ছিল তার চেয়ে এখন দাম অনেকটাই কমেছে। কোনো কোনো জায়গায় দাম বেড়েছে, কিন্তু সব জায়গায় না।

তিনি বলেন, বাজারে দ্রব্যমূল্য নিয়ে আমরা সার্বিকভাবে সন্তুষ্ট। এবার রমজানে  মানুষের উপর চাপ পড়বে না। চালের দাম কমেছে, তাই কৃষকদের কাছ থেকে চাপ আসছে। রোজাকে সামনে রেখে আমাদের মনিটরিং টিম যথেষ্ট সচেতন আছে। অনিয়ম হলে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালাচ্ছে, জরিমানা করছে।

টিপু মুনশি বলেন, বর্তমানে বাজারে শাক সবজির দামসহ পিঁয়াজ ও চিনির দাম কিছুটা বেড়েছে। তবে দেশের বাজারে বৃহত্তর ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান সিটি গ্রুপ তেলের দাম দুই টাকা কমানোর ঘোষণা দিয়েছে। রোজাকে সামনে রেখে ছোলার দাম বাড়ার সুযোগ নেই। ছোলা যা দরকার তার চেয়েও বেশি মজুদ রয়েছে।

উৎসবকে কেন্দ্র করে পথে পথে চাঁদাবাজি হয় এমন প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, অসাধু ব্যবসায়ীরা দাম বাড়ানোর চেষ্টা করে, সেটি আমরা দেখছি। চাঁদাবাজি নিয়ন্ত্রণের বিষয়টিও দেখা হচ্ছে। আমরা পুলিশ ও প্রশাসনকে বলেছি রাস্তার চাঁদাবাজি বন্ধ করতে হবে। নইলে তা পণ্যের উপর প্রভাব পড়ে। এখনও চাঁদাবাজির অভিযোগ পাইনি। আমরা শক্তভাবে নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করছি। এবারই প্রথম জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ঠ সবাইকে এ বিষয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, জরিমানা বা জেল দেওয়া আমাদের মূল উদ্দেশ্য নয়। আমরা ভোক্তাদের সচেতন করতে চাই। যাতে তারা না ঠকে। এছাড়া বিক্রেতাদের রশিদ দিতে বাধ্য করা হবে। এক্ষেত্রে ক্রেতাদেরও ভূমিকা পালন করতে হবে। ভোক্তারা সচেতন হলে কোনো অসাধু ব্যবসায়ী সুযোগ নিতে পারবে না।

বাজারে মাংসের দাম বেড়ে গেছে জানিয়েছে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, গত কয়েক সপ্তাহ ধরে মাংসের দাম বেড়ে গেছে। এ বিষয়ে সবার সঙ্গে বসে মাংসের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে। যাতে সেটি ঠিক রাখা যায়, আমরা দেখবো। আগে আমাদের মাংসের যোগান আসতো আশেপাশের দেশ থেকে। এখন তা বন্ধ আছে। যারা পশু পালন করে তাদেরকে এ বিষয়টি উৎসাহিত করেছে। শহরেই মাংসের দাম কিছুটা বেড়েছে, গ্রামে বাড়েনি। আমরা সিটি করপোরেশনের মেয়রদের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করে ব্যবস্থা নেবো বলে জানান বাণিজ্যমন্ত্রী।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, আগামী ২ মে (বৃহস্পতিবার) বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে জাতীয় পর্যায়ে বিশ্ব ভোক্ত দিবস উদযাপিত হবে। দিবসটিতে তিন হাজার লোকের উপস্থিতিতে বর্ণাঢ্য র‌্যালির আয়োজন করা হয়েছে। এছাড়াও ১ মে থেকে ৩ মে ঢাকায় ব্যাপক প্রচারণার স্বার্থে বাউল প্রচার সংস্থা কর্তৃক ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন-২০০৯ এর উপর গান প্রচার করা হবে।

এবার বিশ্বভোক্তা অধিকার দিবসের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘মানসম্মত নিরাপদ পণ্য’। ভোক্তাদের কেনা পণ্য মানসম্মত ও নিরাপদ হয় এ বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্য জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর কাজ করে যাচ্ছে।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)