আপডেট এপ্রিল ২৪, ২০১৭

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ৫ আশ্বিন, ১৪২৬ , শরৎকাল, ২০ মুহাররম, ১৪৪১

টেনিস নিষেধাজ্ঞা শেষে ফিরছেন শারাপোভা

নিষেধাজ্ঞা শেষে ফিরছেন শারাপোভা

নিষেধাজ্ঞা শেষে ফিরছেন শারাপোভা

২৪ এপ্রিল ২০১৭, নিরাপদ নিউজ : একজন গায়কের কাছ থেকে গিটার, একজন চিত্রশিল্পীর কাছ থেকে রং-তুলি কেড়ে নেওয়ার কষ্ট শুধু ওই গায়ক কিংবা ওই চিত্রশিল্পীই বুঝবেন। মারিয়া শারাপোভাও নিজেকে মনে করেন টেনিস কোর্টের একজন শিল্পী। র‍্যাকেটের এক একটি আঁচড়ে মোহিত করতেন দর্শকদের। আর সেই কোর্ট থেকে তাকে বিচ্ছিন্ন থাকতে হয়েছে দীর্ঘ ১৫ মাস!

দম আটকে যাওয়া অবস্থা থেকে আজ আবার মুক্তি পাচ্ছেন রুশ টেনিসকন্যা। নিষিদ্ধ মেলডোনিয়াম নেওয়ার শাস্তি পিছনে ফেলে আবার কোর্টে নামছেন পাঁচবারের গ্র্যান্ড স্লাম জয়ী। মঞ্চ হিসেবে পাচ্ছেন প্রিয় কোর্ট জার্মানির স্টুটগার্ট ওপেন। প্রতিপক্ষ ইতালির রবার্তা ভিঞ্চি।

অস্ট্রেলিয়ান ওপেন ২০১৬তে কোয়ার্টার ফাইনালে সেরেনা উইলিয়ামসের সঙ্গে হারের পর ওয়ার্ল্ড অ্যান্টি-ডোপিং এজেন্সির (ওয়াডা) কাছে ডোপ পরীক্ষার জন্য নমুনা প্রদান করেছিলেন পাঁচবারের গ্র্যান্ড স্লাম জয়ী। নমুনা বিশ্লেষণ করে সে বছর ২ মার্চ শারাপোভাকে মেলডোনিয়াম সেবনের দায়ে অভিযুক্ত করে ওয়াডা। পরে নিজে সংবাদ সম্মেলন ডেকে সবাইকে বিষয়টি জানান।

এরপর প্রাথমিকভাবে দুই বছরের নিষেধাজ্ঞা পান রাশিয়ান টেনিসকন্যা। গত বছরের অক্টোবরে কোর্ট অব আর্বিট্রেশন ফর স্পোর্টসে আপিলের প্রেক্ষিতে তার নিষেধাজ্ঞা ৯ মাস কমানো হয়।

আজ যখন কোর্টে ফিরছেন তখন টেনিসে বদলে গেছে অনেক কিছু। আরেকবার অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জিতে সেরেনা উইলিয়ামস নিজেকে নিয়ে গেছেন অনন্য উচ্চতায়, গার্বিন মুগুরুজা তখন পর্যন্ত গ্র্যান্ড স্লাম চ্যাম্পিয়ন ছিলেন না, শারাপোভার কঠোর সমালোচক অ্যাঞ্জেলিক কারবার তার অনুপস্থিতিতে জিতেছেন দুটি বড় শিরোপা। যখন টেনিস থেকে বাইরে চলে গিয়েছিলেন, তখনই ফর্ম কিছুটা পড়তির দিকে ছিল শারাপোভার। বয়সও হয়ে গেছে ৩০। রুশ কন্যা কি পারবেন আবার আগের মতো টেনিস মাতাতে?

শারাপোভা আশাবাদী। কয়েকদিন আগে ফ্রান্সের দ্য প্যারিসিয়ান পত্রিকাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে পাঁচবারের গ্র্যান্ড স্লাম জয়ী বলেন, ‘এখন একমাত্র লক্ষ্য হচ্ছে আবার চ্যাম্পিয়ন হওয়া। জানি দীর্ঘ বিরতির পর এটা কঠিন হবে। ‘

গত জানুয়ারিতে স্টুটগার্ট ওপেন খেলার জন্য ওয়াইল্ড কার্ড পেয়েছিলেন শারাপোভা। এই ওয়াইল্ড কার্ড দেওয়া নিয়েই তার সমালোচনায় মেতে উঠেছিলেন অ্যান্ডি মারে-কারবাররা। তাদের মতে, আইনিভাবে বৈধ হলেও শারাপোভাকে ওয়াইল্ড কার্ড দেওয়া ঠিক হচ্ছে না।

শারাপোভা বলেছিলেন, ‘আমি আমার শাস্তি ভোগ করছি। তাই সমালোচনা কেন? আমাকে আরো বেশি শাস্তি দেওয়ার কি কোনো কারণ আছে? আমি এমনটি মনে করি না। যখন আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ ও শাস্তির সামগ্রিক বিষয় কিছুটা অজানা ছিল, তখন সবার আমাকে বিচার করে মতামত দেওয়ার অধিকার ছিল। কিন্তু নিরপেক্ষ কোর্ট অব আর্বিট্রেশন ফর স্পোর্ট এর মাধ্যমে আমার বৈচারিক প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে। এখনো সমালোচনা কেন? আমি বলব-আপনারা থামুন। যদি খেলোয়াড়রা আমার সমালোচনায় মেতে থাকেন, আমি বলব-এটা ঠিক নয়। ‘

কোর্টেও মারেদের একটি জবাব নিশ্চয়ই দিতে চাইবেন রুশ কন্যা। জার্মানির এই আসরে শারাপোভার সুখস্মৃতিও দীর্ঘ। স্টুটগার্ট ওপেনে ২০১২-১৪ টানা তিনবার শিরোপা জিতেছিলেন তিনি।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)