ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট August ২৬, ২০১৯

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ৩০ কার্তিক, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ১৭ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১

অপরাধ, চট্টগ্রাম নোয়াখালীতে গোসলের ভিডিও করে গৃহবধূকে ধর্ষণ, প্রতিবাদে স্বামীকে অ্যাসিড নিক্ষেপ

নোয়াখালীতে গোসলের ভিডিও করে গৃহবধূকে ধর্ষণ, প্রতিবাদে স্বামীকে অ্যাসিড নিক্ষেপ

নিরাপদ নিউজ: নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলায় ধর্ষণের শিকার এক নারীর স্বামীর (৩৫) ওপর অ্যাসিড নিক্ষেপের অভিযোগ পাওয়া গেছে। রোববার দিবাগত রাত তিনটার দিকে টয়লেটে যাওয়ার জন্য বাড়ির বাইরে এলে ওই নারীর স্বামীকে অ্যাসিড নিক্ষেপ করা হয় বলে অভিযোগ পরিবারটির। দগ্ধ ব্যক্তিকে রাতেই নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

অ্যাসিডদগ্ধ ব্যক্তির মা বলেন, কয়েক মাস আগে তার পুত্রবধূর গোসলের দৃশ্য গোপনে মুঠোফোনে ধারণ করেন জয়নাল। পরে ওই ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়ার কথা বলে একাধিকবার পুত্রবধূকে ধর্ষণ করে। একপর্যায়ে পুত্রবধূ প্রতিবাদ করলে ক্ষিপ্ত হয়ে জয়নাল ভিডিওটি বিভিন্ন ব্যক্তির কাছে ছড়িয়ে দেন। এ ঘটনায় গত ২২ মে তার ছেলে বাদী হয়ে নোয়াখালীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২-এ জয়নালকে আসামি করে মামলা করেন। ৩ জুন জয়নাল পাল্টা বাদী হয়ে তিনি, তার স্বামী, ছেলে, পুত্রবধূসহ পাঁচজনকে আসামি করে আদালতে একটি মামলা করেন।

তিনি জানান, ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত জয়নালের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে রোববার একটি মানববন্ধনে তিনিসহ পরিবারের সদস্যরা অংশ নেন। মানববন্ধন শেষে দুপুরে তারা বাড়ি ফেরেন। পরে রাতের খাবার খেয়ে তারা সবাই ঘুমিয়ে পড়েন। রাত আনুমানিক তিনটার দিকে তার ছেলে টয়লেটে যাওয়ার জন্য ঘর থেকে বের হলে ছেলেকে লক্ষ্য করে অ্যাসিড নিক্ষেপ করে পালিয়ে যান কয়েকজন দুর্বৃত্ত। এ সময় চিৎকার শুনে তিনিসহ পরিবারের সদস্যরা গিয়ে ছেলেকে দগ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করেন। রাতেই হাসপাতালে ভর্তি করেন।

তার দাবি, ধর্ষণের ঘটনার প্রতিবাদে মানববন্ধন করার কারণেই তার ছেলের ওপর অ্যাসিড নিক্ষেপ করা হয়েছে। অ্যাসিডে ছেলের পিঠ, হাত ও ঊরুর বেশ কিছু অংশ ঝলসে গেছে। জয়নাল ও তার লোকজনই এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত।

হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের চিকিৎসক সৈয়দ কামরুল ইসলাম বলেন, দগ্ধ ব্যক্তির অবস্থা দেখে মনে হয়েছে, অ্যাসিড-জাতীয় কোনো দাহ্য পদার্থ নিক্ষেপ করা হয়েছে। এতে তার শরীরের প্রায় ৮ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। তাকে হাসপাতালে প্রয়োজনীয় চিকিৎসাসেবা দেয়া হচ্ছে।

ধর্ষণ ও অ্যাসিড নিক্ষেপের ঘটনায় জড়িত নন দাবি করে জয়নাল জানান, ওই নারীর স্বামী তার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করে যে মামলা করেছিলেন, তা পুলিশি তদন্তে মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে। অ্যাসিড নিক্ষেপের ঘটনা নিয়েও তিনি কিছু জানেন না।

সুবর্ণচরের চরজব্বর থানার ওসি মোহাম্মদ সাহেদ উদ্দিন বলেন, রাতে টহল পুলিশ ওই এলাকায় ছিল। রাস্তায় সিএনজিচালিত অটোরিকশায় করে দগ্ধ ব্যক্তিকে হাসপাতালে নেয়ার সময় পুলিশ কী হয়েছে জিজ্ঞেস করলেও সঙ্গের লোকজন কিছু বলেনি। অ্যাসিড নিক্ষেপের কথা আজ সকালে শুনেছি। অভিযোগ পেলে যথাযথ পদক্ষেপ নেয়া হবে।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)