ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট এপ্রিল ২৪, ২০১৯

ঢাকা শনিবার, ১২ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ , গ্রীষ্মকাল, ২০ রমযান, ১৪৪০

ভ্রমন পশ্চিমবঙ্গের তাঁজপুর নির্জন সৈকত

পশ্চিমবঙ্গের তাঁজপুর নির্জন সৈকত

নাসিম রুমি, ২৪ এপ্রিল ২০১৯, নিরাপদ নিউজ : তাঁজপুর পশ্চিমবঙ্গের কলকাতার সবচেয়ে নির্জন সৈকত। মাত্র ৩/৪ ঘন্টার যাত্রায় একাধিক বিচ রয়েছে, যারা সমুদ্র সৈকতের নির্জনতা পছন্দ করেন তাদের জন্য তাঁজপুর সবচেয়ে উত্তম সৈকত। হানিমুনের জন্য তাঁজপুর সবচেয়ে শ্রেষ্ঠ স্থান আর সৌন্দর্যেরও অভাব নেই। এই নিয়ে আমার তাঁজপুর দুইবার ভ্রমণ করা হলো। সত্যিই তাঁজপুর নির্জন সৈকত ভবিষ্যতে এ সোন্দর্য থাকবে কিনা আমি বলতে পারি না।

তাঁজপুরের অভিজাত রিসোর্ট মৌচাকে লেখক

কেন যাবেন সমুদ্র বিলাসী পর্যকদের জন্য কলকাতার খুব কাছেই তাজপুর সাগরবেলা। দীঘা,মন্দারমণি, শস্করপুর প্রভৃতি জায়াগাগুলি পর্যটকে আকীর্ণ হয়ে গেলেও এখনও নির্জনতা রয়েছে তাজপুর। যারা সমুদ্রস্নান করতে ভালোবাসের তাদের জন্য আর্দশ এই তাজপুর। কারণ এখ নে সমুদ্রতট খুব শক্ত ও পায়ের তলার বালি সরে যায় না ফলে সমুদ্রস্নান অত্যন্ত নিরাপদ। ঝাউবনের মধ্যদিয়ে পথ গিয়েছে সৈকতের পানে।

তাঁজপুর সৈকতের ঝাউবন

ঝাউয়ের ছওয়ায় হাঁটতে হাঁটতে চোখ পড়েবে ময়না, বুলবুলি, টিয়া সহ নানান পাখি সমুদ্রের ধার ধরে ঝাউবন চলে গেছে বহু দূরে। ঝাউ ছাড়াও রয়েছে আকাশমনি, কেয়া আর কাজু বনের জঙ্গল। তাজপুরের রিসর্ট থেকে এক কিমি দূরে রয়েছে একটা লবনাক্তজলের লেগুন। লেগুনের অপর পাড়ে মন্দারমণি। সূর্যাস্তেরও প্রশস্তি রয়েছে তাজপুরের। তবে তাজপুরের সূর্যাস্ত সমুদ্রের মধ্যে হয় না ঝাউবনের আড়ালে সূর্য ধীরে ধীর মুখ লুকায়।

কিভাবে যাবেন

কলকাতা থেকে তাজপুর সাগরবেলা দূরত্ব ১৭০ কিমি। গাড়িতে সময় লাগে চার ঘন্টার মত। আর বাসে গেলে দীঘাগামী বাসে চড়ে নামতে হবে বালিসাই মোড়ে। সেখান থেকে যন্ত্রচালিত ভ্যান তিন কিমি গেলেই তাজপুর। আর ট্রেন গেলে নামতে হবে কাঁথি ষ্টেশনে কাঁথি থেকে গাড়িতে তাজপুর ২৩ কিমি। তাজপুরে থাকার একাধিক রিসর্ট রয়েছে এর মধ্যে মৌচাক রিসর্ট অন্যতম। থাকতে পারেন স্বপ্নপরি রিসর্টেও এ দুটি রিসর্টের ভাড়া ১০০০ থেকে ২৫০০ রূপি। তবে গরমের দিনে তাঁজপুর এড়িয়ে যাওয়াই উত্তম শীতকালে পর্যটকদের ঢল নামে আর বর্ষাকালে তাঁজপুর সৈকত ভংকররূপে দেখা যায়।

নাসিম রুমি, সাংবাদিক, লেখক ও পর্যটক

 

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)