আপডেট ২৪ মিনিট ৪৩ সেকেন্ড

ঢাকা বুধবার, ৫ আষাঢ়, ১৪২৬ , বর্ষাকাল, ১৫ শাওয়াল, ১৪৪০

নদীবন্দর সংবাদ, লিড নিউজ বঙ্গবন্ধুর ছবি বিকৃত করে আমন্ত্রণপত্র ছাপানোর অভিযোগে সাবেক ইউএনওকে কারাগারে; ২ ঘণ্টা পর জামিন

বঙ্গবন্ধুর ছবি বিকৃত করে আমন্ত্রণপত্র ছাপানোর অভিযোগে সাবেক ইউএনওকে কারাগারে; ২ ঘণ্টা পর জামিন

বরগুনা সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা তারিক সালমান

১৯ জুলাই ২০১৭, নিরাপদ নিউজ : বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি বিকৃত করে আমন্ত্রণপত্র ছাপানোর অভিযোগে দায়ের করা মামলায় বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার সাবেক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও বর্তমানে বরগুনা সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা তারিক সালমানকে কারাগারে পাঠানোর দুই ঘণ্টা পর বিশেষ বিবেচনায় জামিন দিয়েছে আদালত।

আজ বুধবার বেলা ১১টায় বরিশাল চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজিরা দিতে গেলে আদালতের বিচারক মোঃ আলী হোসাইন তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

মামলার বাদী বরিশাল জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ ওবায়েদুল্লাহ সাজু জানান, আসামি তারিক সালমান আগৈলঝাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দায়িত্ব পালনকালে চলতি বছরের ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালন উপলক্ষে একটি আমন্ত্রণপত্র ছাপিয়েছেন। ওই আমন্ত্রণপত্রের পেছনের পৃষ্ঠায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি বিকৃত করে ছাপানো হয়। তিনি (বাদি) আমন্ত্রণপত্রে বঙ্গবন্ধুর বিকৃত ছবি দেখে মর্মাহত হন।

পরে গত ৭ জুন ওই ইউএনওর বিরুদ্ধে পাঁচ কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ দাবি করে আদালতে একটি মানহানিকর মামলা করেন ওবায়েদুল্লাহ সাজু।

বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে ইউএনও তারিক সালমানের বিরুদ্ধে সমন জারি করেন। তারই পরিপ্রেক্ষিতে বুধবার তিনি (ইউএনও) আদালতে হাজিরা দিতে গিয়ে সন্তোষজনক উত্তর দিতে না পারায় তাকে কারাগারে পাঠান বিচারক।

এদিকে ঘটনার পর বিষয়টির ব্যাখ্যা দিয়ে নিজের অবস্থান তুলে ধরে গণমাধ্যমে একটি বিবৃতি পাঠান অভিযুক্ত ইউএনও তারিক সালমান।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, আগৈলঝাড়া উপজেলায় মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস-২০১৭ উপলক্ষে প্রকাশিত আমন্ত্রণপত্রটিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি কোনোরকম বিকৃত করে প্রকাশ বা প্রচার করা হয়নি। বরং আগৈলঝাড়ায় বঙ্গবন্ধুর ৯৮-তম জন্মদিবস ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে আয়োজিত চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় ১ম ও ২য় পুরস্কারপ্রাপ্ত দু’জন শিশুর আঁকা দুটি ছবি ব্যবহার করে আমন্ত্রণপত্রটি তৈরি করা হয়েছিল। তবে আপত্তি আসায় আমন্ত্রণপত্রটি পরে সংশোধন করা হয়।

আগৈলঝাড়ায় কোনো মুক্তিযোদ্ধাকে অসম্মান করেননি বলে তিনি বিবৃতিতে উল্লেখ করেন।
এছাড়া আগৈলঝাড়ায় চাকরিকালীন সরকারি কর্মকর্তারা জরুরি প্রয়োজনে সাক্ষাৎ পেতেন না এমন অভিযোগকে সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন, উদ্ভট ও কল্পনাপ্রসূত বলে দাবি করেন তারিক সালমান।

এদিকে, কারাগারে ইউএনও তারিক সালমানকে কারাগারে পাঠানোর দুই ঘণ্টা পর তাকে বিশেষ বিবেচনায় জামিন দেয়া হয়েছে বলে আদালত সূত্রে জানা গেছে। পরে পুলিশ তাকে হাজত থেকে মুক্তি দেয়।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)