আপডেট মে ১৬, ২০১৯

ঢাকা শুক্রবার, ৫ শ্রাবণ, ১৪২৬ , বর্ষাকাল, ১৬ জিলক্বদ, ১৪৪০

অপরাধ, বরিশাল বাউফলে রোগীর মাকে কুপ্রস্তাব, চিকিৎসক রউফ লাঞ্চিত!

বাউফলে রোগীর মাকে কুপ্রস্তাব, চিকিৎসক রউফ লাঞ্চিত!

কামরুল হাসান, নিরাপদ নিউজ: পটুয়াখালীর বাউফলে এক শিশু রোগীর মাকে (১৯) মুঠোফোনে উত্ত্যক্ত, কুপ্রস্তাব এবং ডেকে নিয়ে অশালীন আচরণের অভিযোগে বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক চিকিৎসককে লাঞ্চিত করা হয়েছে।

গত মঙ্গলবার রাতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ওই চিকিৎসকের আবসিক চেম্বার কক্ষে ওই ঘটনা ঘটেছে। ওই চিকিৎসকের নাম আবদুর রউফ (৪৮)। তিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা।

ওই নারী অভিযোগ করেছেন,তাঁর এক বছরের কন্যা সন্তান জ্বরে আক্রান্ত হয়ে পড়লে গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১১ টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। এরপর কর্তব্যরত চিকিৎসক আবদুর রউফকে দেখান। তাঁর পরামর্শ অনুযায়ী শিশুটিকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এর কিছুক্ষন পর থেকেই ওই চিকিৎসক তাঁকে (নারীকে) মুঠোফোকে উত্ত্যক্ত করতে থাকেন। বারবার তাঁকে (নারীকে) স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কোয়ার্টারে ওই চিকিৎসকের আবাসিক কক্ষে যেতে বলেন। নিরুপায় হয়ে তিনি(নারী) ইফতারের পরে তাঁর সঙ্গে থাকা খালাকে নিয়ে ওই চিকিৎসকের কক্ষে যান।

সঙ্গে তাঁর খালাকে দেখে ওই চিকিৎসক রেগে যান এবং তোমাকে একা আসতে বলেছি বলে ধমক দেন। এর কিছুক্ষনের মধ্যে বিদ্যুৎ চলে গেলে তাঁর (নারী) সঙ্গে চিকিৎসক আবদুর রউফ অসৌজন্যমূলক আচরণ করেণ। পরে তিনি বিষয়টি তাঁর (নারী) স্বজনদের জানান।ক্ষুদ্ধ এক স্বজন এসে ওই চিকিৎসককে লাঞ্চিত করেন।

ওই নারী তাঁর মুঠোফোনে আবদুর রউফের অসংখ্যবার কল করার প্রমাণ সাংবাদিকদের দেখান। এ বিষয়ে আবদুর রউফ প্রথমে অস্বীকার করলেও একপর্যায়ে বলেন,‘মুঠোফোনে কল করে অসুস্থ শিশুটির খোঁজ খবর নিয়েছি। উত্ত্যক্ত কিংবা অশালীন আচরণের অভিযোগ সত্য না।’ এ রকম অন্য কোনো রোগীর খোঁজ খবর নিয়েছেন কিনা? এমন প্রশ্নের জবাব না দিয়ে বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি না করার জন্য অনুরোধ করেন।

ওই নারীর এক স্বজন বলেন,তাঁরা বিষয়টি ওই রাতেই উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তাকে মৌখিকভাবে জানিয়েছেন। এ ঘটনায় তাঁরা পটুয়াখালীর সিভিল সার্জন বরাবরে লিখিত অভিযোগ করবেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তা প্রশান্ত কুমার সাহা বলেন,‘বিষয়টি আমি জেনেছি। লিখিত অভিযোগ পেলে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশ মোতাবেক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

উল্লেখ্য এর আগেও চিকিৎসক আবদুর রউফকে স্থানীয় লোকজন এক কিশোরীর সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় ধরে ফেলে। পরে কিশোরীকে বিয়ে করেন এবং বিয়ের কয়েক মাস পরে তালাক দিয়ে দেন। এছাড়াও আরেক রোগীকে কুপ্রস্তাব দিয়ে মার খেয়েছিলেন চিকিৎসক আবদুর রউফ।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)