ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ৪৬ মিনিট ৫৬ সেকেন্ড

ঢাকা বুধবার, ৭ চৈত্র, ১৪২৫ , বসন্তকাল, ১৩ রজব, ১৪৪০

সম্পাদকীয় ব্যাংক খাতের স্বচ্ছতা: কুঋণের প্রক্রিয়া বন্ধ করতে হবে

ব্যাংক খাতের স্বচ্ছতা: কুঋণের প্রক্রিয়া বন্ধ করতে হবে

নিরাপদ নিউজ : অর্থনৈতিক উন্নয়নে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান সহায়ক ভূমিকা পালন করে। সংজ্ঞা অনুযায়ী আর্থিক খাত উৎপাদন খাত নয়, উৎপাদন সহায়ক খাত। তাই বলে উৎপাদনপ্রক্রিয়ায় এ খাতের ভূমিকাকে খাটো করে দেখার অবকাশ নেই। বরং শিল্প-উদ্যোগে অর্থায়ন করে নিয়ামক ভূমিকা পালন করে এ খাত। আর্থিক খাতের সুষ্ঠুতা, স্বচ্ছতা ও গতিশীলতার ওপর শিল্প গুখাত তথা উৎপাদন খাতের সুষ্ঠুতা ও গতিশীলতা অনেকাংশে নির্ভরশীল।

ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর ওপর সাধারণ মানুষ ও শিল্পোদ্যোক্তাদের আস্থা থাকলে জাতীয় অর্থনীতি ও আর্থ-সামাজিক সম্পর্ক সাবলীল থাকে। দুর্ভাগ্যজনক বিষয় হলো, বিভিন্ন কারণে বাংলাদেশের আর্থিক খাত প্রশ্নবিদ্ধ। খেলাপি ঋণ, কুঋণ, ঋণ জালিয়াতি প্রভৃতি এ আস্থাহীনতার বড় কারণ। এসব সমস্যা না থাকলে দেশের উন্নয়নপ্রক্রিয়া আরো গতিসম্পন্ন হতো, উন্নয়নে সুষমতা থাকত।

ঋণখেলাপের সংস্কৃতি জেঁকে বসেছে। জাতীয় অর্থনীতিতে এর প্রভাব নেতিবাচক। অনেক কথা হয়েছে এ বিষয়ে। বিশেষজ্ঞরা এবং শিল্পোদ্যোক্তারা এ সমস্যা নিরসনের জন্য অনেক পরামর্শ দিয়েছেন। কিন্তু অবস্থার পরিবর্তন বলতে গেলে হয়নি। কুঋণ আরেক সমস্যা। চুক্তিসম্মত সূচি অনুযায়ী কিস্তি পরিশোধ করা না হলে সে ঋণ খেলাপি ঋণে পরিণত হয়। আর চুক্তির শর্ত অমান্য করার সঙ্গে ‘কখনোই পরিশোধ হবে না’ এমন অবস্থা সৃষ্টি করা হলে সে ঋণ কুঋণে পরিণত হয়। কার্যত খেলাপি ঋণই একপর্যায়ে কুঋণে পরিণত হয়। কুঋণ আরো বেশি নেতিবাচক। অতএব খেলাপি ঋণের চেয়েও কুঋণের বিষয়ে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। তখন সংশ্লিষ্টতার সূত্রেই খেলাপি ঋণের বিষয়টিও বিবেচিত হবে।

রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় একটি ব্যাংকের মহিলা শাখার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথাই জোর দিয়ে বলেছেন বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান। তাঁর অভিমত, কুঋণ বন্ধ হলে খেলাপি ঋণ ১ শতাংশে নেমে আসবে। প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, সেপ্টেম্বর শেষে রাষ্ট্রায়ত্ত ছয় ব্যাংকের খেলাপি ঋণ ছিল মোট ঋণের ৩১.২৩ শতাংশ এবং বেসরকারি ব্যাংকগুলোর খেলাপি ঋণ ছিল ৬.৫৬ শতাংশ। ঋণখেলাপি পরিস্থিতি মোকাবেলায় কুঋণ বন্ধ করা কী মাত্রায় জরুরি, তা সহজেই অনুমান করা যায়।

ব্যাংক খাতে আস্থা পুরো মাত্রায় ফেরাতে হলে খেলাপি ঋণ কমাতে হবে, কুঋণ বন্ধ করতে হবে; জাতীয় অর্থনীতির স্বার্থেই তা করতে হবে। খেলাপি ঋণের দায়ভার ভালো ঋণগ্রহীতার ওপরও পড়ছে। মন্দের দায় তাঁরা কেন নেবেন!

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)