ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ৮ মিনিট ০ সেকেন্ড

ঢাকা সোমবার, ৮ শ্রাবণ, ১৪২৫ , বর্ষাকাল, ৯ জিলক্বদ, ১৪৩৯

রাজশাহী বড়াইগ্রামে পাড়ায় পাড়ায় বৈশাখী উৎসব

বড়াইগ্রামে পাড়ায় পাড়ায় বৈশাখী উৎসব

অমর ডি কস্তা,নিরাপদ নিউজ: বাংলা নববর্ষকে স্বাগত জানাতে নাটোরের বড়াইগ্রামের ৭ ইউনিয়ন ও ২ দুই পৌরসভার বিভিন্ন পাড়া ও মহল্লায় চলছে বৈশাখী উৎসব। সোমবার বৈশাখ মাসের ৩ তারিখ হলেও এ উৎসব এখনও থামেনি। শনিবার ১ লা বৈশাখ বা বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন থেকে শুরু করে বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন, স্কুল, কলেজ, অফিস, ব্যক্তিগত প্রতিষ্ঠান, রাজনৈতিক সংগঠন গুলো বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করলেও সেই উৎসব এখনও চলছেই।

রবিবার সন্ধ্যা থেকে রাত ১১টা ও সোমবার বিকেলে সরেজমিনে উপজেলার বনপাড়া পৌর শহরের কালিকাপুর, পূর্ব হারোয়া, জোয়াড়ি ইউনিয়নের কাটাশকোল, ভবানীপুর, মাঝগাঁওয়ের ছাতিয়ানগাছা, গুনাইহাটি, আগ্রাণ, জোনাইলের বর্ণী এলাকায় ঘুরে দেখা গেছে পাড়ায় পাড়ায় কোথাও চলছে সপ্তাহব্যাপী বৈশাখী মেলা, আবার কোথাও কোথাও চলছে দুইদিন বা তিনদিনের বৈশাখী মেলা বা বৈশাখী উৎসব।

এ সব মেলা বা উৎসবে রয়েছে ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, বিভিন্ন গ্রামীণ পণ্যের প্রদর্শনী ও বিক্রি, সম্মিলিত ভোজ ইত্যাদি। আর এ সব উৎসবে সব বয়সীদের বিশেষ করে নারী, শিশু-কিশোর ও বয়স্কদের অংশগ্রহণ চোখে পড়ার মতো।

সোমবার উপজেলার জোয়াড়ি ইউনিয়নের কাটাশকোল গ্রামের মধ্যপাড়া মাঠে শেষ হয় তিনদিনের বৈশাখী উৎসব। স্থানীয় আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ সম্মিলিতভাবে আয়োজন করে এ উৎসবের। সমাপনী দিনে ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আব্দুস সালামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে ইউপি চেয়ারম্যান চাঁদ মোহাম্মদ, বিশেষ অতিথি হিসেবে বড়াইগ্রাম প্রেসক্লাবের সভাপতি অমর ডি কস্তা, স্থানীয় ইউপি সদস্য ওয়ালিউল ইসলাম শিলু, স্থানীয় ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান, সহ-সভাপতি রাজীব প্রামাণিক প্রমূখ বিভিন্ন ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন।

এর আগে মাঝগাঁও ছাতিয়ানগাছা গ্রামে সম্প্রীতি সাংস্কৃতিক গোষ্ঠির উদ্যোগে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশনার মধ্য দিয়ে শেষ করা হয় বৈশাখী উৎসব। বনপাড়া খ্রিস্টান ক্যাথলিক চার্চের উদ্যোগে শিশু মঙ্গল সংগঠন আয়োজন করে শিশুদের জন্য বৈশাখী উৎসব। স্থানীয় বিভিন্ন সমবায় সমিতি, ব্যাংক, এনজিও গুলো বর্ণিল আয়োজনে পালন করে বাংলা সংস্কৃতির এ প্রাণের উৎসব।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)