ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৯

ঢাকা মঙ্গলবার, ৪ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ২১ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১

ঢাকা ভৈরব পৌর মেয়র সরকারি সফরে দক্ষিণ কোরিয়া ও থাইল্যান্ড যাত্রা

ভৈরব পৌর মেয়র সরকারি সফরে দক্ষিণ কোরিয়া ও থাইল্যান্ড যাত্রা

মোঃ আলাল উদ্দিন,নিরাপদ নিউজ: ভৈরব পৌরসভার মেয়র অ্যাডভোকেট ফখরুল আলম আক্কাছ ৯ দিনের সরকারি সফরে দক্ষিণ কোরিয়া ও থাইল্যান্ড যাচ্ছেন। তিঁনি রোববার দিবাগত রাত ২টায় ঢাকা আন্তর্জাতিক হযরত শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে দক্ষিণ কোরিয়ার উদ্দেশ্যে রওনা হবেন। শহর উন্নয়ন এবং পরিকল্পনা বিষয়ক সেমিনারে অংশগ্রহণের জন্য দক্ষিণ কোরিয়া ও থাইল্যান্ড সফরের জন্য মনোনীত হয়েছেন তিঁনি।

ভৈরব পৌরসভার মেয়র অ্যাডভোকেট ফখরুল আলম আক্কাছসহ সারাদেশের ২৩টি পৌরসভার ২৩ জন মেয়র এই সেমিনারে অংশগ্রহণ করার জন্য মনোনীত করেছেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। সরকারি এই সফরে ২২ সেপ্টেম্বর রোববার রাতে মেয়র অ্যাডভোকেট ফখরুল আলম আক্কাছ হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে রওনা হয়ে দক্ষিণ কোরিয়ায় পৌঁছাবেন স্থানীয় সময় বিকাল ৫টা ২৪ মিনিটে (বাংলাদেশ সময় দুপুর ২টা ২৪ মিনিট)।দক্ষিণ কোরিয়া সরকারের প্রতিনিধিরা মেয়রদের বিমানবন্দরে অভ্যর্থনা জানাবেন। মেয়র অ্যাডভোকেট ফখরুল আলম আক্কাছ দক্ষিণ কোরিয়ায় সেমিনারে অংশগ্রহণ শেষে সেখান থেকে থাইল্যান্ড যাবেন। আন্তর্জাতিক শহরে প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (আইইউটিসি) দক্ষিণ কোরিয়া এবং পেশাদার প্রশিক্ষণ ও পরিচালন ইনস্টিটিউটে আন্তর্জাতিক শহরে “নগর পরিসেবা সরবরাহের উন্নতি: সলিড বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও সম্পদ সংগ্রহের বিষয়ে বিশেষ ফোকাস” শীর্ষক প্রশিক্ষণ কর্মশালায় অংশগ্রহণ করবেন। এছাড়া থাইল্যান্ডে “নগর পরিসেবা সরবরাহের উন্নতি: সলিড বর্জ্য ব্যবস্থাপনা এবং রিসোর্স একীকরণের বিষয়ে বিশেষ ফোকাস” শীর্ষক একটি প্রশিক্ষণ কর্মশালায় অংশ নিবেন।

সফর শেষে আগামী ২ অক্টোবর তিঁনি দেশে ফিরবেন বলে জানা গেছে। তিঁনি ১৯৫১ সালে ভৈরব পৌর শহরের ভৈরবপুর মধ্যপাড়া এলাকার এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা নওয়াজ মিঞা মাতা হালিমা বেগম। ভাই বোনের মধ্যে তিঁনি অষ্টম। তিঁনি ভৈরব কেবি পাইলট মডেল হাই স্কুল থেকে ১৯৬৭ সালে এসএসসি, ভৈরব হাজী আসমত কলেজ থেকে ১৯৬৯ সালে এইচএসসি পাস করেন এবং ১৯৭১ সালে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করে ১৯৮৬ সালে আইনজীবি পেশায় নিযুক্ত হন। ১৯৭১ সালে তিঁনি স্বাধীনতা যুদ্ধের একজন সংগঠক ও সশস্ত্র সম্মুখ যুদ্ধে সক্রিয় অংশগ্রহণ করেন। পরে তিঁনি ১৯৯৯ সালে বিশাল জনসর্থন নিয়ে ভৈরব পৌরসভার চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হন।

এর পর তিঁনি দ্বিতীয়বারের মতো ২০০৪ সালে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়ে পরে পৌর মেয়র হিসেবে দায়িত্বপান। সবশেষে ২০১৬ সালের মার্চ মাসে তৃতীয়বারের মতো নির্বাচিত হন। অ্যাডভোকেট ফখরুল আলম আক্কাছ ভৈরব শহরকে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে গড়ে তোলার প্রত্যয় নিয়েছেন। তিঁনি মানুষ হিসেবে একজন সৎ, কর্মঠ, মানবিক ও কোমল হৃদয়ের অধিকারী।

ইতিমধ্যে ভৈরবের রাস্তাঘাট, সড়ক বাতি, ড্রেনেজ ব্যবস্থা, বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ, শিশু পার্ক, ফুট ওভার ব্রীজসহ ব্যাপক উন্নয়নে বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করেছেন। তিঁনি ভৈরবের লৌহ মানব হিসেবে পরিচিত ও ভৈরব পৌরসভার উন্নয়ন ও আধুনিক ভৈরব পৌরসভার রূপকার।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)