ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ৯ সেকেন্ড

ঢাকা সোমবার, ৮ শ্রাবণ, ১৪২৫ , বর্ষাকাল, ৯ জিলক্বদ, ১৪৩৯

পরিবেশ, লিড নিউজ মশা মারতে কামান!

মশা মারতে কামান!

ডিএনসিসির মশা নিধনে ওষুধ ছিটানোর ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল

নিরাপদ নিউজ: মশা মারতে কত কিছুই না হলো। একে একে আসলো মশারি, স্প্রে গ্যাস, ইলেকট্রিক ব্যাট, তবুও মশার উপদ্রব যেন কিছুতেই কমছে না। রাজধানীর দুই সিটি কর্পোরেশন মাঝে-মধ্যে মশা মারতে কামান দাগান। বিশেষ এক কামানের নল সদৃশ এক যন্ত্র দিয়ে ঠা ঠা করে ধোঁয়ার কুণ্ডলী দিয়ে মশাদের বংশ নির্বংশ করে ছাড়েন!

ঢাকা শহরে মশার উৎপাত সম্প্রতি বেড়ে গেছে। বিগত বছরগুলোতে মশা বাহিত ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় এ বছর বর্ষার শুরুতেই মশা নিধনে ব্যাপক পদক্ষেপ নিয়েছে ঢাকা উত্তর ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন। এ মৌসুমে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশরে মধ্যে দক্ষিণের তুলনায় উত্তর সিটিতে মশার প্রকোপ ভয়াবহ। স্কুল, হাসপাতাল, অফিস থেকে শুরু করে বিমানের ভেতরে পর্যন্ত মশার আক্রমণ। উত্তর সিটির বিভিন্ন এলাকায় দিনের বেলায়ও মশারি টাঙিয়ে রাখতে হয়। এরই প্রেক্ষিতে সোমবার ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে মশা নিধনে ক্রাশ অনুষ্ঠান ছিলো। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র মো. ওসমান গণি উত্তরা অঞ্চলে বিশেষ মশক নিধন ক্রাশ প্রোগ্রামের উদ্বোধন করেন।

এ সময় শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এলাকাসহ ডিএনসিসির অঞ্চল-১ এর অধীন এলাকায় মশার ওষুধ ছিটানো হয়। প্যানেল মেয়র সদস্য আলেয়া সারোয়ার ডেইজীর নেতৃত্বে বিমানবন্দর এলাকায় মশা নিধনের ওষুধ ছিটানো হয়।

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এলাকায় ডিএনসিসির মশা নিধনে ওষুধ ছিটানোর ছবি ও ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। এ আয়োজনকে অনেকে ‘মশা মারতে কামান দাগান’ বলে মন্তব্য করেন। এ প্রবাদটি ছোট কাজে বড় আয়োজন অর্থে ব্যবহার হয়ে থাকে। বাস্তবে মশা মারতে কামান নিয়ে কেউ বের হয়েছে কি না তা বলা মুশকিল। হয়তো বা কোনো ইতিহাসে থাকতে পারে। তবে মশা মারা কিন্তু এতো সহজ নয়। কামান দিয়েও সম্ভব নয়।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)