ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ১০ সেকেন্ড

ঢাকা শনিবার, ৭ আশ্বিন, ১৪২৬ , শরৎকাল, ২২ মুহাররম, ১৪৪১

চট্টগ্রাম মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে চিকিৎসকদের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ: সিটি মেয়র নাছির

মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে চিকিৎসকদের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ: সিটি মেয়র নাছির

শফিক আহমেদ সাজীব,,নিরাপদ নিউজ:  চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন মেমন মাতৃসদন হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্সদের মানবসেবায় শতভাগ আত্মনিয়োগ করার আহ্বান জানিয়েছেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। তিনি গতকাল মঙ্গলবার মেমন মাতৃসদন হাসপাতাল পরিদর্শনকালে মেমন হাসপাতাল কনফারেন্স হলে চিকিৎসক, নার্সদের মতবিনিময় সভায় একথা বলেন। সকাল ১১টায় মেমন মাতৃসদন হাসপাতাল পরিদর্শনে গেলে চসিক প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা, স্বাস্থ্য কর্মকর্তা, মেমন হাসপাতালের সিনিয়র কনসালটেন্ট ও ইনচার্জসহ সংশ্লিষ্টরা মেয়রকে অভ্যর্থনা জানান। এরপর মেমন হাসপাতালের চিকিৎসকরা মেয়রকে হাসপাতালের ইপিআইকেন্দ্র, প্রসূতি রোগীদের আউট ডোর, শিশু আউট ডোর, জেনারেল কেবিন, ভিআইপি কেবিন, ডিলাক্স কেবিন নিয়ে যান। সিটি মেয়র মেমন মাতৃসদন হাসপাতালে সকাল ১১ টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত ৩ ঘন্টা অবস্থান করেন। এই সময় তিনি মেমন হাসপাতালে প্রতিটি ওয়ার্ড সরেজমিনে পরিদর্শন করেন। পরিদর্র্শনকালে মেয়র কেবিনে অবস্থানরত রোগী এবং তাদের স্বজনদের সাথে কুশলাদি বিনিময় করেন এবং তাদের সাথে সেবা নিয়েও কথা বলেন। তারা চসিক পরিচালিত মেমন হাসপাতাল সেবার মানন্নোয়ন এবং কেবিন নবরূপে সজ্জিতকরণ এবং ওয়াশরুম আধুনিকায়নসহ বিভিন্ন পরামর্শ দেন মেয়রকে। মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন মেমন মাতৃসদন হাসপাতালের ঐতিহ্য পুনরুদ্ধার এবং সৌন্দর্য বর্ধনের উপর গুরুত্বারোপ করে উন্নতমানের কেবিন, আলোকায়ন এবং ওয়াশরুমসহ সকল কিছু সংস্কার করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকে তাৎক্ষণিক নির্দেশ দেন। এই প্রসঙ্গে তিনি মডেল ফ্লোর হিসেবে প্রথমে একটি ফ্লোরের অবকাঠামোগত উন্নয়ন ও আধুনিকায়নের জন্য তিনমাসের সময় দিয়ে কাজ করার কথা বলেন মেয়র। শেষে কর্মরত চিকিৎসক, নার্সসহ অন্যান্যদের নিয়ে মতবিনিময় সিটি মেয়র আরো বলেন, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরে প্রসূতি মা’দের পছন্দ মেমন মাতৃসদন হাসপাতাল। এই হাসপাতালকে নবরূপে সজ্জিত ও আধুনিকায়ন করে পূর্বেকার ঐতিহ্যকে ফিরিয়ে আনতে হবে। তজ্জন্য মেয়র সকলের সমন্বিত প্রচেষ্টা কামনা করেন। তিনি বলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মূল কাজ নগর আলোকায়ন, পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা। মেয়র বলেন, মানুষের অসহায় মুহুর্তে একজন ডাক্তারই পারেন মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে। একজন রোগীকে নিরাময় করে পরিবার পরিজনকে স্বস্তি দেয়া- এর চেয়ে মহৎ কাজ আর কিছু হতে পারে না। এটা অনেক বড় মানবতার কাজ। মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন চসিক প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সেলিম আকতার চৌধুরী। বক্তব্য দেন, প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল মহিউ্দ্িদন আহমদ, মেমন মাতৃসদন হাসপাতালের সিনিয়র কনসালটেন্ট ডা. প্রীতি বড়ৃয়া, মেমন হাসপাতালের ইনচার্জ ডা. আশীষ মুখার্জি। উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ আলী, তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সুদীপ বসাক, ঝুলন কান্তি দাশ, নির্বাহী প্রকৌশলী অসীম বড়ুয়া।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)