আপডেট অক্টোবর ৯, ২০১৭

ঢাকা সোমবার, ১ শ্রাবণ, ১৪২৫ , বর্ষাকাল, ১ জিলক্বদ, ১৪৩৯

বিনোদন মিলনমেলায় নওশাদের কাছে ক্ষমা চাওয়া ও একসঙ্গে কাজ করার অঙ্গীকার

মিলনমেলায় নওশাদের কাছে ক্ষমা চাওয়া ও একসঙ্গে কাজ করার অঙ্গীকার

মিলনমেলায় নওশাদের কাছে ক্ষমা চাওয়া ও একসঙ্গে কাজ করার অঙ্গীকার

০৯ অক্টোবর, ২০১৭, নিরাপদ নিউজ : বাংলাদেশ প্রদর্শক সমিতির সভাপতি ও চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের সদস্য ইফতেখার উদ্দিন নওশাদের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন চিত্রনায়ক রিয়াজ, খল চরিত্রের অভিনেতা মিশা সওদাগর ও প্রযোজক খোরশেদ আলম খসরু।

রবিবার দুপুরে রাজধানীর হোটেল রাজমনি ঈশা খাঁয় ‘বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পীদের মিলন মেলা’ শিরোনামে একটি অনুষ্ঠানে তারা ক্ষমা চান। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনায় ছিলেন জনপ্রিয় চিত্র নায়ক রিয়াজ।
প্রসঙ্গত, যৌথ প্রযোজনার নিয়ম না মেনে নির্মিত দুটি ছবির মুক্তি ঠেকাতে এ বছর ২১ জুন চলচ্চিত্র পরিবারের আন্দোলনের সময় লাঞ্ছিত হন বাংলাদেশ প্রদর্শক সমিতির সভাপতি ও চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের সদস্য ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ। চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির ওই নেতা দাবি করেন, তাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছনায় জড়িত ছিলেন চিত্রনায়ক রিয়াজ, খল চরিত্রের অভিনেতা মিশা সওদাগর এবং প্রযোজক খোরশেদ আলম খসরু।
খোরশেদ আলম খসরু বলেন, কয়েকজন পরিচালকের ছবি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। আমাদের চলচ্চিত্র একটি অসাধু কোম্পানির হাতে জিম্মি সেটা সরকার বুঝতে পেরেছে। আমরা ফারুক ভাইয়ের নেত্বতে সরকারের সঙ্গে মিটিং করেছি। তারা জিম্মি দশা বুঝতে পেরে মেশিন বসানোর উদ্যোগ নিয়েছে। নওশাদকে প্রিয় বড় ভাই দাবি করে ক্ষমা চেয়ে দুঃখ প্রকাশ করেন তিনি।
মিশা সওদাগর বলেন, নওশাদ ভাই আমার বড় ভাই। ঘটনার দিন আমি ছিলাম না। আমি বিষয়টি নিয়ে তীব্র নিন্দা জানিয়েছি। তারপরও যদি জানা-অজানা কোন ভুল করে থাকি তাহলে নওশাদ ভাই মাফ করে দিবেন। আজকে আমাদের ভুল বোঝাবুঝি অবসান হচ্ছে।
ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ বলেন, ‘আমাদের পরিবারে একটা ভাল সম্পর্ক ছিল। এখনো আছে। আমাকে ওই ঘটনায় টার্গেট করে আমাদের সম্পর্ককে দুরে ঠেলে দিতে চেয়েছে। আমাকে নিয়ে অনেকেই রাজনীতি করতে চেয়েছে, বিষয়টা আমি বুঝতে পেরেছি। আজকে আবার মিলন মেলায় একত্রিত হয়েছি। আমার কোনো অভিযোগ নাই, কোন ক্ষোভ নাই।’
অভিনেতা হাসান ইমাম বলেন, ‘কী দিন ছিল চলচ্চিত্রের! যেমন পর্দায় তেমনি পর্দার বাইরে। সবাই মিলেমিশে থাকতাম। সুপারহিট ছবি আসতো। সবই নষ্ট হয়ে গেছে। চলচ্চিত্রের বর্তমান সংকট দেখে খুব কষ্ট হয়।’
চিত্রনায়িকা অঞ্জনা বলেন, ‘আমার বিশ্বাস ছিল একদিন ভুল বুঝাবুঝির অবসান হবেই। নওশাদ ভাই এখানে এসেছেন তাকে ধন্যবাদ জানাই। আমরা একটাই পরিবার। আবারো চলচ্চিত্রে সুদিন ফিরে আসবে সেই লক্ষে আমরা সবাই মিলে কাজ করে যাবো।’
সোহেল রানা বলেন, মিলন মেলা কথাটির সঙ্গে আমি একমত না। কারন নওশাদ, আলাউদ্দিন আমার ছোট ভাইয়ের মতো। পরিবারের মধ্যে ঝামেলা হতেই পারে। চলচ্চিত্রের সবাই আমরা। আমি বলবো আমরা এক পরিবার।
চলচ্চিত্র পরিবারের আহ্বায়ক চিত্র নায়ক ফারুক বলেন, ‘আজকে সবচেয়ে আমি আনন্দিত। কারণ আমার ভাই প্রদর্শকরা এখানে আসছে। আমি সত্যি আনন্দিত। আজকে যে আলো ছড়িয়ে দিয়েছে আমার ছোট ভাই নওশাদ। আমাদের সবাইকে সংগঠিত করতে হবে। আমরা ভাঙ্গবো না, কেউ কাউকে ছাড়বো। একে অন্যের ভাই।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন- চিত্রনায়ক ফারুক, সোহেল রানা, ইলিয়াস কাঞ্চন, খোরশেদ আলম খসরু, সোহানুর রহমান সোহান, মুশফিকুর রহমান গুলজার, বদিউল আলম খোকন, ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ, শহীদুল ইসলাম সাচ্চু,শাহিন সুমন, জায়েদ খান, রিয়াজ, সাইমন, ইমন, নিঝুম রুবিনা, অধরা খান ও ডি এ তায়েবসহ অনেকে।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)