আপডেট ৪ মিনিট ১৫ সেকেন্ড

ঢাকা বুধবার, ৪ আশ্বিন, ১৪২৬ , শরৎকাল, ১৯ মুহাররম, ১৪৪১

জাতীয়, লিড নিউজ মুক্তিযোদ্ধাদের মাসিক ভাতা ১০ হাজার টাকার ঘোষণা দিলেন প্রধানমন্ত্রী

মুক্তিযোদ্ধাদের মাসিক ভাতা ১০ হাজার টাকার ঘোষণা দিলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা (ফাইল ফটো)

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা (ফাইল ফটো)

ঢাকা, ২১ নভেম্বর ২০১৫, নিরাপদনিউজ : মুক্তিযোদ্ধাদের মাসিক ভাতা পাঁচ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ১০ হাজার টাকা করে ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সশস্ত্রবাহিনী দিবস উপলক্ষ্যে ঢাকা সেনানিবাসে সশস্ত্র বাহিনী বিভাগে বীরশ্রেষ্ঠদের উত্তরাধিকারী এবং নির্বাচিত সংখ্যক খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের উত্তরাধিকারীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এই ঘোষণা দেন তিনি।
প্রধানমন্ত্রী এসময় স্বাধীনতাবিরোধী যে কোনও চক্রান্ত মোকাবেলায় সকলকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানান।
এর আগে শিখা অনির্বাণে ফুল দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে শহীদ সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর সদস্যদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে শনিবার (২১ নভেম্বর) সকালে ঢাকা ক্যান্টমেন্টে এসব কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।
প্রধানমন্ত্রী তার বক্তৃতায় আরও উল্লেখ করেন, সাধারণ মুক্তিযোদ্ধাদের মাসিক সম্মানী ভাতার পরিমাণ ৯০০ টাকা থেকে চার দফা বাড়িয়ে বর্তমান ৫,০০০ টাকা করা হয়। ভাতা ভোগীর সংখ্যা এক লাখ থেকে বাড়িয়ে দুই লাখ করা হয়েছে।
তিনি আরও জানান, মহান স্বাধীনতাযুদ্ধে বীরত্বপূর্ণ অবদানের জন্য ৬৭৬ জন খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা ২০১৩ এর জুলাই থেকে বীরশ্রেষ্ঠদের জন্য ১২,০০০ টাকা, বীর উত্তমদের জন্য ১০,০০০ টাকা, বীর বিক্রমদের জন্য ৮,০০০ টাকা এবং বীর প্রতীকদের জন্য ৬,০০০ টাকায় টাকায় উন্নীত করা হয়েছে।
মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাষ্টের মাধ্যমে যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা, শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের পরিবারবর্গের মাসিক রাষ্ট্রীয় সম্মানী ভাতা বাড়িয়ে সর্বনিম্ন ৯,৭০০ টাকা এবং সর্বোচ্চ ৩০,০০০ টাকা করা হয়েছে। রাষ্ট্রীয় সম্মানী ভাতা প্রাপ্ত যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা, শহীদ পরিবার ও মৃত যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা পরিবারবর্গকে স্বল্পমূল্যে রেশন সামগ্রী বিতরণ করা হচ্ছে।
চলতি ২০১৫-১৬ অর্থবছরে শহীদ ও যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের ভাতা, চিকিৎসা এবং রেশন সামগ্রী বাবদ প্রায় ৩৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তার সরকার সশস্ত্র বাহিনীর শহীদ ও যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা এবং উত্তরাধিকারীদের রাষ্ট্রীয় সম্মানী ভাতার আওতায় আনার জন্য ইতোমধ্যে নির্দেশনা দিয়েছে।
সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনী প্রধানগণ, সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার, খেতাবপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তাঁদের উত্তরাধিকাররা এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)