ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট এপ্রিল ২৫, ২০১৬

ঢাকা বুধবার, ১৩ আষাঢ়, ১৪২৬ , বর্ষাকাল, ২৩ শাওয়াল, ১৪৪০

বিনোদন, লিড নিউজ, সাক্ষাৎকার লগ্নিকৃত টাকা ফেরত আসাতো দূরে থাক, মান সম্মান নিয়েই টানাটানি শুরু হয়: ইলিয়াস কাঞ্চন

লগ্নিকৃত টাকা ফেরত আসাতো দূরে থাক, মান সম্মান নিয়েই টানাটানি শুরু হয়: ইলিয়াস কাঞ্চন

বিশিষ্ট চলচ্চিত্র অভিনেতা ও সামাজিক আন্দোলনের প্রাণপুরুষ চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন

বিশিষ্ট চলচ্চিত্র অভিনেতা ও সামাজিক আন্দোলনের প্রাণপুরুষ চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন

ঢাকা, ২৫ এপ্রিল ২০১৬, নিরাপদনিউজ: বিশিষ্ট চলচ্চিত্র অভিনেতা, সামাজিক আন্দোলনের প্রাণপুরুষ চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চনের এক কথা- ছবি প্রযোজনা করে ফেরি করতে পারবো না। যেদিন ছবি প্রদর্শনের ব্যবস্থা শৃঙ্খলার মধ্যে ফিরে আসবে তখন ভেবে দেখা হবে ছবি প্রযোজনা করবো কিনা। যদিও আমার ছেলে-মেয়েরা প্রায়ই বলে থাকে বছরে একটি ছবি প্রযোজনার কথা। তাদের কথা ভাবনায় এনেও থাকি। কিন্তু যখনই মনে পড়ে ছবি সিনেমা হলে ছবি প্রদর্শনের জন্য প্রজেক্টর ভাড়া করে তারপর ছবি চালাতে হবে। তখনই সকল চাওয়া-পাওয়ার ইতি ঘটে। কারণ আমি ফেরিওয়ালা নই। আমার কাজ অভিনয় করা, আর চলচ্চিত্রের প্রতি দায়বদ্ধতা থেকে ছবি নির্মাণে লগ্নি করা। কিন্তু এখন একটি ছবি বানালে সেই ছবিতে লগ্নিকৃত টাকা ফেরত আসাতো দূরে থাক, মান সম্মান নিয়েই টানাটানি শুরু হয়।
ইলিয়াস কাঞ্চন এভাবেই ক্ষোভের সাথে বলেন চলচ্চিত্র ধ্বংস হবার কারণ।
এক সময় ইলিয়াস কাঞ্চন চলচ্চিত্র প্রযোজনা করতেন। অনেক দিন হলো তাকে প্রযোজনা করতে দেখা যায় না। মাঝে মধ্যে অভিনয় করলেও কেনো এখন চলচ্চিত্র প্রযোজনা করেন না তিনি? সেটা জানিয়েছেন নিজের মুখেই।

বিজলী ছবির মহরত অনুষ্ঠান

বিজলী ছবির মহরত অনুষ্ঠান

ইলিয়াস কাঞ্চেন বলেন, ২০০০ সালে যখন চলচ্চিত্রে অশ্লীলতা শুরু হলো তখন থেকেই ছবি বানানো ছেড়ে দিয়েছি। এখন যদিও সেরকম অশ্লীলতা নেই তারপরও ছবি বানানোর ইচ্ছা হারিয়ে ফেলেছি। কারণ একটি ছবি বানালে লগ্নিকৃত টাকা ফেরত আসাতো দূরে থাক, মান সম্মান নিয়েই টানাটানি শুরু হয়। ছবি বানানোর পর আবার প্রজেক্টর ভাড়া নিয়ে হলে হলে ছবি চালানো লাগে। আমি এই কাজটিকে কেনো জানি মানতে পারি না। একজন প্রযোজক টাকা খরচ করে ছবিও বানাবে আবার হলে হলে ফেরি করে বেড়াবে? এটা কোন ধরনের কথা? যতদিন এই পদ্ধতি চলচ্চিত্র থেকে না যাবে ততদিন প্রযোজনা থেকে দূরে থাকবো।
তিনি আরো বলেন, আরেকটা কথা না বললেই নয়, সরকার যদি এই পদ্ধতিকে পরিবর্তন না করবেন ততদিন চলচ্চিত্রের কোনো উন্নতি হবে না। চলচ্চিত্রের এখন যে অবস্থা তাতে বলা যায় ধ্বংসের দারপ্রান্তে অবস্থান করছে চলচ্চিত্র নামক এই শিল্প। এভাবে চলতে থাকলে অল্প কিছুদিনের মধ্যে হয়তো ধ্বংসই হয়ে যাবে। প্রযোজকের কথা বাদই দিলাম। চলচ্চিত্র শিল্পের দিকে তাকিয়ে সরকার যতদিন প্রজেক্টর ভাড়ার এই পদ্ধতি বন্ধ না করবে, ততদিন চলচ্চিত্রের উন্নতি হওয়া কোনো প্রকার সম্ভব নয়। আর এভাবে চলতে থাকলে আমি কেন, আমার মতো আরো কতো মানুষই যে, ছবি বানানোর দুঃসাহস দেখাবেন না সেটা বলার অপেক্ষা রাখে না।
উল্লেখ্য চিত্রনায়িকা ববির প্রযোজনায় ‘বিজলী’ নামে একটি ছবি নির্মাণ করতে চলেছেন ইফতেখার চৌধুরী। এ ছবিতে গুরুত্বপূর্ণ একটি চরিত্রে অভিনয় করবেন জনপ্রিয় চলচ্চিত্র অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চন। প্রযোজনার পাশাপাশি ‘বিজলী’তে ববিও অভিনয় করবেন। ২৩ এপ্রিল এ ছবিটির মহরত অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)