আপডেট অক্টোবর ৯, ২০১৯

ঢাকা সোমবার, ৬ কার্তিক, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ২১ সফর, ১৪৪১

দুর্ঘটনা সংবাদ, লিড নিউজ শৃঙ্খলা ফিরছেনা কুমিল্লার সড়কে: উল্টো পথে ছুটছে গাড়ি, প্রাণ যাচ্ছে যাত্রীদের

শৃঙ্খলা ফিরছেনা কুমিল্লার সড়কে: উল্টো পথে ছুটছে গাড়ি, প্রাণ যাচ্ছে যাত্রীদের

নিরাপদনিউজ : নানা আয়োজনের পরও কুমিল্লায় শৃঙ্খলা ফেরেনি সড়কে। সকল নিয়ম-নীতিকে তোয়াক্কা না করে আগে যাওয়ার প্রবণতায় উল্টোপথেই গাড়ি নিয়ে ছুটেন চালকরা। ঘটছে দুর্ঘটনা, প্রাণ যাচ্ছে যাত্রীদের কিংবা আহত হয়ে পঙ্গুত্বের অভিশাপ বয়ে বেড়াচ্ছেন কেউ-কেউ। আর চালকদের অসতর্কতার কারণে একই স্থানে একাধিকবার দুর্ঘটনার ঘটনাও ঘটেছে। গত দেড়মাসে কুমিল্লায় উল্টোপথে ছুটে আসা পরিবহন দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছেন ২০ জনের বেশি। এসব দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত শতাধিক।

সাম্প্রতিক সময়ে কুমিল্লায় দুর্ঘটনা প্রবণ এলাকা হিসেবে পরিচিত পেয়েছে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সদর দক্ষিণ উপজেলার পদুয়ার বাজার পল্লী বিদ্যুত অফিসের সামনের এলাকাটি। মাত্র একমাসের ব্যবধানে এ স্থানটিতে উল্টোপথে আসা ট্রাক ও বাসচাপায় প্রাণ হারিয়েছেন তিন ছাত্রলীগ নেতা, স্বামী-স্ত্রীসহ ৯ জন। এ ছাড়া ঢাকা-চট্টগ্রাম মহসাড়কসহ অন্যান্য সড়কে উল্টোপথের এ রকম দুর্ঘটনায় আরো অন্তত ১০/১২ জন যাত্রী প্রাণ হারিয়েছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত ১৯ আগস্ট কুমিল্লার লালমাই উপজেলার জামতলা বাজার এলাকায় সড়ক উল্টো পাশ দিয়ে দ্রুত গতিতে ছুটে চলা একটি বাসের চাপায় প্রাণ হারিয়েছেন কুমিল্লাগামী সিএনজি অটোরিকশার ৮ যাত্রী। এদের মধ্যে ৬ জনই এক পরিবারের। এ ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই গত ১৫ সেপ্টেম্বর ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সদর দক্ষিণ উপজেলার পল্লীবিদ্যুত অফিসের সামনে আবারো ঘটে দুর্ঘটনায়। সড়কের উল্টো পাশ দিয়ে ছুটে আসা একটি ট্রাকচাপায় প্রাণ হারান মোটরসাইকেল আরোহী তিন ছাত্রলীগ নেতা। এ দুর্ঘটনার তিনদিন পর ১৮ সেপ্টেম্বর একই স্থানে আবারো দুর্ঘটনা ঘটে। এবার উল্টো দিক দিয়ে আসা দ্রুতগামী একটি বাসের চাপায় প্রাণ হারান অটোরিকশারোহী স্বামী-স্ত্রী। এ ঘটনায় আহত হন তাদের শিশুসন্তানসহ আরো দু’জন।

সর্বশেষ গত ৪ অক্টোবর শুক্রবার একই মহাসড়কের সদর দক্ষিণ উপজেলায় দয়াপুর এলাকায় উল্টোদিক থেকে আসা একটি ডাম্প ট্রাকের ধাক্কায় একে একে তিনটি বাস পার্শ্ববর্তী খাদে পড়ে যায়। এ দুর্ঘটনায় নিহত হয় বাসের যাত্রী এক স্কুল শিক্ষকসহ চারজন। আর গত মঙ্গলবার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার সৈয়দপুর এলাকায় উল্টোদিক থেকে আসা একটি বাসের চাপায় প্রাণ যায় এক বৃদ্ধের।

উপরোল্লেখিত দুর্ঘটনা ছাড়াও সম্প্রতি ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লা অংশের বিভিন্ন স্থানে অসংখ্য দুর্ঘটনা ঘটেছে। যার বেশিরভাগই সংগঠিত হয়েছে চালকদের নিয়ন্ত্রণহীনতার কারণে। নানা পদক্ষেপের পরও শৃঙ্খলা ফিরছে না সড়কে; কমছে না চালকদের আগে যাওয়ার প্রবণতা।

বিষয়টি স্বীকার করে নিয়ে হাইওয়ে পুলিশ কুমিল্লা রিজিওনের পুলিশ সুপার নজরুল ইসলাম বলেন, দ্বিতীয় মেঘনা-গোমতী সেতু চালু হওয়ার পর সড়কে শৃঙ্খলা ফিরেছে অনেকাংশেই। মহাসড়কটিতে এখন আর যানজটের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে না। দুর্ঘটনাও কমেছে। সড়ক শৃঙ্খলায় হাইওয়ে পুলিশ কাজ করে যাচ্ছে। চালকরা আরেকটু সচেতন হলেই দুর্ঘটনা ও প্রাণহানী আরো কমে আসবে।

এ প্রসঙ্গে ‘নিরাপদ সড়ক চাই’ কুমিল্লা উত্তর জেলার সাধারণ সম্পাদক লিটন সরকার বাদল বলেন, সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে চালকদের সচেতনতার বিকল্প নেই। তাদেরকে বোঝাতে হবে সময়ের চেয়ে জীবনের মূল্য বেশি। আগে যাওয়ার মানসিকতায় ওভারটেক, উল্টোপথে যাওয়ার প্রবণতা রুখতে হবে।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)